শ্রী শ্রী লোকনাথ ব্রহ্মচারী

লোকনাথ বাবার লীলা : চার

একবার বাবার এক ভক্ত তার ছেলের বিয়েতে বাবাকে নিমন্ত্রণ করে। বাবা বললেন- তিনি আশ্রমে থেকেই তার মেয়ে-জামাইকে আশীর্বাদ করবেন। কিন্তু লোকটি কিছুতেই ছাড়বে না, বাবাকে যেতেই হবে বিয়ে বাড়িতে। অগত্যা যেতে রাজি হন বাবা।

কিন্তু সব জীবের মধ্যে তিনি আছেন- লোকটিকে এই শিক্ষা দেবার জন্য বাবা একটি কালো কুকুরের রূপ ধরে গিয়েছিলেন তার বিয়ে বাড়িতে, কিন্তু লোকটি চিনতে না পেরে চেলাকাঠ দিয়ে মেরে তাড়িয়ে দেয় কুকুরটিকে। পরে লোকটি বাবাকে আবার নিমন্ত্রণ করতে আসে।

লোকটিকে দেখেই বাবা বলেন- কিরে! আজ আবার কিসের নেমন্তন্ন করতে এসেছিস?

লোকটি বলল- আপনি যাব বলেও তো আমার মেয়ের বিয়েতে গেলেন না।

বাবা বললেন, আমি তো গিয়েছিলাম, তুই যদি চিনতে না পারিস তো আমার দোষ কি? একটা কালো কুকুর হয়ে গিয়েছিলাম। কিন্তু তুই সেই কেলে কুকুরটাকে চেলাকাঠ দিয়ে মারলি কেন? এই দেখ, ডান হাতটা আমার এখনো ভাল করে নাড়তে পারছি না।

নাই বা চিনতে পারলি, কিন্তু মারবিক কেন? তোর যেমন প্রাণ, তারও তো তেমনি প্রাণ ; আর বিশ্বভুবনে আমি ছাড়া তো আর কেউ কোথাও নেই। ঈশ্বরের সঙ্গে আমার দেখা হয়নি, আমি দেখেছি কেবল আত্মাকে। যেখানে যা আছে, তা সেই এক আত্মারই বিচিত্র প্রকাশ।

<<লোকনাথ বাবার লীলা : তিন ।। লোকনাথ বাবার লীলা : পাঁচ>>

………………………
সূত্র:
শ্রীযামিনী কুমার দেবশর্ম্মা মুখোপাধ্যায়ের ধর্ম্মসার সংগ্রহ গ্রন্থ থেকে।

……………………………….
ভাববাদ-আধ্যাত্মবাদ-সাধুগুরু নিয়ে লিখুন ভবঘুরেকথা.কম-এ
লেখা পাঠিয়ে দিন- [email protected]
……………………………….

…………………
আরও পড়ুন-
লোকনাথ বাবার লীলা : এক
লোকনাথ বাবার লীলা : দুই
লোকনাথ বাবার লীলা : তিন
লোকনাথ বাবার লীলা : চার
লোকনাথ বাবার লীলা : পাঁচ
লোকনাথ বাবার লীলা : ছয়
লোকনাথ বাবার লীলা : সাত
লোকনাথ বাবার লীলা : আট
লোকনাথ বাবার লীলা : নয়
লোকনাথ বাবার লীলা : দশ
লোকনাথ বাবার লীলা : এগারো
লোকনাথ বাবার লীলা : বারো
লোকনাথ বাবার লীলা : তের
লোকনাথ বাবার লীলা : চৌদ্দ
লোকনাথ বাবার লীলা : পনের
লোকনাথ বাবার লীলা : ষোল
লোকনাথ বাবার লীলা : সতের
লোকনাথ বাবার লীলা : আঠার
লোকনাথ বাবার লীলা : উনিশ
লোকনাথ বাবার লীলা

……………..
আরও পড়ুন-
লোকনাথ ব্রহ্মচারীর উপদেশ : এক
লোকনাথ ব্রহ্মচারীর উপদেশ : দুই
লোকনাথ ব্রহ্মচারীর উপদেশ : তিন
লোকনাথ ব্রহ্মচারীর উপদেশ : চার
লোকনাথ ব্রহ্মচারীর উপদেশ : পাঁচ
লোকনাথ ব্রহ্মচারীর উপদেশ : উপসংহার

প্রাসঙ্গিক লেখা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!