ভবঘুরে কথা

ঢাকার কথা

রাজাবাবুর লক্ষ্মীনারায়ণ মন্দির ঢাকার উপাসনালয়

রাজাবাবুর লক্ষ্মীনারায়ণ মন্দির

-মূর্শেদূল কাইয়ুম মেরাজ লক্ষ্মীবাজারে রাজাবাবুর ময়দান এলাকাতেই ছিল রাজাবাবুর বাড়ি ও মন্দির। রাজাবাবুর প্রকৃত নাম ছিল কৃষ্ণ প্রসাদ। তিনি ছিলেন ভিখন লাল পাণ্ডে নামক জনৈক ব্রাহ্মণের পৌত্র। আঠার শতকের কোন এক সময় ভিখন লাল/ভিখন ঠাকুর পাঞ্জাব রাজ্য থেকে ঢাকায় আসেন। পলাশীর যুদ্ধে তিনি ইংরেজদের নানাবিধ সাহায্য-সহযোগিতা করেন বলে জানা যায়। পরবর্তীতে ভিখন লাল কোম্পানির দেওয়ান […]

বিস্তারিত পড়ুন
রমনা কালী মন্দির ঢাকার উপাসনালয়

রমনা কালী মন্দির

-মূর্শেদূল কাইয়ুম মেরাজ একসময় ঢাকায় রমনা এলাকায় ছিল দশনামী গোত্রের হিন্দুদের একটি মন্দির। সুউচ্চ চূড়া বিশিষ্ট এই মন্দিরটি আকারে খুব বেশি বড় ছিল না। ১২টি সিঁড়ি বেয়ে মন্দিরের বারান্দায় উঠতে হত। এ বারান্দার মধ্যখানে কাঠের সিংহাসনে স্থান পেত লাল পাড়ের শাড়ী পরিহিত স্বর্ণ মনি-মুক্তার অলঙ্কারে ভূষিত কষ্ঠি পাথরের কালিক ও ভদ্র কালি মূর্তি। যতীন্দ্রমোহন রায়ের ঢাকার […]

বিস্তারিত পড়ুন
ঢাকেশ্বরী মন্দির ঢাকার উপাসনালয়

ঢাকেশ্বরী মন্দির

-মূর্শেদূল কাইয়ুম মেরাজ সলিমুল্লাহ হল থেকে প্রায় ৬০০ গজ দক্ষিণ-পশ্চিমে বর্তমান ঢাকার বকশিবাজার এলাকায় ঢাকেশ্বরী মন্দিরের অবস্থান। ধারণা করা হয়, এটিই ঢাকার আদি ও প্রথম মন্দির। সনাতন হিন্দু ধর্মালম্বীরা মনে করে, ঢাকেশ্বরী থেকেই ঢাকা নামের উৎপত্তি। ঢাকেশ্বরী দেবী ঢাকা অধিষ্ঠাত্রী বা পৃষ্ঠপোষক দেবী। ঢাকেশ্বরী মন্দির নির্মাণ নিয়ে ছড়িয়ে আছে নানা কিংবদন্তি। কিংবদন্তি অনুযায়ী, রাজা আদিসুর […]

বিস্তারিত পড়ুন
ঢাকেশ্বরী মন্দির ঢাকার উপাসনালয়

ঢাকার মন্দির

সনাতন ধর্মালম্বী হিন্দু সম্প্রদায়ের বসতি কবে বা কোন সময় ঢাকাতে গড়ে উঠে এ প্রশ্নের উত্তর দেয়া মুশকিল। এ যাবৎ প্রাপ্ত তথ্য মতে, ঢাকার আদি মন্দির বকশিবাজারস্থ ঢাকেশ্বরী মন্দির। এছাড়াও ঢাকায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে বহু মন্দির। ১৮৩২ সালে ঢাকার তৎকালীন ম্যাজিস্ট্রেট জর্জ হেনরি ওয়াল্টারের এক রিপোর্ট থেকে তথ্য পাওয়া যায়- তখন ঢাকায় মন্দিরের সংখ্যা ছিল ৫২টি। […]

বিস্তারিত পড়ুন
ঢাকা ইতিহাস

ঢাকার যাতায়াতব্যবস্থা

এ যাবৎ প্রাপ্ত ঢাকার ইতিহাসে সাধারণ মানুষের কথা প্রায় নেই বললেই চলে। সাধারণ মানুষের জীবন-জীবিকা, সামাজিক ও ধর্মীয় কর্মকাণ্ড সম্পর্কে প্রায় কিছুই জানা যায় না। আদি ইতিহাস রচয়ীতারা যেহেতু শাসকবর্গের পৃষ্ঠপোষকতায় ইতিহাস রচনা করেছেন তাই তাদের রচিত ঢাকার ইতিহাস গ্রন্থে শুধু শাসকদের ইতিহাসই লিপিবদ্ধ করা হয়েছে। শাসকদের গুণকীর্তণই এসকল ইতিহাসের মূল উপজীব্য। পরবর্তীতে ব্যক্তিগত উদ্যোগে […]

