ভবঘুরে কথা

চতুঃচত্বারিংশ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব কথা

রামকৃষ্ণ কথামৃত : চতুঃচত্বারিংশ অধ্যায় : চতুর্থ পরিচ্ছেদ

১৮৮৫, ১৩ই জুন অহংকারই বিনাশের কারণ ও ঈশ্বরলাভের বিঘ্ন সকলে বসিয়া আছেন। কাপ্তেন ও ভক্তদের সহিত ঠাকুর কথা কহিতেছেন। এমন সময় ব্রাহ্মসমাজের জয়গোপাল সেন ও ত্রৈলোক্য আসিয়া প্রণাম করিয়া আসন গ্রহণ করিলেন। ঠাকুর সহাস্যে ত্রৈলোক্যের দিকে তাকাইয়া কথা কহিতেছেন। শ্রীরামকৃষ্ণ – অহংকার আছে বলে ঈশ্বরদর্শন হয় না। ঈশ্বরের বাড়ির দরজার সামনে এই অহংকাররূপ গাছের গুঁড়ি […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব কথা

রামকৃষ্ণ কথামৃত : চতুঃচত্বারিংশ অধ্যায় : তৃতীয় পরিচ্ছেদ

১৮৮৫, ১৩ই জুন কাপ্তেন ছেলেদের সঙ্গে করিয়া আসিয়াছেন ঠাকুর কিশোরীকে বলিলেন, “এদের সব দেখিয়ে এস তো, – ঠাকুরবাড়ি!” ঠাকুর কাপ্তেনের সহিত কথা কহিতেছেন। মাস্টার, দ্বিজ ইত্যাদি ভক্তেরা মেঝেতে বসিয়া আছেন। দমদমার মাস্টারও আসিয়াছেন। ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণ ছোট খাটটিতে উত্তরাস্য হইয়া বসিয়া আছেন। তিনি কাপ্তেনকে ছোট খাটটির এক পার্শ্বে তাঁহার সম্মুখে বসিতে বলিলেন। [পাকা-আমি বা দাস-আমি ] […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব কথা

রামকৃষ্ণ কথামৃত : চতুঃচত্বারিংশ অধ্যায় : দ্বিতীয় পরিচ্ছেদ

১৮৮৫, ১৩ই জুন শ্রীরামকৃষ্ণ ও শ্রীরাধিকাতত্ত্ব – জন্মমৃত্যুতত্ত্ব পণ্ডিতজী বসিয়া আছেন, তিনি উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের লোক। শ্রীরামকৃষ্ণ (সহাস্যে, মাস্টারের প্রতি) – খুব ভাগবতের পণ্ডিত। মাস্টার ও ভক্তেরা পণ্ডিতজীকে একদৃষ্টে দেখিতেছেন। শ্রীরামকৃষ্ণ (পণ্ডিতের প্রতি) – আচ্ছা জী! যোগমায়া কি? পণ্ডিতজী যোগমায়ার একরকম ব্যাখ্যা করিলেন। শ্রীরামকৃষ্ণ – রাধিকাকে কেন যোগমায়া বলে না? পণ্ডিতজী এই প্রশণের উত্তর একরকম দিলেন। তখন […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব কথা

রামকৃষ্ণ কথামৃত : চতুঃচত্বারিংশ অধ্যায় : প্রথম পরিচ্ছেদ

শ্রীরামকৃষ্ণ কাপ্তেন, নরেন্দ্র প্রভৃতি ভক্তসঙ্গে দক্ষিণেশ্বরে ১৮৮৫, ১৩ই জুন ঠাকুরের গলার অসুখের সূত্রপাত শ্রীরামকৃষ্ণ দক্ষিণেশ্বরে কালীমন্দিরে সেই পূর্বপরিচিত ঘরে বিশ্রাম করিতেছেন। আজ শনিবার, ১৩ই জুন, ১৮৮৫, (৩২শে জৈষ্ঠ, ১২৯২) জৈষ্ঠ শুক্লা প্রতিপদ, জ্যৈষ্ঠ মাসের সংক্রান্তি। বেলা তিনটা। ঠাকুর খাওয়া-দাওয়ার পর ছোট খাটটিতে একটু বিশ্রাম করিতেছেন। পণ্ডিতজী মেঝের উপর মাদুরে বসিয়া আছেন। একটি শোকাতুরা ব্রাহ্মণী ঘরের […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব কথা

রামকৃষ্ণ কথামৃত : চতুঃচত্বারিংশ অধ্যায় : প্রথম পরিচ্ছেদ

শ্রীরামকৃষ্ণ ভক্তসঙ্গে ভক্তমন্দিরে – রামের বাড়িতে ১৮৮৫, ২৩শে মে ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণ রামের বাটীতে আসিয়াছেন। তাহার নিচের বৈঠকখানার ঘরে ঠাকুর ভক্ত পরিবৃত হইয়া বসিয়া আছেন। সহাস্যবদন। ঠাকুর ভক্তদের সহিত আনন্দে কথা কহিতেছেন। আজ শনিবার (১১ই জ্যৈষ্ঠ, ১২৯২), জ্যৈষ্ঠ শুক্লাদশমী তিথি। ২৩শে মে, ১৮৮৫, বেলা প্রায় ৫টা। ঠাকুরের সম্মুখে শ্রীযুক্ত মহিমা বসিয়া আছেন। বামপার্শ্বে মাস্টার, চারিপার্শ্বে – […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব কথা

রামকৃষ্ণ কথামৃত : চতুঃচত্বারিংশ অধ্যায় : চতুর্থ পরিচ্ছেদ

১৮৮৫, ৯ই মে শ্রীরামকৃষ্ণের ভক্তদিগকে আশ্বাস প্রদান ও অঙ্গীকার অনেকক্ষণ সন্ধ্যা হইয়া গিয়াছে। বলরামের বৈঠকখানায় দীপালোক জ্বলিতেছে। ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণ এখনও ভাবস্থ, ভক্তজন পরিবৃত হইয়া আছেন। ভাবে বলিতেছেন – “এখানে আর কেউ নাই, তাই তোমাদের বলছি, – আন্তরিক ঈশ্বরকে যে জানতে চাইবে তারই হবে, হবেই হবে! যে ব্যকুল, ঈশ্বর বই আর কিছু চায় না, তারই হবে। […]

বিস্তারিত পড়ুন
error: Content is protected !!