ভবঘুরে কথা

রাধারমণ :: মিলন পদ

রাধারমণ দত্ত রাধারমণ :: মিলন পদ

দেখ দেখা গো সখী

দেখ দেখা গো সখী দেখা নয়ন ভরি বিপুলায় শ্যামকে দেখে খৈ বরিষণ করি। খৈ ছিটায় মুষ্টি ভরি মুখে বলে হরিহরি আনন্দে নৃত্য করে শ্যামাপ্ৰদক্ষিণ করি। বিপুলায় হর্ষ করে ঘুরি ঘুরি শ্যাম নেহারে মনানন্দে উছলে পড়ে। শ্যাম ধরি কি ধরি। ভাইবে রাধারমণ বলে আয় গো সবে কৌতুহলে জয় গোবিন্দ বলে নাচ নাচ উল্লাস ভরি।।

বিস্তারিত পড়ুন
রাধারমণ দত্ত রাধারমণ :: মিলন পদ

ছাড়িয়া যাইবার না লয়

ছাড়িয়া যাইবার না লয় মনে আমরা বিদায় হই। জন্মের মতো প্ৰাণনাথরে আবার দেখিয়া লই।। থাক থাক ওরে বন্ধু বৃন্দাবন জুড়িয়া। কাকুতি মিনতি করইন চরণে ধরিয়া।। দয়া নি রাখবায় বন্ধু অধম জানিয়া ভাবিয়া রাধারমণ বলে শুন গো ধনী রাই পাইবায় তোমার ঠাকুর কৃষ্ণে কোনো চিন্তা নাই।।

বিস্তারিত পড়ুন
রাধারমণ দত্ত রাধারমণ :: মিলন পদ

ছাড়িয়া না দিব বন্ধুরে ছাড়িয়া না দিব

ছাড়িয়া না দিব বন্ধুরে ছাড়িয়া না দিব তুমি যদি ছাড় বন্ধুরে আমি না ছাড়িব। ওরে সুনারো পুতুলার মত হৃদয়ে রাখিব।। তুমি হইবায় কল্পতরু রে বন্ধু আমি হইব লতা ওরে দুই চরণে বান্ধিয়া রাখিমু ছাড়িয়া যাইবায় কোথা। ভাইবে রাধারমণ বলে রে বন্ধু মনেতে ভাবিয়া অভাগীরে সঙ্গে নেও নিজ দাসী জানিয়া।

বিস্তারিত পড়ুন
রাধারমণ দত্ত রাধারমণ :: মিলন পদ

নিশি যায় পোষাইয়া

চলনা চলনা মাধব নিশি যায় পোষাইয়া কিবা ধনী শুইয়া আছে কপাট লাগাইয়া মন্দিরের সামনে গিয়া হস্তে দিলা তালি আপনি খসিল রাধার কপাটের খিলি মন্দিরে ঢুকিয়া কৃষ্ণ চতুর্দিকে চাইন শিয়রে বসিয়া কৃষ্ণ রাধারে জাগাইন কৃষ্ণের মুখে মুচকি হাসি রাধার মুখে চায় কেবা কৃষ্ণ কেবা রাধা চিনন না যায়। ভাবিতে ভাবিতে কৃষ্ণ বাঁশিত দিলা টান একটানে উড়াইয়া […]

বিস্তারিত পড়ুন
রাধারমণ দত্ত রাধারমণ :: মিলন পদ

মদনমোহন চলে গো

কুঞ্জবনে রাধার মদনমোহন চলে গো ধীর ধীর গমন। হালিয়া ঢলিয়া পড়ে চলে না চরণ।। চন্দ্ৰাবলীর কুঞ্জ হইতে করিলা গমন শ্ৰীরাধার মন্দিরে গিয়া দিলা দরশন। সিন্দুরের ইন্দুবিন্দু ললাটে চন্দন কে খাইয়াছে কমলমধু শুকাইয়াছে চাঁদবদন ভাইবে রাধারমণ বলে শুন সখীগণ পুরুষ ভ্রমরা জাতি দোষ কি কারণ।।

