ভবঘুরে কথা

ষষ্ঠ খণ্ড

স্বামী বিবেকানন্দ কথা

ষষ্ঠ খণ্ড : পত্রাবলী : পত্রাবলী

পত্রাবলী ১ [শ্রীযুক্ত প্রমদাদাস মিত্রকে লিখিত] বৃন্দাবন ১২ অগষ্ট, ১৮৮৮ মান্যবরেষু, শ্রীঅযোধ্যা হইয়া শ্রীবৃন্দাবনধামে পৌঁছিয়াছি। কালাবাবুর কুঞ্জে আছি-শহরে মন কুঞ্চিত হইয়া আছে। শুনিয়াছি রাধাকুণ্ডাদি স্থান মনোরম। তাহা শহর হইতে কিঞ্চিৎ দূরে। শীঘ্রই হরিদ্বার যাইব, বাসনা আছে। হরিদ্বারে আপনার আলাপী কেহ যদি থাকেন, কৃপা করিয়া তাঁহার উপর এক পত্র দেন, তাহা হইলে বিশেষ অনুগ্রহ করা হয়। […]

বিস্তারিত পড়ুন
স্বামী বিবেকানন্দ কথা

ষষ্ঠ খণ্ড : বীরবাণী (কবিতা) : সাগর-বক্ষে

সাগর-বক্ষে নীলাকাশে ভাসে মেঘকুল, শ্বেত কৃষ্ণ বিবিধ বরণ- তাহে তারতম্য তারল্যের পীত ভানু মাঙ্গিছে বিদায়। রাগচ্ছটা জলদ দেখায়। বহে বায়ু আপনার মনে, প্রভঞ্জন করিছে গঠন- ক্ষণে গড়ে, ভাঙ্গে আর ক্ষণে- কতমত সত্য অসম্ভব- জড়, জীব, বর্ণ, রূপ, ভাব। ঐ আসে তূলারাশি সম, পরক্ষণে হের মহানাগ, দেখ সিংহ বিকাশে বিক্রম, আর দেখ প্রণয়িযুগল; শেষে সব আকাশে […]

বিস্তারিত পড়ুন
স্বামী বিবেকানন্দ কথা

ষষ্ঠ খণ্ড : বীরবাণী (কবিতা) : গাই গীত শুনাতে তোমায়

গাই গীত শুনাতে তোমায় গাই গীত শুনাতে তোমায়, ভাল মন্দ নাহি গণি, নাহি গণি লোকনিন্দা যশকথা। দাস তোমা দোঁহাকার, সশক্তিক নমি তব পদে। আছ তুমি পিছে দাঁড়াইয়ে, তাই ফিরে দেখি তব হাসিমুখ। ফিরে ফিরে গাই, কারে না ডরাই, জন্মমৃত্যু মোর পদতলে। দাস তব জনমে জনমে দয়ানিধে! তব গতি নাহি জানি, মম গতি—তাহাও না জানি। কেবা […]

বিস্তারিত পড়ুন
স্বামী বিবেকানন্দ কথা

ষষ্ঠ খণ্ড : বীরবাণী (কবিতা) : নাচুক তাহাতে শ্যামা

নাচুক তাহাতে শ্যামা ফুল্ল ফুল সৌরভে আকুল, মত্ত অলিকুল গুঞ্জরিছে আশে পাশে। শুভ্র শশী যেন হাসিরাশি, যত স্বর্গবাসী বিতরিছে ধরাবাসে॥ মৃদুমন্দ মলয়পবন, যার পরশন, স্মৃতিপট দেয় খুলে। নদী, নদ, সরসী-হিল্লোল, ভ্রমর চঞ্চল, কত বা কমল দোলে॥ ফেনময়ী ঝরে নির্ঝরিণী-তানতরঙ্গিণী-গুহা দেয় প্রতিধ্বনি। স্বরময় পতত্রিনিচয়, লুকায়ে পাতায়, শুনায় সোহাগবাণী॥ চিত্রকর, তরুণ ভাস্কর, স্বর্ণতুলিকর, ছোঁয় মাত্র ধরাপটে। বর্ণখেলা […]

বিস্তারিত পড়ুন
স্বামী বিবেকানন্দ কথা

ষষ্ঠ খণ্ড : বীরবাণী (কবিতা) : সখার প্রতি

সখার প্রতি আঁধারে আলোক-অনুভব, দুঃখে সুখ, রোগে স্বাস্থ্যভান; প্রাণ-সাক্ষী শিশুর ক্রন্দন, হেথা সুখ ইচ্ছ মতিমান্? দ্বন্দ্বযুদ্ধ চলে অনিবার, পিতা পুত্রে নাহি দেয় স্থান; ‘স্বার্থ’ ‘স্বার্থ’ সদা এই রব, হেথা কোথা শান্তির আকার? সাক্ষাৎ নরক স্বর্গময়-কেবা পারে ছাড়িতে সংসার? কর্ম-পাশ গলে বাঁধা যার-ক্রীতদাস বল কোথা যায়? যোগ-ভোগ, গার্হস্থ্য-সন্ন্যাস, জপ-তপ, ধন-উপার্জন, ব্রত ত্যাগ তপস্যা কঠোর, সব মর্ম […]

