ভবঘুরে কথা

অষ্টম অধ্যায়

রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব অষ্টম অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : নবম অধ্যায় : দ্বিতীয় পরিচ্ছেদ

১৮৮৩, ১লা জানুয়ারিভাবরাজ্য ও রূপদর্শন ঠাকুর সমাধিস্থ – অনেকক্ষণ ভাবাবিষ্ট হইয়া বসিয়া আছেন। দেহ নড়িতেছে না – চক্ষু স্পন্দহীন – নিঃশ্বাস পড়িতেছে কিনা – বুঝা যায় না। অনেকক্ষণ পরে দীর্ঘনিঃশ্বাস ফেলিলেন – যেন ইন্দ্রিয়ের রাজ্যে আবার ফিরিয়া আসিতেছেন। শ্রীরামকৃষ্ণ (প্রাণকৃষ্ণের প্রতি) – তিনি শুধু নিরাকার নন, তিনি আবার সাকার। তাঁর রূপ দর্শন করা যায়। ভাব-ভক্তির […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব অষ্টম অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : অষ্টম অধ্যায় : নবম পরিচ্ছেদ

১৮৮২, ১৪ই ডিসেম্বর দক্ষিণেশ্বরে মারোয়াড়ী ভক্তগণসঙ্গে শ্রীরামকৃষ্ণবৈকাল হইয়াছে। মাস্টার ও দু-একটি ভক্ত বসিয়া আছেন। কতকগুলি মারোয়াড়ী ভক্ত আসিয়া প্রণাম করিলেন। তাঁহারা কলিকাতায় ব্যাবসা করেন। তাঁহারা ঠাকুরকে বলিতেছেন, আপনি আমাদের কিছু উপদেশ করুন। ঠাকুর হাসিতেছেন। শ্রীরামকৃষ্ণ (মারোয়াড়ী ভক্তদের প্রতি) – দেখ, “আমি আর আমার” এ-দুটি অজ্ঞান। হে ঈশ্বর, তুমি কর্তা আর তোমার এই সব এর নাম […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব অষ্টম অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : অষ্টম অধ্যায় : নবম পরিচ্ছেদ

১৮৮২, ১৪ই ডিসেম্বর দক্ষিণেশ্বরে মারোয়াড়ী ভক্তগণসঙ্গে শ্রীরামকৃষ্ণ বৈকাল হইয়াছে। মাস্টার ও দু-একটি ভক্ত বসিয়া আছেন। কতকগুলি মারোয়াড়ী ভক্ত আসিয়া প্রণাম করিলেন। তাঁহারা কলিকাতায় ব্যাবসা করেন। তাঁহারা ঠাকুরকে বলিতেছেন, আপনি আমাদের কিছু উপদেশ করুন। ঠাকুর হাসিতেছেন। শ্রীরামকৃষ্ণ (মারোয়াড়ী ভক্তদের প্রতি) – দেখ, “আমি আর আমার” এ-দুটি অজ্ঞান। হে ঈশ্বর, তুমি কর্তা আর তোমার এই সব এর […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব অষ্টম অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : অষ্টম অধ্যায় : অষ্টম পরিচ্ছেদ

১৮৮২, ১৪ই ডিসেম্বর বাবুরাম প্রভৃতির সঙ্গে, ফ্রি উইল সম্বন্ধ কথা – তোতাপুরীর আত্মহত্যার সঙ্কল্প ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণ দক্ষিণেশ্বর-মন্দিরে বৈকাল বেলা নিজের ঘরে পশ্চিমের বারান্দায় কথা কহিতেছেন। সঙ্গে বাবুরাম, মাস্টার, রামদয়াল প্রভৃতি। ডিসেম্বর, ১৮৮২ খ্রীষ্টাব্দ। বাবুরাম, রামদয়াল ও মাস্টার আজ রাত্রে থাকিবেন। শীতের (বড়দিনের) ছুটি হইয়াছে। মাস্টার আগামী কল্যও থাকিবেন। বাবুরাম নূতন নূতন আসিয়াছেন। শ্রীরামকৃষ্ণ (ভক্তদের প্রতি) […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব অষ্টম অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : অষ্টম অধ্যায় : সপ্তম পরিচ্ছেদ

১৮৮২, ১৪ই ডিসেম্বর ক্লেশোঽধিকতরস্তেষামব্যক্তাসক্তচেতসাম্‌ ৷ অব্যক্তা হি গর্তিদুঃখং দেহবদ্ভিরবাপ্যতে ৷৷ [গীতা – ১২।৫] ভক্তিযোগ যুগধর্ম – জ্ঞানযোগ বড় কঠিন – “দাস আমি” – “ভক্তের আমি” – “বালকের আমি” বিজয় (শ্রীরামকৃষ্ণের প্রতি) – মহাশয়! আপনি “বজ্জাৎ আমি” ত্যাগ করতে বলছেন। “দাস আমি”তে দোষ নাই? শ্রীরামকৃষ্ণ – হাঁ, “দাস আমি” অর্থাৎ আমি ঈশ্বরের দাস, আমি তাঁর ভক্ত […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব অষ্টম অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : অষ্টম অধ্যায় : ষষ্ঠ পরিচ্ছেদ

