ভবঘুরে কথা

অষ্টাদশ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব অষ্টাদশ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : অষ্টাদশ অধ্যায় : ত্রয়োত্রিংশ পরিচ্ছেদ

১৮৮৪, ২৫শে মে সন্ন্যাসির কঠিন ব্রত – সন্ন্যাসী ও লোকশিক্ষা ঠাকুর গঙ্গার ধারের গোল বারান্দায় আসিয়াছেন। কাছে বিজয়, ভবনাথ, মাস্টার, কেদার প্রভৃতি ভক্তগণ। ঠাকুর এক-একবার বলিতেছেন – “হা কৃষ্ণচৈতন্য!” শ্রীরামকৃষ্ণ (বিজয় প্রভৃতি ভক্তদের প্রতি) – ঘরে নাকি অনেক হরিনাম হয়েছে – তাই খুব জমে গেল! ভবনাথ – তাতে আবার সন্ন্যাসের কথা! শ্রীরামকৃষ্ণ – ‘আহা! কি […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব অষ্টাদশ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : অষ্টাদশ অধ্যায় : দ্বাত্রিংশ পরিচ্ছেদ

১৮৮৪, ২৫শে মে বিজয়াদি ভক্তসঙ্গে সংকীর্তনানন্দে – সহচরীর গৌরাঙ্গসন্ন্যাস গান কীর্তনী গৌরসন্ন্যাস গাইতেছেন ও মাঝে মাঝে আখর দিতেছেন – (নারী হেরবে না!) (সে যে সন্ন্যাসীর ধর্ম!) (জীবের দুঃখ ঘুচাইতে,) (নারী হেরিবে না!) (নইলে বৃথা গৌর অবতার!) ঠাকুর গৌরাঙ্গের সন্ন্যাস কথা শুনিতে শুনিতে দণ্ডায়মান হইয়া সমাধিস্থ হইলেন। অমনি ভক্তেরা গলায় পুষ্পমালা পরাইয়া দিলেন। ভবনাথ, রাখাল, ঠাকুরকে […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব অষ্টাদশ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : অষ্টাদশ অধ্যায় : একত্রিংশ পরিচ্ছেদ

১৮৮৪, ২৫শে মে বিজয়, কেদার প্রভৃতির প্রতি কামিনী-কাঞ্চন সম্বন্ধে উপদেশ শ্রীরামকৃষ্ণ – বন্ধনের কারণ কামিনী-কাঞ্চন। কামিনী-কাঞ্চনই সংসার। কামিনী-কাঞ্চনই ঈশ্বরকে দেখতে দেয় না এই বলিয়া ঠাকুর নিজের গামছা লইয়া সম্মুখ আবরণ করিলেন। আর বলিতেছেন,  আর আমায় তোমরা দেখতে পাচ্চ? – এই আবরণ! এই কামিনী-কাঞ্চন আবরণ গেলেই চিদানন্দলাভ। “দেখো না – যে মাগ সুখ ত্যাগ করেছে, সে […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব অষ্টাদশ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : অষ্টাদশ অধ্যায় : ত্রিংশ পরিচ্ছেদ

১৮৮৪, ২৫শে মে ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণ দক্ষিণেশ্বর-মন্দিরে, জন্মোৎসবদিবসে বিজয়,কেদার, রাখাল, সুরেন্দ্র প্রভৃতি ভক্তসঙ্গে [পঞ্চবটীমূলে জন্মোৎসবদিবসে বিজয় প্রভৃতি ভক্তসঙ্গে ] ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণ পঞ্চবটীতলায় পুরাতন বটবৃক্ষের চাতালের উপর বিজয়, কেদার, সুরেন্দ্র, ভবনাথ, রাখাল প্রভৃতি অনেকগুলি ভক্তসঙ্গে দক্ষিণাস্য হইয়া বসিয়া আছেন। কয়েকটি ভক্ত চাতালের উপর বসিয়া আছেন। অধিকাংশই চাতালের নিচে, চতুর্দিকে দাঁড়াইয়া আছেন। বেলা ১টা হইবে। রবিবার, ২৫শে মে, […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব অষ্টাদশ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : অষ্টাদশ অধ্যায় : ঊনত্রিংশ পরিচ্ছেদ

১৮৮৪, ২৪শে মে শ্রীরামকৃষ্ণ এইবার পশ্চিমের গোল বারান্দায় আসিয়া বসিয়াছেন। বন্দ্যোপাধ্যায়, হরি, মাস্টার প্রভৃতি কাছে বসিয়া আছেন। বন্দ্যোপাধ্যায়ের সংসারে কষ্ট ঠাকুর সব জানেন। [বন্দ্যোকে শিক্ষা – ভার্যা সংসারের কারণ – শরণাগত হও ] শ্রীরামকৃষ্ণ – দেখ, “এক কপ্নিকে বাস্তে” যত কষ্ট। বিবাহ করে, ছেলেপুলে হয়েছে, তাই চাকরি করতে হয়; সাধু কপ্নি লয়ে ব্যস্ত, সংসারী ভার্যা […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব অষ্টাদশ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : অষ্টাদশ অধ্যায় : অষ্টাবিংশ পরিচ্ছেদ

