কথা

তন্ত্র কথা

দেহতত্ব

প্রথমত যে আধ্যাত্মিক চেতনা নিয়ে নারী-পুরুষের যুগ্ম সাধনা এই তন্ত্র শুরু হয়েছিল সেই আধ্যাত্মিক চেতনা কোথায়? নারী-পুরুষের স্বাভাবিক সম্পর্ক কাম থেকে প্রেমে উত্তীর্ণ না হলে তন্ত্র কেন কোন সাধনাই সম্ভব নয়। প্রেম তো কোন ঠিক কোন সম্পর্ক নয়।

বিস্তারিত পড়ুন
খাজা মইনুদ্দিন চিশতি আরশীনগর

মইনুদ্দিন সিজঝি

ভারতে মইনুদ্দিন সিজঝি নামে এক সুফি সাধক সুদূর তুর্কিস্তান থেকে এসে দ্বাদশ শতাব্দীতে উদার হৃদয় ‘চিস্তি’ তরিকার প্রতিষ্ঠা করেন। সেই সিজঝি সাহেব ভগবৎ-সাধনে সিদ্ধ এক দরবেশের কথা লিখেছেন, যার কথা শুনলে বুঝবেন, অনাসক্ত সংসারীর অনুভূতি কতটা বুদ্ধি দিয়ে বুঝতে হয়।

বিস্তারিত পড়ুন
ধ্যান কথা

দিব্য-আলোক ধ্যান ওঁ স্বং ব্রহ্মের সাক্ষাৎকার: এক

চিত্তবৃত্তি-নিরোধের নামই যোগ- ‘যোগ’ এক প্রকার বিজ্ঞান, যার সাহায্যে আমরা চিত্তের বিভিন্ন বৃত্তিতে রূপান্তরিত হওয়া বন্ধ করতে পারি। এই যোগের নাম অষ্টাঙ্গযোগ, কারণ এর প্রধান অঙ্গ আটটি- যম, নিয়ম, আসন, প্রাণায়াম, প্রত্যাহার, ধারণা, ধ্যান এবং সমাধি।

বিস্তারিত পড়ুন
কথা

জীবাত্মা ও পরমাত্মা

রাম নাম, কৃষ্ণ নাম, শিব নাম, লক্ষ্মী, কালী, দূর্গা, সরস্বতী, নারায়ণ প্রভৃতি যে নামেই তুমি ভগবানকে ডাকো না কেন- তুমি শুদ্ধ-বুদ্ধ-মুক্ত, নিত্য-অবিনাশী যে সত্তা সদা-সর্বদা বিরাজমান তার স্বাদ তুমি পাবে।

বিস্তারিত পড়ুন
স্বামী স্বরূপানান্দ কথা

অখণ্ড মণ্ডলেশ্বর শ্রীশ্রী স্বামী স্বরূপানন্দ : দুই

কামনা হচ্ছে ঠিক আগুনের মত আর তার উপকরণ হচ্ছে ঘি। আগুনে ঘি দিলে যেমন আগুন বেড়ে যায়, তেমনি ভোগে তৃপ্ত না হলে কামনাও বেড়ে যায়। সুতরাং মনেপ্রাণে নিষ্কাম হয়ে উঠতে হবে সকলকে। তা না হলে অনন্ত যৌবনশক্তির অমিতবেগ কামনার জালে যাবে শোচনীয়ভাবে আটকে, তার গতি যাবে রুদ্ধ হয়ে।

বিস্তারিত পড়ুন
স্বামী বিবেকানন্দ কথা

গুরুভক্তিতে সব সিদ্ধান্ত প্রত্যক্ষ হয়

যা বলি সে-সব কথাগুলি বুঝে নিবি, মূর্খের মত সব কথায় কেবল সায় দিয়ে যাবি না। আমি বললেও বিশ্বাস করবিনি। বুঝে তবে নিবি। আমাকে ঠাকুর তাঁর কথা সব বুঝে নিতে সর্বদা বলতেন। সদ্‌যুক্তি, তর্ক ও শাস্ত্রে যা বলেছে, এই সব নিয়ে পথে চলবি। বিচার করতে করতে বুদ্ধি পরিষ্কার হয়ে যাবে, তবে তাইতে ব্রহ্ম reflected (প্রতিফলিত) হবেন। বুঝলি?

বিস্তারিত পড়ুন
শ্রীকৃষ্ণ কথা

ভক্তের বিনাশ নেই

শ্রীকৃষ্ণের ভক্তদের কানে গোপীদের কানে সে ধ্বনি ঠিকই পৌঁছায়। ভাগবতে আছে, গোপীদের মধ্যে কেউ হয়তো স্বামীর সেবা করেছেন। কেউ হয়তো রান্নার কাজে ব্যস্ত। আবার কেউ হয়তো সন্তানের দেখভাল করছেন। কেউ হয়তো প্রসাধনের কাজে ব্যস্ত।

বিস্তারিত পড়ুন
গুরুপূর্ণিমা কথা

শিষ্যের তিন শ্রেণী

রাত্রির স্নিগ্ধতা ও স্তব্ধতা সূত্র প্রসারিত হইল। গুরুর পশ্চাৎ পশ্চাৎ শিষ্যেরা জলান্ত হইতে উচ্চ ভূমির উপরিভাগে আরোহণ করিলেন। শ্রদ্ধা নম্র শিষ্যেরা তাঁহাদের হৃদয়পাত্রের মুখ উন্মোচন করিয়া নিঃশব্দে গুরুর সম্মুখে ধারণ করিলেন। তিনি তাঁহার সত্যধৰ্ম্মের রসধারা বর্ষণ করিতে লাগিলেন।

বিস্তারিত পড়ুন
স্বামী বিবেকানন্দ কথা

ভগবানকে কেন ডাকি?

কারণ আমরা নিজেরাই যে ভগবান, তাই তো আমরা ভগবানকে ভালবাসি। না হলে আমরা ভূতকে ভালবাসতাম বা ভূতকে মন্দিরে বা ঘরের সিংহাসনে রেখে পূজা করতাম বা ডাকতাম। এ কথা ঋষি-মুনিদের কথা।

বিস্তারিত পড়ুন
শ্রীরামকৃষ্ণ পরমহংসদেব কথা

এটা মহাপুরুষের দেশ

আর এখানেই বাবা-মায়ের মহত্ম। তাইতো পিতা-মাতা ভগবান। ভগবান পিতা ও মাতার রূপ নিয়ে সন্তানকে লালন-পালন করেন, রক্ষা করেন। তাই পিতা-মাতাই জীবন্ত ভগবান। তাঁদের শ্রদ্ধা-ভক্তি-সেবা করলে আলাদা করে মন্দিরে যাওয়ার প্রয়োজন হয় না।

বিস্তারিত পড়ুন
error: Content is protected !!