বিস্তারিত পড়ুন
স্বামী বিবেকানন্দ কথা

ষষ্ঠ খণ্ড : বীরবাণী (কবিতা) : প্রলয় বা গভীর সমাধি

প্রলয় বা গভীর সমাধি বাগেশ্রী-আড়া নাহি সূর্য, নাহি জ্যোতিঃ, নাহি শশাঙ্ক সুন্দর, ভাসে ব্যোমে ছায়াসম ছবি বিশ্ব চরাচর॥ অস্ফুট মন-আকাশে, জগতসংসার ভাসে, ওঠে ভাসে ডোবে পুনঃ অহং-স্রোতে নিরন্তর॥ ধীরে ধীরে ছায়াদল, মহালয়ে প্রবেশিল, বহে মাত্র ‘আমি’ ‘আমি’-এই ধারা অনুক্ষণ॥ সে ধারাও বদ্ধ হল, শুন্যে মিলাইল, ‘অবাঙ‍্মনসোগোচরম্’, বোঝে-প্রাণ বোঝে যার॥

বিস্তারিত পড়ুন
স্বামী বিবেকানন্দ কথা

ষষ্ঠ খণ্ড : বীরবাণী (কবিতা) : সৃষ্টি

সৃষ্টি খাম্বাজ-চৌতাল একরূপ, অ-রূপ-নাম-বরণ, অতীত-আগামী-কাল-হীন, দেশহীন, সর্বহীন, ‘নেতি নেতি’ বিরাম যথায়॥২৭ সেথা হতে বহে কারণ-ধারা ধরিয়ে বাসনা বেশ উজালা, গরজি গরজি উঠে তার বারি, ‘অহমহমিতি’ সর্বক্ষণ॥ সে অপার ইচ্ছা-সাগরমাঝে, অযুত অনন্ত তরঙ্গ রাজে, কতই রূপ, কতই শকতি, কত গতি স্থিতি, কে করে গণন॥ কোটি চন্দ্র-কোটি তপন লভিয়ে সেই সাগরে জনম, মহাঘোর রোলে ছাইল গগন, করি […]

বিস্তারিত পড়ুন
স্বামী বিবেকানন্দ কথা

ষষ্ঠ খণ্ড : বীরবাণী (কবিতা) : শিব-সঙ্গীত

শিব-সঙ্গীত (১) কর্ণাটি-একতালা তাথেইয়া তাথেইয়া নাচে ভোলা,বম্ বব বাজে গাল। ডিমি ডিমি ডিমি ডমরু বাজে, দুলিছে কপাল মাল। গরজে গঙ্গা জটামাঝে, উগরে অনল ত্রিশূল রাজে, ধক্ ধক্ ধক্ মৌলিবন্ধ জ্বলে শশাঙ্ক-ভাল। (২) তাল-সুর ফাঁকতাল হর হর হর ভূতনাথ পশুপতি। যোগেশ্বর মহাদেব শিব পিনাকপাণি॥ ঊর্ধ্ব জ্বলত জটাজাল, নাচত ব্যোমকেশ ভাল, সপ্ত ভুবন ধরত তাল, টলমল অবনী॥ […]

বিস্তারিত পড়ুন
স্বামী বিবেকানন্দ কথা

ষষ্ঠ খণ্ড : বীরবাণী (কবিতা) : শ্রীরামকৃষ্ণ-আরাত্রিক ভজন

শ্রীরামকৃষ্ণ-আরাত্রিক ভজন মিশ্র-চৌতালখণ্ডন-ভব-বন্ধন, জগ-বন্দন বন্দি তোমায়। নিরঞ্জন, নররূপধর, নির্গুণ, গুণময়॥ মোচন-অঘদূষণ ১৯ জগভূষণ, চিদ‍্‍ঘনকায়। জ্ঞানাঞ্জন-বিমল-নয়ন বীক্ষণে মোহ যায়॥ ভাস্বর ভাব-সাগর চির-উন্মাদ প্রেম-পাথার। ভক্তার্জন-যুগলচরণ, তারণ-ভব-পার॥ জৃম্ভিত-যুগ-ঈশ্বর ২০, জগদীশ্বর, যোগসহায়। নিরোধন, সমাহিত মন, নিরখি তব কৃপায়॥ ভঞ্জন-দুঃখগঞ্জন ২১ করুণাঘন, কর্মকঠোর২২। প্রাণার্পণ-জগত-তারণ, কৃন্তন-কলিডোর২৩॥ বঞ্চন-কামকাঞ্চন, অতিনিন্দিত-ইন্দ্রিয়-রাগ। ত্যাগীশ্বর, হে নরবর, দেহ পদে অনুরাগ॥ নির্ভয়, গতসংশয়, দৃঢ়নিশ্চয়মানসবান্ । নিষ্কারণ-ভকত-শরণ, ত্যজি জাতিকুলমান২৪॥ […]

বিস্তারিত পড়ুন
স্বামী বিবেকানন্দ কথা

ষষ্ঠ খণ্ড : বীরবাণী (কবিতা) : অম্বা-স্তোত্রম্

অম্বা-স্তোত্রম্ কা ত্বং শুভে শিবকরে সুখদুঃখহস্তে আঘূর্ণিতং ভবজলং প্রবলোর্মিভঙ্গৈঃ। শান্তিং বিধাতুমিহ কিং বহুধা বিভগ্নাং মাতঃ প্রযত্নপরমাসি সদৈব বিশ্বে॥ ১ হে কল্যাণকারিণী মাতঃ, তোমার দুই হাতে সুখ ও দুঃখ। কে তুমি? সংসাররূপ জল প্রবল তরঙ্গসমূহ দ্বারা ঘূর্ণায়মান হইতেছে। তুমি কি সর্বদাই নানাপ্রকারে ভগ্ন শান্তিতে জগতে প্রতিষ্ঠিত করিবার জন্য যত্নপর হইতেছ? ১ সম্পাদয়ন্ত্যবিরতং ত্ববিরামবৃত্তা যা বৈ স্থিতা […]

বিস্তারিত পড়ুন
error: Content is protected !!