বিজয় সরকার

শ্রাবণের বাদল ধারে রে বরষার বারিধারে রে

শ্রাবণের বাদল ধারে রে বরষার বারিধারে রে
কারে আজ চাহে রে আমার মনে।
ও সেই পরান বিরহ ব্যথারে
এসে জাগে আমার পরানে।।

নিরজনে ছিলাম আমি নীরব ভবনে
খোলা জানালায় দোলা দিলো এসে উদাসী পবনে
আমার পথ চাওয়া নয়নে;
ও কার ক্লান্ত বাঁশি বাজে আসি
আমার ঝরা ফুলের বাগানে।।

চাতলদিঘির চারি পাশে চাতকের চাতুরি
জঙ্গল মাঝে বরষামঙ্গল গাহিছে দাদুরি
ও সেই শ্রাবণের মাধুরি;
আমি একা একা ঘুরে মরি
দূরের এক সুরের টানে।।

মেঘবরণ এলো চুলে বিরহিনী মেয়ে
মেঘের আড়ে বসে কাঁদে চাঁদের দিকে চেয়ে
সে কি বেদনা পেয়ে;
ও তার কি যেন গেছে হারায়ে রে
ফিরছে তাহার সন্ধানে।।

কতো কালের বিরহিদের ব্যথার আঁখির জলে
মিলাইয়ে শ্রাবণ ধারায় এসে নামে ধরাতলে
ওসে ভাঙ্গা গড়ার ছলে;
পাগল বিজয়ের মন ভেসে বেড়ায়রে
একদিনের এক তুফানে।।

প্রাসঙ্গিক লেখা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!