ভবঘুরে কথা

ঊনপঞ্চাশৎ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব ঊনপঞ্চাশৎ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : ঊনপঞ্চাশৎ অধ্যায় : পঞ্চবিংশ পরিচ্ছেদ

১৮৮৬, ২৩শে – ২৪শে এপ্রিল ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণ ও নরেন্দ্রাদি ভক্তের মজলিশ [সুরেন্দ্র, শরৎ, শশী, লাটু, নিত্যগোপাল, কেদার, গিরিশ, রাম, মাস্টার ] বৈকাল হইয়াছে। উপরের হলঘরে অনেকগুলি ভক্ত বসিয়া আছেন। নরেন্দ্র, শরৎ, শশী, লাটু, নিত্যগোপাল, কেদার, গিরিশ, রাম, মাস্টার, সুরেশ অনেকেই আছেন। সকলের অগ্রে নিত্যগোপাল আসিয়াছেন ও ঠাকুরকে দেখিবামাত্র তাঁহার চরণে মস্তক দিয়া বন্দনা করিয়াছেন। উপবেশনানন্তর […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব ঊনপঞ্চাশৎ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : ঊনপঞ্চাশৎ অধ্যায় : চতুর্বিংশ পরিচ্ছেদ

১৮৮৬, ২৩শে এপ্রিল মাস্টার, নরেন্দ্র, শরৎ প্রভৃতি মাস্টার ঠাকুরের কাছে বসিয়া। হীরানন্দ এইমাত্র চলিয়া গেলেন। শ্রীরামকৃষ্ণ (মাস্টারের প্রতি) – খুব ভাল; না? মাস্টার – আজ্ঞা হাঁ; স্বভাবটি বড় মধুর। শ্রীরামকৃষ্ণ – বললে এগার শো ক্রোশ। অত দূর থেকে দেখতে এসেছে। মাস্টার – আজ্ঞা হাঁ, খুব ভালবাসা না থাকলে এরূপ হয় না। শ্রীরামকৃষ্ণ – বড় ইচ্ছা, […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব ঊনপঞ্চাশৎ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : ঊনপঞ্চাশৎ অধ্যায় : ত্রয়োবিংশ পরিচ্ছেদ

১৮৮৬, ২৩শে এপ্রিল প্রবৃত্তি না নিবৃত্তি? হীরানন্দকে উপদেশ – নিবৃত্তিই ভাল হীরানন্দ ঠাকুরের পায়ে হাত বুলাইতেছেন। কাছে মাস্টার বসিয়া আছেন। লাটু ও আর দু-একটি ভক্ত ঘরে মাঝে মাঝে আসিতেছেন। শুক্রবার, ২৩শে এপ্রিল, ১৮৮৬ খ্রীষ্টাব্দ। আজ গুড্‌ ফ্রাইডে, বেলা প্রায় দুই প্রহর একটা হইয়াছে। হীরানন্দ আজ এখানেই অন্নপ্রসাদ পাইয়াছেন। ঠাকুরের একান্ত ইচ্ছা হইয়াছিল যে, হীরানন্দ এখানে […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব ঊনপঞ্চাশৎ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : ঊনপঞ্চাশৎ অধ্যায় : দ্বাবিংশ পরিচ্ছেদ

১৮৮৬, ২২শে এপ্রিল ঠাকুরের আত্মপূজা – গুহ্যকথা – মাস্টার, হীরানন্দ প্রভৃতি সঙ্গে ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণ অন্তর্মুখ। কাছে হীরানন্দ ও মাস্টার বসিয়া আছেন। ঘর নিস্তব্ধ। ঠাকুরের শরীরে অশ্রুতপূর্ব যন্ত্রণা; ভক্তেরা যখন এক-একবার দেখেন, তখন তাঁহাদের হৃদয় বিদীর্ণ হয়। ঠাকুর কিন্তু সকলকেই ভুলাইয়া রাখিয়াছেন। বসিয়া আছেন সহাস্যবদন! ভক্তেরা ফুল ও মালা আনিয়া দিয়াছেন। ঠাকুরের হৃদয়মধ্যে নারায়ণ, তাঁহারই বুঝি […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব ঊনপঞ্চাশৎ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : ঊনপঞ্চাশৎ অধ্যায় : একবিংশ পরিচ্ছেদ

১৮৮৬, ২২শে এপ্রিল শ্রীরামকৃষ্ণ হীরানন্দ প্রভৃতি ভক্তসঙ্গে কাশীপুরের বাগানে [ঠাকুরের উপদেশ – “যো কুছ হ্যায় সো তুঁহি হ্যায়” – নরেন্দ্র ও হীরানন্দের চরিত্র ] কাশীপুরের বাগান। ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণ উপরের হলঘরে বসিয়া আছেন। সম্মুখে হীরানন্দ, মাস্টার, আরও দু-একটি ভক্ত, আর হীরানন্দের সঙ্গে দুইজন বন্ধু আসিয়াছেন। হীরানন্দ সিন্ধুদেশনবাসী। কলিকাতার কলেজে পড়াশুনা করিয়া দেশে ফিরিয়া গিয়া সেখানে এতদিন […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব ঊনপঞ্চাশৎ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : ঊনপঞ্চাশৎ অধ্যায় : বিংশ পরিচ্ছেদ

