ভবঘুরে কথা

দ্বিচত্বারিংশ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব কথা

রামকৃষ্ণ কথামৃত : দ্বিচত্বারিংশ অধ্যায় : সপ্তম পরিচ্ছেদ

১৮৮৫, ২৪শে এপ্রিল সমাধিস্থ কি ফেরে? শ্রীমুখ-কথিত চরিতামৃত – কুয়ার সিং১ মহিমাচরণ (শ্রীরামকৃষ্ণের প্রতি) – মহাশয়, সমাধিস্থ কি ফিরতে পারে? শ্রীরামকৃষ্ণ (মহিমার প্রতি একান্তে) – তোমায় একলা একলা বলব; তুমিই একথা শোনবার উপযুক্ত। “কুয়ার সিং ওই কথা জিজ্ঞাসা করত। জীব আর ঈশ্বর অনেক তফাত। সাধন-ভজন করে সমাধি পর্যন্ত জীবের হতে পারে। ঈশ্বর যখন অবতীর্ণ হন, […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব কথা

রামকৃষ্ণ কথামৃত : দ্বিচত্বারিংশ অধ্যায় : ষষ্ঠ পরিচ্ছেদ

১৮৮৫, ২৪শে এপ্রিল ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণ ও গোপীপ্রেম গিরিশ (শ্রীরামকৃষ্ণের প্রতি) – মহাশয়, একাঙ্গী প্রেম কাকে বলে? শ্রীরামকৃষ্ণ – একাঙ্গী, কিনা, ভালবাসা একদিক থেকে। যেমন জল হাঁসকে চাচ্চে না, কিন্তু হাঁস জলকে ভালবাসে। আবার আছে সাধারণী, সমঞ্জসা, সমর্থা। সাধারণী প্রেম – নিজের সুখ চায়, তুমি সুখী হও আর না হও, যেমন চন্দ্রাবলীর ভাব। আবার সমঞ্জসা, আমারও […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব কথা

রামকৃষ্ণ কথামৃত : দ্বিচত্বারিংশ অধ্যায় : পঞ্চম পরিচ্ছেদ

১৮৮৫, ২৪শে এপ্রিল শ্রীরামকৃষ্ণ ও নরেন্দ্র – হাজরার কথা – ছলরূপী নারায়ণ ঠাকুর, ভাব উপশমের পর ভক্তসঙ্গে কথা কহিতেছেন। নরেন্দ্র (শ্রীরামকৃষ্ণের প্রতি) – হাজরা এখন ভাল হয়েছে। শ্রীরামকৃষ্ণ – তুই জানিস নি, এমন লোক আছে, বগলে ইট, মুখে রাম রাম বলে। নরেন্দ্র – আজ্ঞা না, সব জিজ্ঞাসা করলুম, তা সে বলে, ‘না’। শ্রীরামকৃষ্ণ – তার […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব কথা

রামকৃষ্ণ কথামৃত : দ্বিচত্বারিংশ অধ্যায় : চতুর্থ পরিচ্ছেদ

১৮৮৫, ২৪শে এপ্রিল ঠাকুর কীর্তনানন্দে কীর্তনিয়া দলবলের সহিত উপস্থিত। ঘরের মাঝখানে বসিয়া আছে। ঠাকুরের ইঙ্গিত হইলেই কীর্তন আরম্ভ হয়। ঠাকুর অনুমতি দিলেন। রাম (শ্রীরামকৃষ্ণের প্রতি) – আপনি বলুন এরা কি গাইবে? শ্রীরামকৃষ্ণ – আমি কি বলব? – (একটু চিন্তা করিয়া) আচ্ছা, অনুরাগ। কীর্তনিয়া পূর্বরাগ গাইতেছেন: আরে মোর গোরা দ্বিজমণি। রাধা রাধা বলি কান্দে, লোটায় ধরণী।। […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব কথা

রামকৃষ্ণ কথামৃত : দ্বিচত্বারিংশ অধ্যায় : তৃতীয় পরিচ্ছেদ

১৮৮৫, ২৪শে এপ্রিল অবতার ও সিদ্ধ-পুরুষের প্রভেদ – মহিমা ও গিরিশের বিচার ভক্তসঙ্গে ঠাকুর গিরিরশের বাহিরের ঘরে প্রবেশ করিলেন। গিরিশ অনেকগুলি ভক্তকে নিমন্ত্রণ করিয়াছিলেন। তাঁহারা অনেকেই সমবেত হইয়াছেন। ঠাকুর আসিয়াছেন শুনিয়া সকলে দণ্ডায়মান হইয়া রহিলেন। ঠাকুর সহাস্যবদনে আসন গ্রহণ করিলেন। ভক্তেরাও সকলে বসিলেন। গিরিশ, মহিমাচরণ, রাম, ভবনাথ ইত্যাদি অনেক ভক্ত বসিয়াছিলেন। এ ছাড়া ঠাকুরের সঙ্গে […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব কথা

রামকৃষ্ণ কথামৃত : দ্বিচত্বারিংশ অধ্যায় : দ্বিতীয় পরিচ্ছেদ

১৮৮৫, ২৪শে এপ্রিল শ্রীযুক্ত বলরামের বাটীতে অন্তরঙ্গসঙ্গে চারটের ওর স্কুলের ছুটি হইল, মাস্টার বলরামবাবুর বাহিরের ঘরে আসিয়া দেখেন, ঠাকুর সহাস্যবদন, বসিয়া আছেন। সংবাদ পাইয়া একে একে ভক্তগণ আসিয়া জুটিতেছেন। ছোট নরেন ও রাম আসিয়াছেন। নরেন্দ্র আসিয়াছেন। মাস্টার প্রণাম করিয়া আসন গ্রহণ করিলেন। বাটীর ভিতর হইতে বলরাম থালায় করিয়া ঠাকুরের জন্য মোহনভোগ পাঠাইয়াছেন, কেন না, ঠাকুরের […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব কথা

রামকৃষ্ণ কথামৃত : দ্বিচত্বারিংশ অধ্যায় : প্রথম পরিচ্ছেদ

শ্রীরামকৃষ্ণের কলিকাতায় ভক্তমন্দিরে আগমন – শ্রীযুক্ত গিরিশ ঘোষের বাটীতে উৎসব ১৮৮৫, ২৪শে এপ্রিল ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণ বলরামের বাটীতে অন্তরঙ্গসঙ্গে [নরেন্দ্র, মাস্টার, যোগীন, বাবুরাম, রাম, ভবনাথ, বলরাম, চুনি ] শুক্রবার (১২ই বৈশাখ, ১২৯২) বৈশাখের শুক্লা দশমী, ২৪শে এপ্রিল, ১৮৮৫ খ্রীষ্টাব্দ। ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণ আজ কলিকাতায় আসিয়াছেন। মাস্টার আন্দাজ বেলা একটার সময় বলরামের বৈঠকখানায় গিয়া দেখেন, ঠাকুর নিদ্রিত। দু-একটি […]

বিস্তারিত পড়ুন
error: Content is protected !!