ভবঘুরে কথা

হরির ভাব সংগীত

মতুয়া সংগীত গান

হরি জীবের জন্য

(তাল-কাওয়ালি) হরি জীবের জন্য অবতীর্ণ সফলা গ্রামে আসিয়া। তিনি অনর্পিত ধন করে বিতরণ, আপনি হরি যাচিয়া।। ১। মায়ের কড়ার শুধিবে বলে, বুদ্ধ তপস্যারি ফলে, এল নিচু হইয়া কারু জাতির গৌরব রবে নারে, যারে একচাবি হইয়া।। ২। গৌরলীলা সাঙ্গ করি, শ্রীনিবাস রূপ ধরি, গোপন লীলা করিয়া। করে শেষ লীলা ঐ ঈশান কোনে, পূর্ণ শক্তি ধরিয়া।। ৩। […]

বিস্তারিত পড়ুন
মতুয়া সংগীত গান

দীনবন্ধু গোসাইয়ের গান

দীনবন্ধু গোসাইয়ের পান্ডুলিপির কয়েকটি গান- (তাল-একতালা) যেন মম নেত্র কোনে হেরি নিশিীদিনে বসাইয়া হৃদি উত্তম আসনে। আমার কঠিন হৃদয় এসে দয়াময়, আনন্দে নাচাও এ নিরানন্দ মনে।। ১। অন্তরালে লুকি, থাক নিরঞ্জন হৃদপর্ন কুটিরে কর পদার্পণ। শ্রদ্ধা সুচন্দন, করিব অর্পন এসে বস এই, চিত্ত সিংহাসনে।। ২। ব্রহ্মান্ডের কর্ত্তা, ব্রহ্ম সনাতন, কি দিব তোমারে নাহি ভক্তি ধন। […]

বিস্তারিত পড়ুন
মতুয়া সংগীত গান

সবে পতি কর সার

(তাল-কাহারবা) সবে পতি কর সার, পতি বিনে সতী নারীর গতি নাইরে আর।। ভবে অসতী না পারে কভু পতির মনকে তুষিবার।। ১। অসতি যে করে লয় ঐ পর পতি আশ্রয়, সদাচারে মন-প্রাণ তার কখন না যায় সদা কুৎসিত বুলি কু-কর্ম্মেতে মত্ত থাকে অনিবার।। ২। ভর্ৎসনা স্বামীকে নারী করে দিবা নিশী, শ্বশুর শাশুরী হয় যেন দাস দাসী। […]

বিস্তারিত পড়ুন
মতুয়া সংগীত গান

শুন বলি কুল

(তাল–ঝাপ) শুন বলি কুল বালা গণ-সবে রক্ষা কর পতির মন, পতির রণ ভজসর্ব্বদায়। পতি না ভজিলে কোন কালে হে, ও তার মুক্তি নাই আর এ ধরায়।। ১। পতিতে বঞ্চনা কৈরে যে অন্যকে আম্রয় করে, কুম্ভিপাকে পরিয়া সে রয়। উঠলে প্রহার করেÑযম কিঙ্করে হে, দিবানিশী কীটগণ দংশে তায়।। ২। চন্দ্র সূর্য্য স্থিতি কাল রয়, সে নারী […]

বিস্তারিত পড়ুন
মতুয়া সংগীত গান

যে জন সতী

(তাল-কহরাবা) যে জন সতী নারী হয় পরিত পদে মনকে বেধে মহানন্দে রয়। যিনি সৎ কুলোদ্ভবা কন্যা তিনি পতিব্রতা হয়।। ১। অসৎ কুল জাতা কন্যা পিতৃ মাতৃ দোষে, কুলটা হইয়া তাকে সর্ব্বশাস্ত্রে ঘোষে। ওসে স্বর্গ বেশ্যা অপ্সরা গনের জন্ম তারা হয়।। ২। স্বামী যদি গুণবান তবুও কখন, করে না তাহার সেবা, গুণ দিয়া মন। করে নিন্দা […]

