ফকির নহির সাঁইজি

সুধি,
জ্ঞানাবতার প্রেমসুধাকর ফকির লালন সাঁইজীর নামাশ্রয় জীবের ভরসা। প্রাগপুর হেমাশ্রমের ৪৩তম গুরুবার্ষিকী ও ফকির নহির সাঁইজির সহধর্মিনী রওশনারা ফকিরানীর ২৩তম তিরোদান দিবস এবং রশিদা ফকিরানীর ১০ম তিরোধান দিবসের স্মৃতিবার্ষিকী স্মরণ উপলক্ষ্যে আগামী ১৫ মার্চ ২০২০ খ্রিস্টাব্দে ২৪ ঘণ্টাব্যাপী সাধুসঙ্গের আয়োজন করা হয়েছে।

এই সাধুসঙ্গে আপনার পদধূলি আমরা কামানা করি। সেই দিন সাধুসেবার সুযোগ পেয়ে যেন আমরা ধন্য হতে পারি সেই আশায় আমরা আপনার দর্শনের অপেক্ষায় থাকব। উল্লেখ্য, এই স্মৃতিবার্ষিকী স্মরণ উৎসবের সাধুসঙ্গ ফকির কুলের শিরোমণি ফকির লালন সাঁইজির দোলপূর্ণিমার সাধুসঙ্গের সময়কাল অর্থাৎ ১০ মার্চ তারিখে হওয়ায় তা ১৫মার্চ তারিখে অনুষ্ঠিত হবে।

চব্বিশ ঘণ্টার অনুষ্ঠানে অধিবাস আরম্ভ ১৫ মার্চ রোজ রবিবার, বিকাল ৪টায় এবং পরদিন পূর্ণসেবা গ্রহণের পর ১৬ মার্চ রোজ সোমবার বিকাল ৪টায় সঙ্গের প্রহর পরিসমাপ্ত হবে। কৃপা করে সঙ্গের সম্পূর্ণ প্রহর আমাদের সঙ্গে থেকে আমাদের ধন্য করবেন, এই মিনতি রাখি। পত্রে আহ্বান ও নিমন্ত্রণ জানানোর জন্য ঘোর অপরাধী। তবে সাধু দয়াময়, মার্জনা ভিক্ষা।

বিনয়াবনত-
ফকির নহির শাহ্
প্রাগপুর, দৌলতপুর, কুষ্টিয়া, বাংলাদেশ।

সময়:
রবিবার বিকাল ৪টা
১৫ মার্চ ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

স্থান:
হেমাশ্রম
প্রাগপুর, দৌলতপুর, কুষ্টিয়া, বাংলাদেশ।

আয়োজন ও আমন্ত্রণে:
ফকির নহির শাহ্
হেমাশ্রম, প্রাগপুর, কুষ্টিয়া, বাংলাদেশ।

: অনুষ্ঠান সূচি :

১৫ মার্চ ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
রোজ রবিবার
বিকেল ৩:০০-৪:০০ – সাধুবৃন্দের আগমন
বিকেল ৪:০০-৪:৩০ – আসন গ্রহণ ও অধিবাস শুরু
বিকেল ৪:৩০-৫:০০ – জ্ঞান রত্নাকর ফকির লালন সাঁইজীর জীবনলীলা স্মরণ।
সন্ধ্যা ৫৬:৩০-৭:৩০ – গুরুকর্ম।
সন্ধ্যা ৭:৩০-৮:৩০ – দীন ডাকা ও চা-মুড়ি সেবা।
রাত ৮:৩০-৯:৩০ – দৈন্যগান।
রাত ৯:৩০-১:০০ – ফকির লালন সাঁইজির গীতজ্ঞান সুধা পরিবেশন (আমন্ত্রিত সাধুগুরু ও শিল্পীবৃন্দ কর্তৃক)।

১৬ মার্চ ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
রোজ সোমবার
সকাল ৬:০০-৭:০০ – গোষ্ঠ গান।
সকাল ৭:০০-৮:০০ – গুরুকর্ম।
সকাল ৮:০০-৯:০০ – বাল্যসেবা।
সকাল ৯:০০- বিকেল ৩:০০ – ভাবসঙ্গীত।
বিকেল ৩:০০-৪:৩০ – পূর্ণ সেবা।
বিকেল ৪:৩০-৫:৩০ – বিদায় প্রণাম।

সংগীত পরিবেশন করবেন:
কুষ্টিয়া-মেহেরপুরসহ দেশের
প্রবীন সাধুগুরু ও বিশিষ্ট শিল্পীবৃন্দ

যোগাযোগ :
ফকির রাজন শাহ্
০১৭১০৮৬১৩০০
হেমাশ্রম, প্রাগপুর, দৌলতপুর, কুষ্টিয়া।

যাতায়াত:

-ঢাকা থেকে-

বাস সার্ভিস
সড়কপথে ঢাকা থেকে কুষ্টিয়ার দূরত্ব ২৭৭কিমি। ঢাকা শহরের গাবতলী, কল্যাণপুর ও সায়দাবাদ থেকে শ্যামলী, এসবি, হানিফ ইত্যাদি বাসে করে সরাসরি যাওয়া যায় কুষ্টিয়া। এছাড়াও আরো বেশকিছু বাস এই লাইনে চলাচল করে। বাস থেকে কুষ্টিয়ার মজমপুর গেটে নেমে সেখান থেকে আবার প্রাগপুরগামী বাসে উঠতে হবে। দুই থেকে আড়াই ঘণ্টায় পৌঁছে যাওয়া যায় প্রাগপুর। বিকাল পাঁচটা পর্যন্ত প্রতি ঘণ্টায় বাস ছেড়ে যায়। প্রাগপুরে অর্থাৎ বাসের শেষ স্টপিজে নেমে সেখানে যে কোন ভ্যান বা রিকসাকে বললেই নিয়ে যাবে নহির ফকিরের বাড়ি। ভ্যানে প্রতিজনের জন্য ভাড়া ১০ টাকা।

এছাড়া ঢাকা থেকে প্রাগপুরেরও সরাসরি বাস ছেড়ে যায়। এসবি ও ফাতেমা সার্ভিস বাস কল্যাণপুর থেকে ছেড়ে যায়। এই বাসে করে সরাসরি যাওয়া যায় প্রাগপুর। সেখানে থেকে ভ্যানে করে নহির ফকিরের বাড়ি।

এছাড়া ঢাকা নারায়ণগঞ্জ থেকেও প্রাগপুরে সরাসরি বাস আছে। আরপি পরিবহন ও আল্ট্রামর্ডান নামে বাস সার্ভিস প্রতিদিন ছেড়ে যায় নারায়ণগঞ্জ থেকে প্রাগপুর।

নির্মাতা
ভবঘুরে কথা'র নির্মাতা

প্রাসঙ্গিক লেখা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!