ফকির লালন

ফকির লালনের বাণী : সাধকদেশ :: তের

ফকির লালনের বাণী : সাধকদেশ 

৬০১.
স্বরূপে রূপের স্বরূপ কয়
অবোধ লালন তাই জানায়।

৬০২.
পাপধর্ম যদি পূর্বে লেখা যায়।
কর্মে লিখন কাজ করিলে দোষগুণ কী হয়।

৬০৩.
রাজার আজ্ঞায় দিয়ে ফাঁসি
ফাঁসিকার হয় গো দোষী।

৬০৪.
জীব করায় সব নরকবাসী
খোদ কি দয়াময়।

৬০৫.
শুনতে পাই সাধু সমাচার
পূর্বে থাকলে পরে হয় তার।

৬০৬.
পূর্বে না থাকিলে এবার
তাহার কী আশায়।

৬০৭.
কর্মের দোষ কি কাজকে দোষাই
কোন্‍ কথাটি গিরে দেই ভাই।

৬০৮.
লালন বলে আমার বোধ নাই
শুধাবো কোথায়।

৬০৯.
সে যারে বোঝায় সেই বোঝে।
মক্করউল্লার মক্কর বোঝা সাধ্য কার আছে।

৬১০.
যথায় কাল্লা তথায় আল্লা
এমনি রে সেই মক্করউল্লা।

৬১১.
অবোধের মক্কা হিল্লা
সদাই তাই খোঁজে।

৬১২.
ইরফানি কেতাবে ভাই
হরফ নূক্তা তার কিছুই নাই।

৬১৩.
তাই ঢুঁড়িলে খোদাকে পাই
খোদেই বলেছে।

৬১৪.
এলমে লাদুন্নি হয় যার
সর্বভেদ মালুম হয় তার।

৬১৫.
আদি মক্কা এই মানবদেহে দেখ না রে মন ভেয়ে।
দেশ-দেশান্তর দৌড়ে কেন মরছোরে হাঁপিয়ে।

৬১৬.
মানুষ-মক্কা কুদরতিময়
উঠছে গায়েবী আওয়াজ সাততলা ভেদিয়ে।

৬১৭.
সিংহ দরজায় একজন নূরী
নিদ্রাত্যাগী হয়ে।

৬১৮.
কুদরতিময় মানুষ মক্কা
গুরুপদে ডুবে থাকগা ধাক্কা সামলিয়ে।

৬১৯.
চারদ্বারে চার নূরী ইমাম
মধ্যে সাঁই বসিয়ে।

৬২০.
তিল পরিমাণ জায়গার উপর
গঠেছেন সাঁই আজবশহর।

৬২১.
মানুষের কদ দিয়ে
লাখ লাখ হাজী করতেছে হজ সেই জায়গাজমিনে।

৬২২.
করেছেন সাঁই আজব বাক্কা
গঠেছেন এই মানুষ-মক্কা কুদরতী নূর দিয়ে।

৬২৩.
সিরাজ সাঁই কয় অবোধ লালন
ঘরে আদি ইমাম মেয়ে।

৬২৪.
ধড়ে কোথায় মক্কা মদিনে
চেয়ে দেখ নয়নে।

৬২৫.
ধড়ের খবর না জানিলে
ঘোর যাবেনা কোনোদিনে।

৬২৬.
ওয়াহাদানিয়াতের রাহা
ভুল যদি মন কর তাহা।

৬২৭.
হুজুরে যেতে পথ পাবে না
ঘুরবি কত ভুবনে।

৬২৮.
উপরওয়ালা সদর বারী
আলীপুরে তার কাচারী।

৬২৯.
সদাই করে হুকুম জারি
মক্কায় বসে নির্জনে।

৬৩০.
চারি রাহায় চারি মকবুল
ওয়াহাদানিয়াতে রাছুল।

৬৩১.
ভবের গোলা আসমানে।
মুক্তামণি বিকিকিনি মহাজন তার কোনখানে।

৬৩২.
সেই গোলা আসমানে
রসের খেলা রাত্রদিনে।

৬৩৩.
ধর্মদুষি আর চুরাশী
পরশ হয় তার পরশনে।

৬৩৪.
পেলে মন পৈতৃক সে ধন
বিলালো তারে আপন মন।

৬৩৫.
কারণে করণ যার সে ধরন
দিচ্ছে পুঁজি তাই জেনে।

৬৩৬.
সেই ধনের আশায় যারা
ভাব ত্রিপিনে দেয় পাহারা।

৬৩৭.
পেয়ে মহাযোগ এড়ায় ভবরোগ
লালন ম’ল মনের গুণে।

৬৩৮.
আছেরে ভাবের গোরা আসমানে
তাঁর মহাজন কোথা,
কে জানে কারে শুধাই
সেই কথা।

৬৩৯.
জমিনেতে মেওয়া ফলে
আসমানে বরিষণ হলে।

৬৪০.
কমে না আর কোনকালে
তাঁর মনলতা।

৬৪১.
রবি শশী হয় সৃষ্টি
কারণ দেখ সেই গোলটি।

৬৪২.
নেকবান তার দুইটি
আছে যে যথা।

৬৪৩.
ধন্য ধনী ধন্য কারবার
চেয়ে দেখলাম না তাঁর বাড়িঘর।

৬৪৪.
লালন বলে জন্ম আমার
যায় বৃথা।

৬৪৫.
চেতন ভুবনে সাধ্য কে জানে।
তলে আসে তলে বসে
এমন কে তাঁরে চেনে।

৬৪৬.
চেতন ঘরে হলো চুরি
সে চোর কি আর ধরতে পারি।

৬৪৭.
লাম আলিফ যাঁর নাম করি
দ্বিদলে সে রয় নির্জনে।

৬৪৮.
আউয়ালে যে হয়, সে জানতে পায়
নইলে তার ভজন কাটা যায়।

৬৪৯.
হামিমে যাঁর গোসল নাই
তাঁর সাক্ষী তিনজনে।

৬৫০.
আউয়ালে মোর আল্লাগনি
দুয়মে আহামদ শুনি।

প্রাসঙ্গিক লেখা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!