১৮৮২, ১৪ই ডিসেম্বর অহঙ্কারবিমূঢ়াত্মা কর্তাহমিতি মন্যতে।[গীতা – ৩।২৭] মায়া বা অহং-আবরণ গেলেই মুক্তি বা ঈশ্বরলাভ বিজয় – মহাশয়! কেন আমরা এরূপ বদ্ধ হয়ে আছি? কেন ঈশ্বরকে দেখতে পাই না? শ্রীরামকৃষ্ণ – জীবের অহংকারই মায়া। এই অহংকার সব আবরণ করে রেখেছে। “আমি মলে ঘুচিবে জঞ্জাল।” যদি ঈশ্বরের কৃপায় “আমি অকর্তা” এই বোধ হয়ে গেল, তাহলে সে […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব অষ্টম অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : অষ্টম অধ্যায় : পঞ্চম পরিচ্ছেদ

১৮৮২, ১৪ই ডিসেম্বর ঈশ্বরের আদেশ প্রাপ্ত হলে তবে ঠিক আচার্য বিজয় – ব্রাহ্মসমাজের কাজ করতে হয়, তাই সদা-সর্বদা আসতে পারি না; সুবিধা হলে আসব। শ্রীরামকৃষ্ণ (বিজয়ের প্রতি) – দেখ, আচার্যের কাজ বড় কঠিন, ঈশ্বরের সাক্ষাৎ আদেশ ব্যতিরেকে লোকশিক্ষা দেওয়া যায় না। “যদি আদেশ না পেয়ে উপদেশ দাও, লোকে শুনবে না। সে উপদেশের কোন শক্তি নাই। […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব অষ্টম অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : অষ্টম অধ্যায় : চতুর্থ পরিচ্ছেদ

১৮৮২, ১৪ই ডিসেম্বর আপূর্যমাণমচলপ্রতিষ্ঠং, সমুদ্রমাপঃ প্রবিশন্তি যদ্বৎ ৷ তদ্বৎ কামা যং প্রবিশন্তি সর্বে, স শান্তিমাপ্নোতি ন কামকামী ৷৷ [গীতা – ২।৭০] কামিনী-কাঞ্চন জন্য দাসত্ব শ্রীরামকৃষ্ণ (বিজয়ের প্রতি) – আগে অত আসতে; এখন আস না কেন? বিজয় – এখানে আসবার খুব ইচ্ছা, কিন্তু আমি স্বাধীন নই। ব্রাহ্মসমাজের কাজ স্বীকার করেছি। শ্রীরামকৃষ্ণ – কামিনী-কাঞ্চনে জীবকে বদ্ধ করে। […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব অষ্টম অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : অষ্টম অধ্যায় : তৃতীয় পরিচ্ছেদ

১৮৮২, ১৪ই ডিসেম্বর অসংশয়ং মহাবাহো মনো দুর্নিগ্রহং চলম্‌ ৷ অভ্যাসেন তু কৌন্তেয় বৈরাগ্যেণ চ গৃহ্যতে ৷৷ [গীতা – ৬।৩৫] তীব্র বৈরাগ্য ও বদ্ধজীব বিজয় – বদ্ধজীবের মনের কি অবস্থা হলে মুক্তি হতে পারে? শ্রীরামকৃষ্ণ – ঈশ্বরের কৃপায় তীব্র বৈরাগ্য হলে, এই কামিনী-কাঞ্চনে আসক্তি থেকে নিস্তার হতে পারে। তীব্র বৈরাগ্য কাকে বলে? হচ্ছে হবে, ঈশ্বরের নাম […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব অষ্টম অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : অষ্টম অধ্যায় : দ্বিতীয় পরিচ্ছেদ ১৮৮২, ১৪ই ডিসেম্বর

অনিত্যমসুখং লোকমিমং প্রাপ্য ভজস্ব মাম্‌।[গীতা – ৯।৩৩] জীব চার থাক – বদ্ধজীবের লক্ষণ কামিনী-কাঞ্চনশ্রীরামকৃষ্ণ – জীব চার থাক বলেছে – বদ্ধ, মুমুক্ষু, মুক্ত, নিত্য। সংসার জালের স্বরূপ, জীব যেন মাছ, ঈশ্বর (যাঁর মায়া এই সংসার) তিনি জেলে। জেলের জালে যখন মাছ পড়ে, কতকগুলো মাছ জাল ছিঁড়ে পালাবার অর্থাৎ মুক্ত হবার চেষ্টা করে। এদের মুমুক্ষু জীব […]

বিস্তারিত পড়ুন
error: Content is protected !!