মতুয়া সংগীত

আমি বলব কিরে

(তাল-খেমটা)
আমি বলব কিরে ভাই
কলির কাণ্ড দেখে শুনে দুঃখে মরে যাই।
ভবে মান্য গণ্য হল শুণ্য দেখিতেছি সর্ব্ব ঠাঁই।।

১। জন্ম দাতা পিতা মাতা, আন্দ ভরে,
ছেলে বিয়ে, করায় নিয়ে উৎসাহ করে।
নিচ্ছে পরের কন্যে, শান্তির জন্যে
শান্তি থাক হয় ঘরের বালাই।।

২। মাসেক দুমাস, শান্তিতে বাস করে বুড়া বুড়ি,
তার পরে অলক্ষ্মীর ভাণ্ড, দোষী হয় ভারি।
তারা কথায় কাজে দোষী সাজে,
দোষ ভিন্ন যশ ভাগ্য নাই।।

৩। বধুরাণি ক্রোধে তিনি বলে বুড়ি হাঙ্গর,
ঠোঁটটা ঝুলায় বাঁদরের ন্যায়, যেন পোড়া বাদুর।
আরও স্বামীকে কয়, ঐ নির্ব্বংসিয়ায় না মরিলে শান্তি নাই।।

৪। টাকা খেয়ে দিল বিয়ে, আমার বাবা মায়,
অসুরটাকে নিয়ে আমি ঠেকেছি দায়।
বলে নিরবধি, ঝোলঅয় যদি, এটা নিলে বেঁচে যাই।।

৫। কু-বুলি আর কু-কর্ম্মেতে, ডুবল এ ভুবন,
ঘুচাও সবার, এই ব্যবহার, ওহে ভগবান।
কর বাঞ্ছা পূরণ ও গুরুধন, দীনারে দেও পদে ঠাঁই।।

………………………………..
নারী শিক্ষা
রাগিনী-লম্পট

প্রাসঙ্গিক লেখা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!