ভবঘুরে কথা

একচত্বারিংশ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব একচত্বারিংশ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : একচত্বারিংশ অধ্যায় : সপ্তম পরিচ্ছেদ

১৮৮৫, ১২ই এপ্রিল ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণ ও অবতারতত্ত্ব একজন ভক্ত (ত্রৈলোক্যের প্রতি) – আপনার বইয়েতে দেখলাম আপনি অবতার মানেন না। চৈতন্যদেবের কথায় দেখলাম। ত্রৈললোক্য – তিনি নিজেই প্রতিবাদ করেছেন, – পুরীতে যখন অদ্বৈত ও অন্যান্য ভক্তেরা ‘তিনিই ভগবান’ এই বলে গান করেছিলেন, গান শুনে চৈতন্যদেব ঘরের দরজা বন্ধ করে দিয়েছিলেন। ঈশ্বরের অনন্ত ঐশ্বর্য। ইনি যেমন বলেন […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব একচত্বারিংশ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : একচত্বারিংশ অধ্যায় : ষষ্ঠ পরিচ্ছেদ

১৮৮৫, ১২ই এপ্রিল শ্রীরামকৃষ্ণ ও বিদ্যার সংসার – ঈশ্বরলাভের পর সংসার সন্ধ্যা হইল। বলরামের বৈঠকখানায় ও বারান্দায় আলো জ্বালা হইল। ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণ জগতের মাতাকে প্রণাম করিয়া, করে মূলমন্ত্র জপ করিয়া মধুর নাম করিতেছেন। ভক্তেরা চারিপার্শ্বে বসিয়া আছেন ও সেই মধুর নাম শুনিতেছেন। গিরিশ, মাস্টার, বলরাম, ত্রৈলোক্য ও অন্যান্য অনেক ভক্তরা এখনও আছেন। কেশবচরিত গ্রন্থে ঠাকুরের […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব একচত্বারিংশ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : একচত্বারিংশ অধ্যায় : পঞ্চম পরিচ্ছেদ

১৮৮৫, ১২ই এপ্রিল সংকীর্তনানন্দে ভক্তসঙ্গে গিরিশ বাড়ি চলিয়া গেলেন। আবার আসিবেন। শ্রীযুক্ত জয়গোপাল সেনের সহিত ত্রৈলোক্য আসিয়া উপস্থিত। তাঁহারা ঠাকুরকে প্রনাম করিলেন ও আসন গ্রহণ করিলেন। ঠাকুর তাঁহাদের কুশল প্রশ্ন করিতেছেন। ছোট নরেন আসিয়া ঠাকুরকে ভূমিষ্ঠ হইয়া প্রণাম করিলেন। ঠাকুর বলিলেন, – কই তুই শনিবারে এলিনি? এইবার ত্রৈলোক্য গান গাইবেন। শ্রীরামকৃষ্ণ – আহা, তুমি আনন্দময়ীর […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব একচত্বারিংশ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : একচত্বারিংশ অধ্যায় : চতুর্থ পরিচ্ছেদ

১৮৮৫, ১২ই এপ্রিল কামিনী-কাঞ্চন ও তীব্র বৈরাগ্য একজন ভক্ত – আপনার এ-সব ভাব নজিরের জন্য, তাহলে আমাদের কি করতে হবে? শ্রীরামকৃষ্ণ – ভগবানলাভ করতে হলে তীব্র বৈরাগ্য দরকার। যা ঈশ্বরের পথে বিরুদ্ধ বলে বোধ হবে তৎক্ষণাৎ ত্যাগ করতে হয়। পরে হবে বলে ফেলে রাখা উচিত নয়। কামিনী-কাঞ্চন ঈশ্বরের পথে বিরোধী; ও-থেকে মন সরিয়ে নিতে হবে। […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব একচত্বারিংশ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : একচত্বারিংশ অধ্যায় : তৃতীয় পরিচ্ছেদ

১৮৮৫, ১২ই এপ্রিল সত্যকথা কলির তপস্যা – ঈশ্বরকোটি ও জীবকোটি একজন ভক্ত – মহাশয়, নব-হুল্লোল বলে এক মত বেরিয়েছে। শ্রীযুক্ত ললিত চাটুজ্যে তার ভিতর আছেন। শ্রীরামকৃষ্ণ – নানা মত আছে। মত পথ। কিন্তু সব্বাই মনে করে, আমার মতই ঠিক – আমার ঘড়ি ঠিক চলছে। গিরিশ (মাস্টারের প্রতি) – পোপ কি বলেন? It is with our […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব একচত্বারিংশ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : একচত্বারিংশ অধ্যায় : দ্বিতীয় পরিচ্ছেদ

১৮৮৫, ১২ই এপ্রিল পূর্বকথা – শ্রীরামকৃষ্ণের মহাভাব – ব্রাহ্মণীর সেবা গিরিশ, মাস্টার প্রভৃতিকে সম্বোধন করিয়া ঠাকুর নিজের মহাভাবের অবস্থা বর্ণনা করিতেছেন। শ্রীরামকৃষ্ণ (ভক্তদের প্রতি) – সে অবস্থার পরে আনন্দও যেমন, আগে যন্ত্রণাও তেমনি। মহাভাব ঈশ্বরের ভাব – এই দেহ-মনকে তোলপাড় করে দেয়! যেন একটা বড় হাতি কুঁড়ে ঘরে ঢুকেছে। ঘর তোলপাড়! হয়তো ভেঙেচুড়ে যায়! “ঈশ্বরের […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব একচত্বারিংশ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ কথামৃত : একচত্বারিংশ অধ্যায় : প্রথম পরিচ্ছেদ

ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণ বলরাম-মন্দিরে ভক্তসঙ্গে ১৮৮৫, ১২ই এপ্রিল’ ঠাকুরের নিজ মুখে কথিত সাধনা বিবরণ ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণ কলিকাতায় শ্রীযুক্ত বলরামের বৈঠকখানায় ভক্তসঙ্গে বসিয়া আছেন। গিরিশ, মাস্টার, বলরাম – ক্রমে ছোট নরেন, পল্টু, দ্বিজ, পূর্ণ, মহেন্দ্র মুখুজ্জে ইত্যাদি – অনেক ভক্ত উপস্থিত আছেন। ক্রমে ব্রাহ্মসমাজের শ্রীযুক্ত ত্রৈলোক্য সান্যাল, জয়গোপাল সেন প্রভৃতি অনেক ভক্ত আসিলেন। মেয়ে ভক্তেরা অনেকেই আসিয়াছেন। […]

বিস্তারিত পড়ুন
error: Content is protected !!