ভবঘুরে কথা

গুরুচাঁদ চরিত

মতুয়া সংগীত গান

কানাই ঠাকুর নামে

অপার্থিব প্রেমাবদ্ধ দম্পতীর একসঙ্গে দেহত্যাগ কানাই ঠাকুর নামে তালেশ্বর গাঁয়। বাগহাট থানা মধ্যে খুলনা জিলায়।। হেমন্তকুমারী নামে সাধ্বী পত্নী তার। অপার্থিব প্রেমে বদ্ধ এই নারী নর।। শ্রীগুরুচাঁদের পদে দৃঢ় নিষ্ঠা রাখে। পতি পত্নী সর্বদায় একসঙ্গে থাকে।। পুত্র-কন্যা-হীন দেখি প্রভু বলে তাকে। “সন্তান বলিয়া তোরা পোষ এক পাখী।।” শালিকের বাচ্চা এক রাখিল পুষিয়া। হরি বলে দিন […]

বিস্তারিত পড়ুন
মতুয়া সংগীত গান

পঞ্চাশ বছর পূর্বে

শ্রীশ্রী গুরুচাঁদের ভবিষ্যৎ বাণী পঞ্চাশ বছর পূর্বে গুরুচাঁদ কয়। ভোট দিয়ে সব কাজ হইবে নির্ণয়।। ভোটে রাজা প্রজা হবে পৃথিবী ভরিয়া। ক্রমে ক্রমে সেই বাক্য এসেছে ফলিয়া।। একদিন ডাকি বলে সে মধুসূদনে। ঘৃতকান্দিবাসী যিনি সর্ব লোকে জানে।। “শোন মধু! শোন কুঞ্জ! যাহা দেখা যায়। ‘অবতার’ যেইখানে আসি জন্ম লয়।। শহর বন্দর সেথা হয় কালে কালে। […]

বিস্তারিত পড়ুন
মতুয়া সংগীত গান

জয় জয় গুরুচাঁদ

শ্রীশ্রীগুরুচাঁদ তত্ত্বামৃত সার বন্দনা জয় জয় গুরুচাঁদ করুণা সাগর। নরাকারে ধরাপরে নিজে মহেশ্বর।। জয় মাতা সত্যভামা করুণা রূপিণী। নারী সাজে ধরা মাঝে জগত জননী।। কি লীলা করিলে দোঁহে নরে অগোচর। তারিলে তাপিত জনে প্রসারী শ্রীকর।। অমৃত মাখানো দৃষ্টি পড়েছে যেখানে। পাহাড় গলেছে মরু ডুবেছে প্লাবনে।। রাতুল চরণ রেখা পড়েছে যেথায়। বিশুষ্ক মঞ্জরী সেথা কুসুমিত হয়।। […]

বিস্তারিত পড়ুন
মতুয়া সংগীত গান

ঠাকুর যায় নাই

ঠাকুর যায় নাই দস্যুরা দেখিয়া বলে “ঠাকুর যায় নাই।” হরিবর সরকার শুনিলেন তাই।। রোগে ভোগে হরিবর মনে চিন্তা করে। আর কেন এই বার যাই তবে মরে।। প্রভুর নিকটে যবে দিল দরশন। প্রভু বলে “হরিবর! যেওনা না এখন।। আমি চলে গেলে তুমি এসে মম পরে। তোমার যে বহু কাজ রয়েছে সংসারে।।” কথা শুনি হরিবর অনেক কান্দিল। […]

বিস্তারিত পড়ুন
মতুয়া সংগীত গান

শ্রীশ্রীগুরুচাঁদ স্মৃতি সভা “সাথে করে এনেছিলে মৃত্যুহীন প্রাণ। মরণে তাহাই তুমি করে গেলে দান।।”-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ওড়াকান্দি মহাযজ্ঞ হ’ল সমাপন। কলিকাতা আসিলেন প্রমথরঞ্জন।। বঙ্গবাসী উচ্চবর্ণ হিন্দু যত রয়। প্রমথরঞ্জনে সবে ডাক দিয়া কয়।। “তব পিতামহ ছিল পুরুষ মহান। আমরা সকলে তারে করিব সম্মান।। তার মৃত্যুদিন তাই করিয়া স্মরণ। আমরা করিব সবে সভার শোভন।।” কলিকাতাবাসী যত নমঃশূদ্র […]

