ভবঘুরে কথা

ইতিহাস

রাজাবাবুর লক্ষ্মীনারায়ণ মন্দির ঢাকার উপাসনালয়

রাজাবাবুর লক্ষ্মীনারায়ণ মন্দির

-মূর্শেদূল কাইয়ুম মেরাজ লক্ষ্মীবাজারে রাজাবাবুর ময়দান এলাকাতেই ছিল রাজাবাবুর বাড়ি ও মন্দির। রাজাবাবুর প্রকৃত নাম ছিল কৃষ্ণ প্রসাদ। তিনি ছিলেন ভিখন লাল পাণ্ডে নামক জনৈক ব্রাহ্মণের পৌত্র। আঠার শতকের কোন এক সময় ভিখন লাল/ভিখন ঠাকুর পাঞ্জাব রাজ্য থেকে ঢাকায় আসেন। পলাশীর যুদ্ধে তিনি ইংরেজদের নানাবিধ সাহায্য-সহযোগিতা করেন বলে জানা যায়। পরবর্তীতে ভিখন লাল কোম্পানির দেওয়ান […]

বিস্তারিত পড়ুন
রমনা কালী মন্দির ঢাকার উপাসনালয়

রমনা কালী মন্দির

-মূর্শেদূল কাইয়ুম মেরাজ একসময় ঢাকায় রমনা এলাকায় ছিল দশনামী গোত্রের হিন্দুদের একটি মন্দির। সুউচ্চ চূড়া বিশিষ্ট এই মন্দিরটি আকারে খুব বেশি বড় ছিল না। ১২টি সিঁড়ি বেয়ে মন্দিরের বারান্দায় উঠতে হত। এ বারান্দার মধ্যখানে কাঠের সিংহাসনে স্থান পেত লাল পাড়ের শাড়ী পরিহিত স্বর্ণ মনি-মুক্তার অলঙ্কারে ভূষিত কষ্ঠি পাথরের কালিক ও ভদ্র কালি মূর্তি। যতীন্দ্রমোহন রায়ের ঢাকার […]

বিস্তারিত পড়ুন
ঢাকেশ্বরী মন্দির ঢাকার উপাসনালয়

ঢাকেশ্বরী মন্দির

-মূর্শেদূল কাইয়ুম মেরাজ সলিমুল্লাহ হল থেকে প্রায় ৬০০ গজ দক্ষিণ-পশ্চিমে বর্তমান ঢাকার বকশিবাজার এলাকায় ঢাকেশ্বরী মন্দিরের অবস্থান। ধারণা করা হয়, এটিই ঢাকার আদি ও প্রথম মন্দির। সনাতন হিন্দু ধর্মালম্বীরা মনে করে, ঢাকেশ্বরী থেকেই ঢাকা নামের উৎপত্তি। ঢাকেশ্বরী দেবী ঢাকা অধিষ্ঠাত্রী বা পৃষ্ঠপোষক দেবী। ঢাকেশ্বরী মন্দির নির্মাণ নিয়ে ছড়িয়ে আছে নানা কিংবদন্তি। কিংবদন্তি অনুযায়ী, রাজা আদিসুর […]

বিস্তারিত পড়ুন
ঢাকেশ্বরী মন্দির ঢাকার উপাসনালয়

ঢাকার মন্দির

সনাতন ধর্মালম্বী হিন্দু সম্প্রদায়ের বসতি কবে বা কোন সময় ঢাকাতে গড়ে উঠে এ প্রশ্নের উত্তর দেয়া মুশকিল। এ যাবৎ প্রাপ্ত তথ্য মতে, ঢাকার আদি মন্দির বকশিবাজারস্থ ঢাকেশ্বরী মন্দির। এছাড়াও ঢাকায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে বহু মন্দির। ১৮৩২ সালে ঢাকার তৎকালীন ম্যাজিস্ট্রেট জর্জ হেনরি ওয়াল্টারের এক রিপোর্ট থেকে তথ্য পাওয়া যায়- তখন ঢাকায় মন্দিরের সংখ্যা ছিল ৫২টি। […]

বিস্তারিত পড়ুন
উত্তরবঙ্গ থেকে আমার দেখা ৭১ এর স্মৃতি : পর্ব ষোল ইতিহাস

উত্তরবঙ্গ থেকে আমার দেখা ৭১ এর স্মৃতি : পর্ব ষোল

-পারভেজ চৌধুরী তিস্তায় ভারি মর্টারের গোলা বর্ষণ! শনিবার, ৩ এপ্রিল ১৯৭১, তখন ভোর ৩টা হবে, হাল্কা ভূমিকম্পের মতো মাটি কেঁপে উঠার পর গভীর ‘ভুরউম’ শব্দে ঘুম ভেঙ্গে গেল। অন্ধকারেও দেখি বারান্দার অনেকেই আমার আগে জেগে উঠেছেন! কিসের শব্দ আমরা কেউ বুঝতে পারছি না, আকাশের মেঘ গর্জন? এখন বৈশাখ না এলেও আকাশে মেঘ হতে পারে, কিন্তু […]

