রবীন্দ্রনাথা ঠাকুর

ঘাটে বসে আছি আনমনা
যেতেছে বহিয়া সুসময়-
সে বাতাসে তরী ভাসাব না
যাহা তোমা-পানে নাহি বয় ॥

দিন যায় ওগো দিন যায়,
দিনমণি যায় অস্তে-
নিশার তিমিরে দশ দিক ঘিরে
জাগিয়া উঠিছে শত ভয় ॥

ঘরের ঠিকানা হল না গো,
মন করে তবু যাই-যাই–
ধ্রুবতারা তুমি যেথা জাগ
সে দিকের পথ চিনি নাই।
এত দিন তরী বাহিলাম
যে সুদূর পথ বাহিয়া-
শত বার তরী ডুবুডুবু করি
সে পথে ভরসা নাহি পাই ॥

তীর-সাথে হেরো শত ডোরে
বাঁধা আছে মোর তরীখান-
রশি খুলে দেবে কবে মোরে,
ভাসিতে পারিলে বাঁচে প্রাণ।
কবে অকূলের খোলা হাওয়া
দিবে সব জ্বালা জুড়ায়ে,
শুনা যাবে কবে ঘনঘোর রবে
মহাসাগরের কলগান ॥

……………………….
রাগ: গৌরী-পূরবী
তাল: একতাল
রচনাকাল (বঙ্গাব্দ): 1307
রচনাকাল (খৃষ্টাব্দ): 1901
স্বরলিপিকার: কাঙ্গালীচরণ সেন

প্রাসঙ্গিক লেখা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!