ভবঘুরেকথা

নারী স্বর্গং স্বখং স্বর্গং তাম্বুল ভোজনম্।
ইহাপি নরক: স্বর্গং ইতি মাত: প্রচক্ষতে।।

(তথাহি প্রকৃতি গীতায়াং)

মর্ত্ত্যে স্বর্গ সুখ আছে স্বরগে নরক।
বিশেষ করিয়া কহি শুনহ সাধক।।
মর্ত্যলোকে সুখ ভোগ করে যেই জন।
তাহাকেই স্বর্গ বলি বলে জ্ঞানীজন।।
স্বর্গপুরে গিয়া যদি জন্ম কেহ লয়।
তাহাই নরক ভোগ শাস্ত্রির নির্ণয়।
ইহার কারণ কথা কহি সাবধানে।
স্বর্গ পুরে যায় জীব সুখের কারণে।।
দেহ ভিন্ন অন্য সুখ ভুগিতে না পারে।
দেহ ছাড়ি গেলে ইহা ভস্মাসাৎ করে।।
শূন্য দেহ লয়ে আত্মা যায় স্বর্গ পুরে।
দেবকুলে জন্ম লয় সেই দেহ তারে।।
দেব দেহে লাভ করি স্বর্গ ভোগ করে।
হাজার সাতেক বর্ষ অন্তে স্বর্গপুরে মরে।।
জন্মমৃত্যু এইরূপে ঘুরে জীবগণ।
জন্মমৃত্যু ত্রিতাপাদি হয় না বারণ।।
ঈশ্বরের অংশেতে জীব উৎপত্তি হইল।
মায়ামোহে জীব সেই ঈশ্বর ভুলিল।।
জগতের পতি কৃষ্ণ স্বয়ং ভগবান।
তাঁরে না ভজিলে জীব নাহি পরিত্রাণ।।
সাধুজন সঙ্গ মাগে এ অধম দাস।
বাঞ্ছা মনে শ্রীচরণে পুরে যেন আশ।।

……………………………………..
তত্ত্বরসামৃত জ্ঞানমঞ্জরী
-শ্রীশ্রী চরণ দাস

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

error: Content is protected !!