ভবঘুরে কথা

রাধারমণ :: বাসকসজ্জা পদ

রাধারমণ দত্ত রাধারমণ :: বাসকসজ্জা পদ

প্ৰাণ সাইগো আমি রইলাম

প্ৰাণ সাইগো আমি রইলাম। কার আশায়। পাষণে বান্ধিয়াছে হিয়া নিদারুণ কালায়।। মনপবন বহে যায় সুখের নিশি পুষাইয়া যায়। কৃষ্ণচূড়া ফুলের মালা বাসি হইয়া যায়। কুহুকুহু রবে কোকিলায় গায় ভাইবে রাধারমণ বলে মনেতে ভাবিয়া ধৈর্য ধর কমলিনী আসবে শ্যামকালিয়া।

বিস্তারিত পড়ুন
রাধারমণ দত্ত রাধারমণ :: বাসকসজ্জা পদ

দূতী তারে কর মানা

দূতী তারে কর মানা শ্যাম যে আমার কুঞ্জে আয় না।। নানা জাতি ফুল তুলি সাজাইয়াছি ফুল বিছানা আসবে বলে প্ৰাণবন্ধু সারা রাইতে নিদ্ৰা আয় না।। নানা জাতি ফুল ফুইটিয়াছে ভ্ৰমর আইসে মধু খায় না কত ভ্ৰমর অইল গেল রাইরে কমলে মধু চায় না।। ভাইবে রাধারমণ বলে রাইর বিচ্ছেদে প্ৰাণ বাঁচে না আইবি গো তোর চিকন […]

বিস্তারিত পড়ুন
রাধারমণ দত্ত রাধারমণ :: বাসকসজ্জা পদ

দুখ কইয়ো গো

দুখ কইয়ো গো, চান্দ-মন্দিরে নিরলে নিয়া।। আর তাপিনী লো, তাপে তাপে জনম গেল গইয়া।। ওরে, পাইলে কইয়ো– চিরদিন মরিামু ঝুরিয়া।। আর লং–এলাচি জায়ফল-জত্রী বাটায় ভরিয়া– ওয়রে, বন্ধু আইলে দিয়ো পান আদর করিয়া।। আর চাতক বইলা মেঘের আশে চরণ—পানে চাইয়া– গো চান্দ মন্দিরে নিরলে নিয়া।। আর ভাইবে রাধারমণ বলে, শুনো রে কালিয়া : পরা কি আপন […]

বিস্তারিত পড়ুন
রাধারমণ দত্ত রাধারমণ :: বাসকসজ্জা পদ

তোরা শুন গো শ্রবণে

তোরা শুন গো শ্রবণে ধীর সমীরে বনে গো বাজে বাঁশি সুমধুর স্বরে।। সকল সঙ্গিনী মিলি বনফুল তুলি গো সাজাও তো নিকুঞ্জ কুটিরে।। শরৎ পূর্ণিমা নিশি অতি সুশীতল গো মনোলোভা হেরি শশধরে।। প্ৰফুল্লিত মল্লিকাদি সৌরভ ছড়াইল গো গন্ধে আমোদিত করে।। রসে অভিলাষ হরি নিশিতে গহনে গো ঘন ঘন মোহন বংশীস্বরে।। সুচিত্র পালঙ্কোপরি বিচিত্র কুসুমে গো করা […]

বিস্তারিত পড়ুন
রাধারমণ দত্ত রাধারমণ :: বাসকসজ্জা পদ

তোরা দোষিও না গো

তোরা দোষিও না গো আমারে, প্রেম করা কি জানে রাখালে ও প্ৰাণ বৃন্দে জ্বালাইয়া ঘৃতের বাতি, আর সাজাই ফুল মালতী কুঞ্জ সাজাই অতি যতনে, আমার ফুলের শয্যা বাসি হইল গো বৃন্দে, বন্ধ আইল না নিশি শেষে জাতি জুতি ফুল মালতী, আমি বিনা সুতে মালা গাঁথি গাঁথি মালা অতি যতনে, আমার সেই মালা হইল জ্বালা গো […]

