মতুয়া সংগীত

স্বামী হল মেয়ের

(তাল-ঝাপ)
স্বামী হল মেয়ের ভগবান, পুজ বর্ত্তমান আর অনুমান,
রিপুর বশে যেওনা ভুল্
রে এবার স্বামী ধর, পূজা করহে,
নৈলে উদ্ধার হবা কোন বলে।।

১। স্বামীর পদে ভক্তি রেখ, সদায় বাসধানে থেক,
রতি মতি দিও স্বামীর পায়।
সবে স্বামীর মতে, মত রাখিও হে,
নৈলে যেতে হয় রসাতলে।।

২। মাতা পিতা তুষ্ট হয়ে, বর এনে দিল বিয়ে,
সাধন ভজন করিবার আশায়।
হল স্বামী গুরু, কল্পতরু হে,
কল্পনা রেখ তার চরণ তলে।।

৩। স্বামী স্ত্রী ঐক্য হয়ে, সাধন কর একমন দিয়ে,
মুক্তি পাবে অন্তিম সময়।
দয়াল হরিচাঁদের, দয়া হলে হে,
দুজন শান্তি ধাম যাবে চলে।।

৪। মহা সতী তারার পতি, নিধন করে জগৎ পতি,
রামায়নে শুনিয়াছি তাই।
তখন রামের শরে, বালি মরে হে,
তারা অভিশাপ দেয় সেকালে।।

৫। সেই অভিশাপ রাম নেয় বেধে, সীতার শোকে বনে কাঁদে
এড়াতে না পারে দয়াময়।
ভেবে বলে দীনা কুল পাবানা হে
স্বামীর চরণ পূজা না হলে।।

……………………………….
নারী শিক্ষা
রাগিনী-উরুশেন

প্রাসঙ্গিক লেখা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!