বিস্তারিত পড়ুন
মতুয়া সংগীত গান

দুঃখ হয় যার

(তাল-গরখেমটা) দুঃখ হয় যার কর্ম্ম ফেরে- দুঃখ হয় যার কর্ম ফেরে। ভক্তি মুক্তি তপঃস্বর্গ নিরসন তাই হয়ে যায় রে।। তিন প্রকার আছে নারী, এ ভব সংসার ভরি, সাধ্বী, ভোগ্য, কুলটা নারী, তাহারা এই তিনটি নাম ধরে। পরকালের ভয়ে কেহ, সাধ্বী নারী হয় রে ও তার পতির মনকে তুষে সদা, অতি যত্ন সহকারে।। আপনার যশ কীর্ত্তি, […]

বিস্তারিত পড়ুন
মতুয়া সংগীত গান

স্বামী হল মেয়ের

(তাল-ঝাপ) স্বামী হল মেয়ের ভগবান, পুজ বর্ত্তমান আর অনুমান, রিপুর বশে যেওনা ভুল্ রে এবার স্বামী ধর, পূজা করহে, নৈলে উদ্ধার হবা কোন বলে।। ১। স্বামীর পদে ভক্তি রেখ, সদায় বাসধানে থেক, রতি মতি দিও স্বামীর পায়। সবে স্বামীর মতে, মত রাখিও হে, নৈলে যেতে হয় রসাতলে।। ২। মাতা পিতা তুষ্ট হয়ে, বর এনে দিল […]

বিস্তারিত পড়ুন
মতুয়া সংগীত গান

মরি নিজের ব্যবহারে

(তাল-গড়খেমটা) মরি নিজের ব্যবহারে মরি নিজের ব্যবহারে। মোদের নাই একতা, ভণ্ডকথা, ব্যভিচারি ঘরে ঘরে।। ১। সাম্নে রেখে পিতা মাতা, বলে কুছার কুৎসিত কথা, শুনে লাগে প্রাণে ব্যাথা, যে বোল শুনি নাই সেই বোল ধরে। শুনে কুৎসিত গালি, কুৎসিত বুলি, লজ্জাতে যাই মরে, হায়রে দারুন বিধি, নিরবধি, এই কথা কি শুনতে পারে।। ২। খুড়ী পিসী জ্যেঠি […]

বিস্তারিত পড়ুন
মতুয়া সংগীত গান

আমি বলব কিরে

(তাল-খেমটা) আমি বলব কিরে ভাই কলির কাণ্ড দেখে শুনে দুঃখে মরে যাই। ভবে মান্য গণ্য হল শুণ্য দেখিতেছি সর্ব্ব ঠাঁই।। ১। জন্ম দাতা পিতা মাতা, আন্দ ভরে, ছেলে বিয়ে, করায় নিয়ে উৎসাহ করে। নিচ্ছে পরের কন্যে, শান্তির জন্যে শান্তি থাক হয় ঘরের বালাই।। ২। মাসেক দুমাস, শান্তিতে বাস করে বুড়া বুড়ি, তার পরে অলক্ষ্মীর ভাণ্ড, […]

বিস্তারিত পড়ুন
মতুয়া সংগীত গান

হরিচাঁদের যুগল মুরতি

(তাল-ঝাপ) হরিচাঁদের যুগল মুরতি, আমি দেখব দিবা রাতি আশা করি আকুল মনে। আমার আশায় আশায়, জনম গেল হে আশা পূর্ণ হইল না কেনে।। ১। হরি মন প্রাণ নিয়ে হরে, বসত করে নিরন্তরে, যাব আমি তার কাছে এবার। তিনি যেখানে রয়, মন চোরায় রে, সেই খানে যাব অন্বেশণে।। ২। মন প্রাণ নিয়ে বসে রল, আর না […]

বিস্তারিত পড়ুন
error: Content is protected !!