বিস্তারিত পড়ুন
রাধারমণ দত্ত রাধারমণ :: মিলন পদ

কি অপরূপ লীলা দেখবি

কি অপরূপ লীলা দেখবি যদি আয় শ্যাম অঙ্গে রাইর অঙ্গ দিয়া রাই ধনী ঝুলায়। শ্যামের মাথায় মোহনচূড়া বাতাসে হিলায় রাইয়ার মাথায় মোহন বেণী ভুজঙ্গ খেলায়। ভাইবে রাধারমণ বলে সময় গাইয়া যায়।। এমন সুযোগ সখী আর কি পাওয়া যায়।

বিস্তারিত পড়ুন
রাধারমণ দত্ত রাধারমণ :: মিলন পদ

কান্দে রাধা চন্দ্ৰমুখী দিবসরজনী

কান্দে রাধা চন্দ্ৰমুখী দিবসরজনী গোবিন্দ ছাড়িয়া গেলা মুই অভাগিনী। চৈত্রমাসের দিন নিদ্রার আবেশ আমায় ছাড়িয়া (ঠাকুর) কৃষ্ণ রইলা কোন দেশ। কোন দেশে রইলা কৃষ্ণ নিলয় না জানি গোকুলে কান্দিয়া বেড়ায় রাধা বিনোদিনী। বৈশাখ মাসের দিন বিরহিত হইয়া শীতল চন্দন রাধে অঙেজগতে লাগাইয়া। শীতল চন্দন অঙ্গে লাগাও সখীগণ বন্ধু দরশন বিনা বাঁচে না জীবন। জ্যৈষ্ঠ মাসের […]

বিস্তারিত পড়ুন
রাধারমণ দত্ত রাধারমণ :: মিলন পদ

কত আদরে আদরে

কত আদরে আদরে শ্যাম সুয়োগী রসিক নাগর মিলিল দুইজনে। কত ভঙ্গী করি দাঁড়াইয়াছে একই আসনে।। শ্যামকুলে রাই রাইকুলে শ্যাম, শ্যাম রাইরে কুলেতে কী আনন্দ হইল আজি নিকুঞ্জ বনে।। মেঘের কোলে সৌদামিনী উদয় গগনে কত পুষ্পপচন্দন ছিটাইয়াছে সব সখীগণে ভাইবে রাধারমণ বলে, আমায় রাখিও কমল-চারণে।।

বিস্তারিত পড়ুন
রাধারমণ দত্ত রাধারমণ :: মিলন পদ

ও বন্ধু নবীন রসিয়া

ও বন্ধু নবীন রসিয়া কেমনে বঞ্চিমু গৃহে তোমা ছাড়া হইয়া নয়ন-জলে বুক ভাসিয়া যায়, না চাইলায় ফিরিয়া তুমি এতো পাষাণ বুকী আগে জানিনা না জানিয়া পিরিত করি এতেক যন্ত্রণা।। চাতক রইল মেঘের আশে মেঘ না হইল তায় জল বিনে যুবতী রাধা কি হইবে উপায় ভাইবে রাধারমণ বলে মনেতে ভাবিয়া এতদিনে পাইছি বন্ধু না দিব ছাড়িয়া।।

বিস্তারিত পড়ুন
রাধারমণ দত্ত রাধারমণ :: মিলন পদ

একাসনে রাইকানু প্ৰেমে

একাসনে রাইকানু প্ৰেমে ভাসিয়া যায় একজনের গায়ের বসন আরেক জনের গায় কে রাধা কে কৃষ্ণ চিনন না যায়।। শ্যামের বামে রাইকিশোরী বইছইন দুইজনে পুষ্পবৃষ্টি করে তারা সব সখীগণে। দুবাহু তুলিয়া শ্যামে ধরেন রাইর গলায় চন্দ্ৰগ্ৰহণ লাগিয়াছে ভাবে বুঝা যায়। ভাইবে রাধারমণ বলে দেখো সখীগণে যুগলামিলন হইল আজি রস বৃন্দাবনে।

বিস্তারিত পড়ুন
error: Content is protected !!