বিস্তারিত পড়ুন
উত্তরবঙ্গ থেকে আমার দেখা ৭১ এর স্মৃতি : পর্ব পনের বাংলার কথা

উত্তরবঙ্গ থেকে আমার দেখা ৭১ এর স্মৃতি : পর্ব পনের

-পারভেজ চৌধুরী শুধু বাঙ্গালী ইঞ্জিন ড্রাইভার-ফায়ারমেন দিয়ে রেলগাড়ি চালু। শুক্রবার, ২ এপ্রিল ১৯৭১, খুব ভোরে একবার ঘুম থেকে উঠে বাবা ও ওসি সাহেবকে বাথরুমে নিয়ে যাই। বাবার বেডটা দরজা ও পেছনের বারান্দার সাথে লাগা বাথরুম। আমার একার পক্ষে তার বিরাট ভারি শরীর ধরে রাখতে পারব না বলে হাসপাতালের লোকের সাহায্য নেই। রাতে তিনি তেমন ঘুমাতে […]

বিস্তারিত পড়ুন
উত্তরবঙ্গ থেকে আমার দেখা ৭১ এর স্মৃতি : পর্ব চৌদ্দ বাংলার কথা

উত্তরবঙ্গ থেকে আমার দেখা ৭১ এর স্মৃতি : পর্ব চৌদ্দ

-পারভেজ চৌধুরী বাঙ্গালী ইপিআর ক্যাপ্টেন নয়াজেশ উদ্দিনের আগমন-বৃহস্পতিবার, ১লা এপ্রিল ১৯৭১, মগরিবের আগে ডাক্তার জায়গীরদার থাকা অবস্থায় রেল হাসপাতালের প্রধান ডাক্তার রহমান এসে বাবা ও মোশাররফ সাহেবসহ সবার সাথে তাদের শারীরিক অবস্থা নিয়ে কথা বলেন। কি আশ্চর্যয় বাবার নামের সাথে সেই ডাক্তার সাহেবের নামের মিল ছিল। পরবর্তীকালে তিনিও শহীদ হন। তিনি বাবার ক্ষত ও অপারেশনের […]

বিস্তারিত পড়ুন
উত্তরবঙ্গ থেকে আমার দেখা ৭১ এর স্মৃতি : পর্ব তেরো বাংলার কথা

উত্তরবঙ্গ থেকে আমার দেখা ৭১ এর স্মৃতি : পর্ব তেরো

-পারভেজ চৌধুরী বাবা গুরুতর আহত ও ১৯জন পাকিস্তানির মৃত্যুবৃহস্পতিবার, ১লা এপ্রিল ১৯৭১, দুপুরবেলা প্রায় ১টার দিকে যখন জনতার সাথে মোগোলহাট লাইনের ইনার সিগন্যালের কাছে পৌঁছি তখন আরো কয়কজন আহত মানুষকে ধরাধরি করে নিয়ে যেতে দেখি। এখানে মূল রেললাইন কয়েকটি শাখায়(ব্রাঞ্চ লাইন) ভাগ হয়েছে ও কতগুলোতে খালি মালগাড়ি দাঁড়িয়ে আছে। অনেকের সাথে আমিও সেগুলোর আড়ালে লুকাই। […]

বিস্তারিত পড়ুন
উত্তরবঙ্গ থেকে আমার দেখা ৭১ এর স্মৃতি : পর্ব বারো বাংলার কথা

উত্তরবঙ্গ থেকে আমার দেখা ৭১ এর স্মৃতি : পর্ব বারো

-পারভেজ চৌধুরী লালমনিরহাটের প্রথম যুদ্ধ-বৃহস্পতিবার, ১লা এপ্রিল ১৯৭১, ছোট শহর লালমনিরহাটে আমাদের আসার আজ ৯০ দিন পুরা হোল। যা ছিল মধ্য চৈত্রমাসের উজ্জল নীল আকাশের দিন। ১লা জানুয়ারি তারিখে আসার পর এখনো শহরের সবকিছু আমাদের অজানা, এই শহর ও তার মানুষজনকে ভালোভাবে জানা হয় নাই। যদিও বাবার কাছে শহর ও তার নেতৃত্ব স্থানীয় মানুষ আগে […]

বিস্তারিত পড়ুন
উত্তরবঙ্গ থেকে আমার দেখা ৭১ এর স্মৃতি : পর্ব এগারো বাংলার কথা

উত্তরবঙ্গ থেকে আমার দেখা ৭১ এর স্মৃতি : পর্ব এগারো

-পারভেজ চৌধুরী স্থানীয় গ্রামবাসী নারী-পুরুষের দ্বারাই রানওয়ের ব্যারিকেড তৈরি।মঙ্গলবার, ৩০ মার্চ ১৯৭১, সকালে আমরা অপেক্ষা করলাম আটার রুটি-ডাল খেয়ে বের হওয়ার জন্য, কারণ গতকাল স্থানীয় জনগণ যদি মুড়ি-খই-গুড়-পানি না খাওয়াতো তাহলে সেখানেই আমরা কাহিল হয়ে পড়তাম। আজ প্রথম বাবা জানতে চাইলেন আমরা সকাল সকাল কোথায় যাচ্ছি! আমি ও হাসনাত ভয়ে কোন উত্তর না দিয়ে শুধু […]

বিস্তারিত পড়ুন
error: Content is protected !!