ভবঘুরে কথা

পঞ্চচত্বারিংশ অধ্যায়

রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব কথা

রামকৃষ্ণ কথামৃত : পঞ্চচত্বারিংশ অধ্যায় : নবম পরিচ্ছেদ

১৮৮৫, ১৫ই জুলাই শ্রীরামকৃষ্ণের কুষ্ঠি – পূর্বকথা – ঠাকুরের ঈশ্বরদর্শন [রাম, লক্ষ্মণ ও পার্থসারথি-দর্শন – ন্যাংটা পরমহংসমূর্তি ] ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণ ভক্তসঙ্গে সেই ছোট ঘরে কথা কহিতেছেন। মহেন্দ্র মুখুজ্জে, বলরাম, তুলসী, হরিপদ, গিরিশ প্রভৃতি ভক্তেরা বসিয়া আছেন। গিরিশ ঠাকুরের কৃপা পাইয়া সাত-আট মাস যাতায়াত করিতেছেন। মাস্টার ইতিমধ্যে গঙ্গাস্নান করিয়া ফিরিয়াছেন ও ঠাকুরকে প্রণাম করিয়া তাঁহার কাছে […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব কথা

রামকৃষ্ণ কথামৃত : পঞ্চচত্বারিংশ অধ্যায় : অষ্টম পরিচ্ছেদ

১৮৮৫, ১৫ই জুলাই ভক্তিযোগের গূঢ় রহস্য – জ্ঞান ও ভক্তির সমন্বয় [মুখুজ্জে, হরিবাবু, পূর্ণ, নিরঞ্জন, মাস্টার, বলরাম ] মুখুজ্জে – হরি (বাগবাজারের হরিবাবু) আপনার কালকের কথা শুনে অবাক্‌! বলে, ‘সাংখ্যদর্শনে, পাতঞ্জলে, বেদান্তে – ও-সব কথা আছে। ইনি সামান্য নন।’ শ্রীরামকৃষ্ণ – কই, আমি সাংখ্য, বেদান্ত পড়ি নাই। “পূর্ণজ্ঞান আর পূর্ণভক্তি একই। ‘নেতি’ ‘নেতি’ করে বিচারের […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব কথা

রামকৃষ্ণ কথামৃত : পঞ্চচত্বারিংশ অধ্যায় : সপ্তম পরিচ্ছেদ

১৮৮৫, ১৫ই জুলাই সুপ্রভাত ও ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণ – মধুর নৃত্য ও নামকীর্তন শ্রীরামকৃষ্ণ বৈঠকখানার পশ্চিমদিকের ছোট ঘরে শয্যায় শয়ন করিয়া আছেন। রাত ৪টা। ঘরের দক্ষিণে বারান্দা, তাহাতে একখানি টুল পাতা আছে। তাহার উপর মাস্টার বসিয়া আছেন। কিয়ৎক্ষণ পরেই ঠাকুর বারান্দায় আসিলেন। মাস্টার ভূমিষ্ঠ হইয়া প্রণাম করিলেন। সংক্রান্তি, বুধবার, ৩২শে আষাঢ়; ১৫ই জুলাই, ১৮৮৫। শ্রীরামকৃষ্ণ – […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব কথা

রামকৃষ্ণ কথামৃত : পঞ্চচত্বারিংশ অধ্যায় : ষষ্ঠ পরিচ্ছেদ

১৮৮৫, ১৪ই জুলাই নরেন্দ্রের গান – ঠাকুরের ভাবাবেশে নৃত্য রথাগ্রে কীর্তন ও নৃত্যের পর ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণ ঘরে আসিয়া বসিয়াছেন। মণি প্রভৃতি ভক্তেরা তাঁহার পদসেবা করিতেছেন। নরেন্দ্র ভাবে পূর্ণ হইয়া তানপুরা লইয়া আবার গান গাহিতেছেন: (১) এসো মা এসো মা, ও হৃদয়-রমা, পরাণ-পুতলী গো, হৃদয়-আসনে, হও মা আসীন, নিরখি তোমারে গো। (২) মা ত্বং হি তারা, […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব কথা

রামকৃষ্ণ কথামৃত : পঞ্চচত্বারিংশ অধ্যায় : পঞ্চম পরিচ্ছেদ

১৮৮৫, ১৪ই জুলাই বলরামের রথযাত্রা – নরেন্দ্রাদি ভক্তসঙ্গে সংকীর্তনানন্দে বেলা ১টা হইয়াছে। ঠাকুর আহারান্তে আবার বৈঠকখানা গরে আসিয়া ভক্তসঙ্গে বসিয়া আছেন। একটি ভক্ত পূর্ণকে ডাকিয়া আনিয়াছেন। ঠাকুর মহানন্দে মাস্টারকে বলিতেছেন, “এই গো! পূর্ণ এসেছে।” নরেন্দ্র, ছোট নরেন, নারাণ, হরিপদ ও অন্যান্য ভক্তেরা কাছে বসিয়া আছেন ও ঠাকুরের সহিত কথা কহিতেছেন। [স্বাধীন ইচ্ছা (ফ্রি উইল) ও […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব কথা

