মতুয়া সংগীত

ভাবি অন্তরে

(তাল-ঝাঁপ)
ভাবি অন্তরে-
আপন বলতে কেউ নাই সংসারে।
আমি যারে আপন আপন বলিরে
হারে আমার সে হয়ে যায় পররে।।

১। আমার সুজন বন্ধু ছিল ছয় জন, তারা বিমুখ হল,
ওহে পিতা, মায়া মাতা, তাজ্য করে গেল,
আমি ছয় বন্ধুকে করে বাধ্য রে,
(হারে) কবে ওড়াকান্দী যাব রে।।

২। আমার আমোদ আহ্লাদ দুটি পুত্র, করে নাম সংকীর্ত্তন;
কুমতি মহিষী এসে, করিতেছে বারণ।
আমি সামর্থ ভ্রাতাকে দিয়েরে;
হারে তারে তাড়াতেছি ভারিরে।।

৩। আমি চৌষট্টি মহন্তের সঙ্গে, হইব মিলন,
শান্তি হরির যুগল রুপে, রাখব দুট নয়ন।
আমি রূপের ঘরে দিয়ে আখিরে,
হারে বসে রব রূপের কাছেরে।।

৪। স্বামী হরি চরণ রূপে কিরণ, হেরিয়ে সদায়,
চাঁদ বদনে আকুল প্রাণে হরিনাম গুণ গায়।
পায়না এক বিন্দু তার, দীনা বর্ব্বর,
(হারে) ঐ রূপ পায়না আপন দোষেরে।।

………………………………..
রাগিনী-অরুন ভাণ্ডার

প্রাসঙ্গিক লেখা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!