বিস্তারিত পড়ুন
মতুয়া সংগীত গান

তেরশ চুয়াল্লিশ সালে

শ্রীশ্রীপ্রমথরঞ্জনের রাজসূয় যজ্ঞ বা মহা বিরাট মহোৎসব তেরশ চুয়াল্লিশ সালে মাঘের প্রথমে। হইল বিরাট যজ্ঞ ওড়াকান্দি গ্রামে।। দুর্গাপূজা রাসোৎসবে আলোচনা হ’ল। মাঘে যজ্ঞ হ’বে বলি ঘোষণা করিল’।। বঙ্গদেশে যে যে খানে যত ভক্ত রয়। সকলে আনন্দ চিত্তে যজ্ঞে যোগ দেয়।। ওড়াকান্দি, ঘৃতকান্দি, মল্লকান্দি হ’তে। সহস্র সেবক আসি মেশে এক সাথে।। যজ্ঞ কর্তা সাজিলেন প্রমথরঞ্জন। এক […]

বিস্তারিত পড়ুন
মতুয়া সংগীত গান

দেহ ছাড়ি গুরুচাঁদ

বিশ্বাসে মিলায়ে হরি তর্কে বহুদূর দেহ ছাড়ি গুরুচাঁদ মুদিলা নয়ন। গৃহ হ’তে দূরে ছিল প্রমথরঞ্জন।। আইন সভার কার্যে ব্যস্ত কলিকাতা। “টেলিগ্রাম” যোগে তারে জানায় বারতা।। অতঃপর গৃহে গেল প্রমথরঞ্জন। কোনরূপ নহে তার বিষাদিত মন।। সবে কয় “প্রভু দেহ গিয়াছে ছাড়িয়া।” শুনিয়া প্রমথ তাহে উঠিল হাসিয়া।। ডেকে কয় “সত্য নয় এ সব কাহিনী। আমার ঠাকুর্দা কেবা […]

বিস্তারিত পড়ুন
মতুয়া সংগীত গান

বসন্ত আসিল নিয়ে

মহাপ্রস্থান “কোথা যাও ফিরে চাও, ওহে দিনমণি! তুমি অস্তাচলে দেব! করিলে গমন, ভারতে আসিবে পুনঃ বিষাদ-রজনী।।”-নবীন চন্দ্র সেন। বসন্ত আসিল নিয়ে ফুল রাশি রাশি। আকাশে হাসিল চন্দ্র মধুময় হাসি।। মলয় সমীরে যেন জুড়াইল প্রাণ। শাখে শাখে যত শাখী কণ্ঠে ভরা গান।। আলোকে উজল ধরা ভরা গন্ধে গন্ধে। বিশ্ববাসী মত্ত যেন মিলন আনন্দে।। রে কাল! নিষ্ঠুর […]

বিস্তারিত পড়ুন
মতুয়া সংগীত গান

ঠেকিয়া জীবের দায়

মহাপ্রস্থানের আভাষ “মন! চল যাই নিজ নিকেতনে। সংসার বিদেশে, বিদেশীর বেশে, মিছে ভ্রম অকারণে।” (স্বামী বিবেকান্নদ কর্তৃক) ঠেকিয়া জীবের দায়, নরাকারে দেখা দেয়, নরভাবে করে নর লীলা। নর সম সুখী দুঃখী, করুণ কোমল আঁখি, নর নিয়ে চলে তাঁর খেলা।। আপনার মত তারে, নরে দেখে নরাকারে, তাই তারে বুঝিতে না পারে। বোঝার ভুলের তলে, তাই প্রভু […]

বিস্তারিত পড়ুন
মতুয়া সংগীত গান

উনিশ শ’ পঁয়ত্রিশ অব্দে

শ্রীশ্রীপ্রমথ রঞ্জনের ব্যবস্থা -পরিষদে প্রবেশ উনিশ শ’ পঁয়ত্রিশ অব্দে “ভারত আইন”! “পার্লামেন্টে” পাশ করে ইংরাজ প্রবীণ।। তার পরিচয় পূর্বে হইয়াছে লেখা। তপশীলী জাতি পক্ষে সু-উজ্জ্বল রেখা।। “পূণা-চুক্তি” অনুসারে তপশীলী জাতি। অধিক আসন পেয়ে অতি হৃষ্ট মতি।। তিরিশ আসন পেল এই বঙ্গ দেশে। দখল করিয়া সব তপশীলী বসে।। তপশীলী মধ্যে যত জাতি দেখা যায়। সর্বশ্রেষ্ঠ নমশূদ্র […]

বিস্তারিত পড়ুন
error: Content is protected !!