রামকৃষ্ণ কথামৃত : পঞ্চচত্বারিংশ অধ্যায় : চতুর্থ পরিচ্ছেদ

১৮৮৫, ১৪ই জুলাই পূর্বকথা – ৺কাশীধামে শিব ও সোনার অন্নপূর্ণাদর্শন -অদ্য ব্রহ্মাণ্ডকে শালগ্রাম রূপে দর্শন বেলা দশটা বাজিয়াছে। ঠাকুর ভক্তসঙ্গে কথা কহিতেছেন। মাস্টার গঙ্গাস্নান করিয়া আসিয়া ঠাকুরকে প্রণাম করিলেন ও কাছে বসিলেন। ঠাকুর ভাবে পূর্ণ হইয়া কত কথাই বলিতেছেন। মাঝে মাঝে অতি গুহ্য দর্শনকথা একটু একটু বলিতেছেন। শ্রীরামকৃষ্ণ – সেজোবাবুর সঙ্গে যখন কাশী গিয়েছিলাম, মণিকর্ণিকার […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব কথা

রামকৃষ্ণ কথামৃত : পঞ্চচত্বারিংশ অধ্যায় : তৃতীয় পরিচ্ছেদ

১৮৮৫, ১৪ই জুলাই শ্রীশ্রীরথযাত্রা দিবসে বলরাম-মন্দিরে ভক্তসঙ্গে আজ শ্রীশ্রীরথযাত্রা। মঙ্গলবার (৩১শে আষাঢ়, ১২৯২, শুক্লা দ্বিতীয়া, ১৪ই জুলাই, ১৮৮৫)। অতি প্রতূষ্যে ঠাকুর উঠিয়া একাকী নৃত্য করিতেছেন ও মধুর কণ্ঠে নাম করিতেছেন। মাস্টার আসিয়া প্রণাম করিলেন। ক্রমে ভক্তেরা আসিয়া প্রণাম করিয়া ঠাকুরের কাছে উপবিষ্ট হইলেন। ঠাকুর পূর্ণর জন্য বড় ব্যাকুল। মাস্টারকে দেখিয়া তাঁরই কথা কহিতেছেন। শ্রীরামকৃষ্ণ – […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব কথা

রামকৃষ্ণ কথামৃত : পঞ্চচত্বারিংশ অধ্যায় : দ্বিতীয় পরিচ্ছেদ

১৮৮৫, ১৩ই জুলাই কামিনী-কাঞ্চনত্যাগ ও পূর্ণাদি [বিনোদ, দ্বিজ, তারক, মোহিত, তেজচন্দ্র, নারাণ, বলরাম, অতুল ] শ্রীরামকৃষ্ণ (মাস্টারের প্রতি) – আচ্ছা, লোকের তিল তিল করে ত্যাগ হয়, এদের কি অবস্থা। “বিনোদ বললে, ‘স্ত্রীর সঙ্গে শুতে হয়, বড়ি মন খারাপ হয়।’ “দেখো, সঙ্গ হউক আর নাই হউক, একসঙ্গে শোয়াও খারাপ। গায়ের ঘর্ষণ, গায়ের গরম! “দ্বিজর কি অবস্থা! […]

বিস্তারিত পড়ুন
রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব কথা

রামকৃষ্ণ কথামৃত : পঞ্চচত্বারিংশ অধ্যায় : প্রথম পরিচ্ছেদ

শ্রীশ্রীরথযাত্রা বলরাম-মন্দিরে ১৮৮৫, ১৩ই জুলাই পূর্ণ, ছোট নরেন, গোপালের মা শ্রীরামকৃষ্ণ বলরামের বাড়ির বৈঠকখানায় ভক্তসঙ্গে বসিয়া আছেন। (৩০শে আষাঢ়, ১২৯২) আষাঢ় শুক্লা প্রতিপদ, সোমবার, ১৩ই জুলাই, ১৮৮৫, বেলা ৯টা। কল্য শ্রীশ্রীরথযাত্রা। রথে বলরাম ঠাকুরকে নিমন্ত্রণ করিয়া আনিয়াছেন। বাড়িতে শ্রীশ্রীজগন্নাথ-বিগ্রহের নিত্য সেবা হয়। একখানি ছোট রথও আছে, – রথের দিন রথ বাহিরের বারান্দায় টানা হইবে। ঠাকুর […]

বিস্তারিত পড়ুন
error: Content is protected !!