১৮৮৪, ২৪শে মেভক্তসঙ্গে গুহ্যকথা – শ্রীযুক্ত কেশব সেন শ্রীরামকৃষ্ণ শিবের সিঁড়িতে বসিয়া আছেন। বেলা অপরাহ্ন ৫টা হইয়াছে; কাছে অধর, ডাক্তার নিতাই, মাস্টার প্রভৃতি দু-একটি ভক্ত বসিয়া আছেন। শ্রীরামকৃষ্ণ (ভক্তদের প্রতি) – দেখ, আমার স্বভাব বদলে যাচ্ছে। এইবার কি গুহ্যকথা বলিবেন বলিয়া সিঁড়ির এক ধাপ নামিয়া ভক্তদের কাছে বসিলেন। আবার কি বলিতেছেন – [God’s highest Manifestation […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব অষ্টাদশ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : অষ্টাদশ অধ্যায় : সপ্তবিংশ পরিচ্ছেদ

১৮৮৪, ২৪শে মে হরি (তুরীয়ানন্দ) নারাণ প্রভৃতি ভক্তসঙ্গে শ্রীরামকৃষ্ণ একটু বিশ্রাম করিতে না করিতেই কলিকাতা হইতে হরি, নারাণ, নরেন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায় প্রভৃতি আসিয়া তাঁহাকে ভূমিষ্ঠ হইয়া প্রণাম করিলেন। নরেন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায় “প্রেসিডেন্সী কলেজ”-এর সংস্কৃত অধ্যাপক রাজকৃষ্ণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের পুত্র। বাড়িতে বনিবনাও না হওয়াতে শ্যামপুকুরে আলাদা বাসা করিয়া স্ত্রী-পুত্র লইয়া আছেন। লোকটি ভারী সরল। এক্ষণে বয়স ২৯/৩০ হইবে। শেষজীবনে […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব অষ্টাদশ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : অষ্টাদশ অধ্যায় : ষড়্‌বিংশ পরিচ্ছেদ

১৮৮৪, ২৪শে মে যাত্রাওয়ালা ও সংসারে সাধনা – ঈশ্বরদর্শনের (আত্মদর্শনের) উপায় শ্রীরামকৃষ্ণ (বিদ্যা অভিনেতার প্রতি) – আত্মদর্শনের উপায় ব্যাকুলতা। কায়মনোবাক্যে তাঁকে পাবার চেষ্টা। যখন অনেক পিত্ত জমে তখন ন্যাবা লাগে; সকল জিনিস হলদে দেখায়। হলদে ছাড়া কোন রঙ দেখা যায় না। “তোমাদের যাত্রাওয়ালাদের ভিতর যারা কেবল মেয়ে সাজে তাদের প্রকৃতি ভাব হয়ে যায়। মেয়েকে চিন্তা […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব অষ্টাদশ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : অষ্টাদশ অধ্যায় : পঞ্চবিংশ পরিচ্ছেদ

১৮৮৪, ২৪শে মে দক্ষিণেশ্বরে শ্রীরামকৃষ্ণ – ফলহারিণীপূজা ও বিদ্যাসুন্দরের যাত্রা [দক্ষিণেশ্বরে শ্রীরামকৃষ্ণ, রাখাল (স্বামী ব্রহ্মানন্দ), অধর, হরি (স্বামী তুরীয়ানন্দ) প্রভৃতি ভক্তসঙ্গে ] ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণ সেই পূর্বপরিচিত ঘরে বসিয়া আছেন; বেলা ১১টা হইয়াছে। রাখাল, মাস্টার প্রভৃতি ভক্তেরা সেই ঘরে উপস্থিত আছেন। গত রাত্রে ৺ফলহারিণী কালীপূজা হইয়া গিয়াছে; সেই উৎসব উপলক্ষে নাটমন্দিরে শেষ রাত্রি হইতে যাত্রা হইয়াছে […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব অষ্টাদশ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : অষ্টাদশ অধ্যায় : চতুর্বিংশ পরিচ্ছেদ

১৮৮৪, ৫ই এপ্রিল পিতা ধর্মঃ পিতা স্বর্গঃ পিতাহি পরমন্তপঃ রামের ঘরকন্নার অনেক কথা হইতেছে। রামের বাবা পরম বৈষ্ণব। বাড়িতে শ্রীধরের সেবা। রামের বাবা দ্বিতীয় পক্ষে বিবাহ করিয়াছিলেন – রামের তখন খুব অল্প বয়স। পিতা ও বিমাতা রামের বাড়িতেই ছিলেন; কিন্তু বিমাতার সঙ্গে ঘর করিয়া রাম সুখী হন নাই। এক্ষণে বিমাতার বয়স চল্লিশ বৎসর। বিমাতার জন্য […]

বিস্তারিত পড়ুন
error: Content is protected !!