১৮৮৬, ২২শে এপ্রিল শ্রীরামকৃষ্ণ কেন কামিনী-কাঞ্চন ত্যাগ করেছেন? ঠাকুর মাস্টারের সহিত কথা কহিতেছেন। ‘কামিনী’ সম্বন্ধে আপনার অবস্থা বলিতেছেন! শ্রীরামকৃষ্ণ (মাস্টারের প্রতি) – এরা কামিনী-কাঞ্চন না হলে চলে না, বলছে। আমার যে কি অবস্থা তা জানে না। “মেয়েদের গায়ে হাত লাগলে হাত আড়ষ্ট, ঝনঝন করে। “যদি আত্মীয়তা করে কাছে গিয়ে কথা কইতে যাই, মাঝে যেন কি […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব ঊনপঞ্চাশৎ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : ঊনপঞ্চাশৎ অধ্যায় : ঊনবিংশ পরিচ্ছেদ

১৮৮৬, ২২শে এপ্রিল রাখাল, শশী, মাস্টার, নরেন্দ্র, ভবনাথ, সুরেন্দ্র, রাজেন্দ্র, ডাক্তার কাশীপুরের বাগান। রাখাল, শশী ও মাস্টার সন্ধ্যার সময় উদ্যানপথে পাদচারণ করিতেছেন। ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণ পীড়িত – বাগানে চিকিৎসা করাইতে আসিয়াছেন। তিনি উপরে দ্বিতলের ঘরে আছেন, ভক্তেরা তাঁহার সেবা করিতেছেন। আজ বৃহস্পতিবার, ২২শে এপ্রিল ১৮৮৬ খ্রীষ্টাব্দ, গুড ফ্রাইডে-এর পূর্বদিন। মাস্টার – তিনি তো গুণাতীত বালক। শশী […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব ঊনপঞ্চাশৎ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : ঊনপঞ্চাশৎ অধ্যায় : অষ্টাদশ পরিচ্ছেদ

১৮৮৬, ২১শে এপ্রিল নরেন্দ্র ও ঈশ্বরের অস্তিত্ব – ভবনাথ, পূর্ণ, সুরেন্দ্র ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণকে দর্শন করিয়া হীরানন্দ গাড়িতে উঠিতেছেন। গাড়ির কাছে নরেন্দ্র, রাখাল দাঁড়াইয়া তাঁহার সহিত মিষ্টালাপ করিতেছেন। বেলা দশটা। হীরানন্দ আবার কাল আসিবেন। আজ বুধবার, ৯ই বৈশাখ, চৈত্র কৃষ্ণা তৃতীয়া। ২১শে এপ্রিল, ১৮৮৬। নরেন্দ্র উদ্যানপথে বেড়াইতে বেড়াইতে মণির সহিত কথা কহিতেছেন। বাটিতে মা ও ভাইদের […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব ঊনপঞ্চাশৎ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : ঊনপঞ্চাশৎ অধ্যায় : সপ্তদশ পরিচ্ছেদ

১৮৮৬, ১৮ই এপ্রিল বুদ্ধদেব কি ঈশ্বরের অস্তিত্ব মানতেন? নরেন্দ্রকে শিক্ষা বেলা নয়টা হইয়াছে, ঠাকুর মাস্টারের সহিত কথা কহিতেছেন, ঘরে শশীও আছেন। শ্রীরামকৃষ্ণ (মাস্টারের প্রতি) – নরেন্দ্র আর শশী কি বলছিল – কি বিচার করছিল? মাস্টার (শশীর প্রতি) – কি কথা হচ্ছিল গা? শশী – নিরঞ্জন বুঝি বলেছে? শ্রীরামকৃষ্ণ – ‘ঈশ্বর নাস্তি অস্তি’, এই সব কি […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব ঊনপঞ্চাশৎ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : ঊনপঞ্চাশৎ অধ্যায় : ষোড়শ পরিচ্ছেদ

১৮৮৬, ১৭ই – ১৮ই এপ্রিল কাশীপুর উদ্যানে নরেন্দ্র প্রভৃতি ভক্তসঙ্গে শ্রীরামকৃষ্ণ কাশীপুর বাগানে ভক্তসঙ্গে বাস করিতেছেন। শরীর খুব অসুস্থ – কিন্তু ভক্তদের মঙ্গলের জন্য সর্বদাই ব্যাকুল। আজ শনিবার, ৫ই বৈশাখ, চৈত্র শুক্লা চতুর্দশী (১৭ই এপ্রিল, ১৮৮৬)। পূর্ণিমাও পড়িয়াছে। কয়দিন ধরিয়া প্রায় প্রত্যহ নরেন্দ্র দক্ষিণেশ্বরে যাইতেছেন – পঞ্চবটীতে ঈশ্বরচিন্তা করেন – সাধনা করেন। আজ সন্ধ্যার সময় […]

বিস্তারিত পড়ুন
error: Content is protected !!