বিস্তারিত পড়ুন
ঢাকার কথা

ঢাকার পার্ক-বাগান-মাঠ-জাদুঘর

রাজধানী শহর হিসেবে প্রতিষ্ঠা পাওয়ার পর থেকে দীর্ঘ পথ পরিক্রমায় ঢাকাস্থ সাধারণ মানুষের সুযোগ-সুবিধা বা বিনোদনের কথা চিন্তা করে কোন কর্মকাণ্ড করা হয়েছিল কিনা তা নির্দিষ্ট করে বলা কঠিন। সাতচল্লিশের পূর্ব পর্যন্ত ঢাকার ইতিহাস দেখলে দেখা যায় শহরে যে কয়টা বিনোদন কেন্দ্র ছিল তার প্রায় সবটাই ছিল উচ্চবিত্তের বিনোদনের জন্যে। আজকের মত এত বসতি না […]

বিস্তারিত পড়ুন
ঢাকার আন্দোলন

ঢাকায় বিদ্রোহ-আন্দোলন-দাঙ্গা

ঢাকার ইতিহাসে যুদ্ধ-বিদ্রোহ-আন্দোলন-দাঙ্গার বহু ঘটনা রয়েছে তবে তার সমান্য কয়েকটি ঘটনা সম্পর্কেই জানা যায়। আদিতে ঢাকায় মগ, পুর্তগিজ ও আরাকানিদের আক্রমণ ছিল নিয়মিত ঘটনা। সতের শতকের দিকে মোগলরা যখন বাংলার রাজধানী হিসেবে ঢাকাকে নির্বাচন করে সে সময় থেকে আবার শুরু হয় স্বাধীন সুলতানদের বিপক্ষে মোগল শাসকদের হামলা-যুদ্ধ। ঢাকাকে সুবা বাংলার রাজধানী করার পরেই মোগলা বারো ভূঁইয়াদের […]

বিস্তারিত পড়ুন
ঢাকার কথা

ঢাকার খেলাধুলা

মুক্তধারা প্রকাশিত বাংলা বিশ্বকোষ-এ খেলাধুলা সম্পর্কে বলা হয়েছে- “দলবদ্ধ বা একক নৈপুণ্যের উপর নির্ভরশীল যে ক্রীড়ায় অংশগ্রহণকারিগণ ও দর্শকগণ আমোদ লাভ করে তাহা। খেলাধুলা মাত্রই বিশেষ পদ্ধতি বা নিয়মের অনসারী ; ইহা একাধারে বিনোদন এবং দৈহিক শক্তি সঞ্চয়ের উপায়, এই দুই-ই।” আর্থসামাজিক, রাজনৈতিক ও পরিবেশ ভেদে বিভিন্ন অঞ্চলে বিভিন্ন রকমের খেলাধুলা হয়ে থাকে। এসমস্ত খেলার নিয়মকানুনগুলোও হয়ে […]

বিস্তারিত পড়ুন
ঢাকার কথা

ঢাকার সংগীত ও নৃত্যকলা

আজন্ম বিনোদন প্রিয় ঢাকা শহরের বাসিন্দাদের জীবনে আষ্টেপৃষ্ঠে জড়িয়ে ছিল সংস্কৃতির নানা মাধ্যম। শহরের মানুষের পৃষ্ঠপোষকতা ও উৎসাহেই সমৃদ্ধ হয়েছে ঢাকার সংগীত ও নৃত্যকলা। সংস্কৃতির প্রতি এ শহরের মানুষের ভালবাসার কারণে ভারতবর্ষের বহু জ্ঞানী-গুণী শিল্পী তাদের কলা প্রদর্শন করতে এসেছেন ঢাকায়। আবার ঢাকার প্রতীভাধর শিল্পীরা গিয়েছেন বিশ্বের বহু দরবারে। সঙ্গীতজ্ঞরা ঢাকাকে অভিহিত করত তালের শহর […]

বিস্তারিত পড়ুন
বাকর খানি ঢাকার কথা

ঢাকার খাবার-দাবার

ভোজনরসিক হিসেবে বাঙালির বেশ নামডাক আছে। বাঙালি পুষ্টিকর খাবারের চেয়ে মজাদার খাবারই বেশি পছন্দ করে। মাছে-ভাতে বাঙালির পরিচিতি থাকলেও শহর ঢাকার মানুষের পছন্দের খাবারের তালিকায় ভাঁজা-পোড়া-তেল চপচপে খাবারের আধিক্য লক্ষ্যণীয়। তবে চাল উৎপাদন বেশি হওয়ায় এ অঞ্চলের মানুষের প্রধান খাবার ভাত। পাঠান, মোগল, আরমানিয়ান, ইরানী, ইরাকী, কাস্মিরী যারাই ঢাকায় এসেছেন প্রত্যেকেই ঢাকার খাবারের সঙ্গে নিজ নিজ […]

বিস্তারিত পড়ুন
error: Content is protected !!