মতুয়া সংগীত

কার জন্য এ মানুষ

কার জন্য এ মানুষ হয় সন্ন্যাসী।
বাণী লক্ষ্মী সদাই যার পায় হতে চায় দাসী।।

কাঁদে কৃষ্ণ বলে সেই কৃষ্ণ যে এই মানুষ
বর্তমান মানুষের ও সেই মানুষ
এ যে ব্রহ্মার ব্রহ্মণ্যদেব, ব্রহ্মণ্য দেবের দেব
এ নয় অন্য দেব, সে যে দেবের দেব, যার জন্য শ্মশানবাসী।।

মানুষের কান্না দেখে, কাঁদে ঐ বনের পশু
তোরা ও কাঁদিস কেন কোলের শিশু
শিশুর শৈশবের কি জ্বালা, এ মানুষের জ্বালা
এত অশেষ জ্বালা, কেঁদে তোরা, আর কাঁদাসনে গো বিদেশী।।

বুঝি হৃদি রতন হারায়ে পথের কাঙ্গাল
মন পোড়ায় হয়েছে আউলা মাতাল
বুঝি সেই জ্বালায় পায় না স্থির হইয়ে ঘরের বাহির
দিতেছে জিগির, ফকির হয় বুঝি, রাধাকুণ্ড তীরবাসী।।

ও যার লক্ষ্মীদাসী, তোরা হবি তার দাসী
দাসীর জন্যেতে মানুষ উদাসী।
ও কারো নিষেধ মানে না,
ধরা দিবে না, তোরা কার জন্যে কাঁদিস (ও) কলঙ্কের রাশি।।

বলে মহানন্দ অধর ধরায় থাকে সাধ
ধরগে যা গুরুচাঁদের শীতল পদ
গোঁসাই গোলকচাঁদ জুড়ায় মন, দিয়ে কুল বিসর্জন
পেল মানুষ রতন, সে ধন না পেয়ে, তারকের মন উদাসী।।

প্রাসঙ্গিক লেখা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!