বিস্তারিত পড়ুন
রাধারমণ দত্ত রাধারমণ :: বাসকসজ্জা পদ

কেন কুঞ্জে না আসিল

কেন কুঞ্জে না আসিল কঠিন শ্যামরায়।। সখী গো তোরা সব সখীগণ যা লো বনে বনে বৃন্দাবনে যালো বৃন্দে বন্ধু অন্বেষণায়।। চেয়ে দেখা প্ৰাণসই গো শশী অস্ত যায় বন্ধু বিনে প্ৰাণ আমার রাখা দায়।। সখীগো শুন শুন প্ৰাণ সই গো মোর নিবেদন দারুণ বিরহে প্ৰাণ করে উচাটন।। শ্যামনাম লয়ে প্ৰাণ উড়ে যেতে চায় মনোচোরা মদনমোহন রয়েছে […]

বিস্তারিত পড়ুন
রাধারমণ দত্ত রাধারমণ :: বাসকসজ্জা পদ

কী হইল কী হইল

কী হইল কী হইল সখী গো সখী কি হইল যন্ত্রণা।। চিত্তে অনল জ্বালাইয়া দিল শ্যাম কালিয়া সোনা।। এগো পুরাইয়া লয় মনের সাধ আমার বিড়ম্বনা সব সখীগণ মিলে তারা গো তারা করে কুমন্ত্রনা।। এগো তুষের অনলের মত জ্বলে ঘইয়া ঘইয়া কেওয়া কেতকী ফুলে গো সাজাইয়া বিছানা।। এগো আসিব তোমার প্রাণবন্ধ শ্যামকালিয়া সোনা ভাইবে রাধারমণ বলে গো […]

বিস্তারিত পড়ুন
রাধারমণ দত্ত রাধারমণ :: বাসকসজ্জা পদ

এগো বৃষভানুর মাইয়া

এগো বৃষভানুর মাইয়া কৃষ্ণ সাজায় সব সখীগণ লইয়া। ফুল বিছানা সাজন করি ফুলের বালিশ ফুল মশারি তার উপরে চান্দুয়া টানাইয়া।। দারচিনি মাখনছানা লুচি পুরী বরফি ছানা সাজাই রাখলাম প্ৰাণবন্ধের লাগিয়া ভাইবে রাধারমণ বলে শুন গো তোমরা সকলে আমি চাইয়া রইলাম পন্থ নিরাখিয়া।

বিস্তারিত পড়ুন
রাধারমণ দত্ত রাধারমণ :: বাসকসজ্জা পদ

আসবে শ্যাম কালিয়া

আসবে শ্যাম কালিয়া কুঞ্জ সাজাও গিয়া এগো কেন গো রাই কানিতে অমাছ পাগলিনী হইহয়া। জাতিযুথী ফুলমালতী আন গো তুলিয়া এগো মনোসাধে সাজাব কুঞ্জ সব সখী মিলিয়া।। আতর গোলাপ চুয়াচন্দন কটরায় ভরিয়া এগো আমার বন্ধু আইলে দিও ছিটাইয়া ছিটাইয়া।। লং এলাচি জায়ফল জাতি বাটতে সাজাইয়া। আমার বন্ধু আইলে দিও খিলি মুখেতে তুলিয়া।। ভাইবে রাধারমণ বলে মনেতে […]

বিস্তারিত পড়ুন
রাধারমণ দত্ত রাধারমণ :: বাসকসজ্জা পদ

আর বন্ধু নি আমার

আর বন্ধু নি আমার– রে নিদায়-পাষাণ বন্ধরে।। তুমি যদি হাওরে আমার, সত্য কথা কও সারাসার। ওয়রে, তোমার লাগি, কতই কইলাম–আর রে।। বন্ধু যদি যাও রে ছাড়ি– গলে দিমু কাটালি ছুরি। ওয়রে তোমার লাগি– ত্যজিতাম পরান রে।। আর চুয়া চন্দন থইছি আমি কটরায়-কটয়ায় ভরি ওরে, দেখলে চন্দন উঠে কান্দন— কার অঙ্গে ছিটাই রে।। আর কেওয়া পুষ্প, […]

বিস্তারিত পড়ুন
error: Content is protected !!