পরিচিতি

বাবাজী পরিচিতি

মহাবতার বাবাজীর দর্শন লাভ: দুই

স্বাগত, স্বামীজী! মহাগুরুর মধুর কণ্ঠস্বর কর্ণে প্রবেশ করতে নিশ্চিত হলাম যে সত্যি সত্যি আমি কোন স্বপ্ন দেখছি না। বাবাজী মহারাজ বলতে লাগলেন, দেখছি যে ভালভাবেই বইখানি লেখা শেষ হয়েছে- যাক, কথা দিয়েছিলাম যে আসব, তাই আজ এসেছি তোমায় ধন্যবাদ দিতে।

বিস্তারিত পড়ুন
তুলসীদাস পরিচিতি

সাধক তুলসীদাস: তিন

সেই যোগীবরের সরযূতটে একটি পর্ণকুটির ছিল। তুলসীদাস যখন সেখানে তাঁর একটি নিজস্ব কুটির নির্মাণের কথা ভাবছিলেন, এমন সময় অকস্মাৎ একদিন সেই যোগীবর যোগশক্তিবলে দেহত্যাগ করলেন। ফলে তুলসীদাস সেই কুটিরেই অবস্থান করে তাঁর ‘রামচরিত মানস’ গ্রন্থটি রচনা করে যেতে লাগলেন পরম ভক্তিভরে।

বিস্তারিত পড়ুন
সাধক কবি কিরণ চাঁদ দরবেশ পরিচিতি

সাধক কবি কিরণচাঁদ দরবেশ

সংসারকে ভয় না করিয়া, উহাই ভগবানের ব্যবস্থা বলিয়া মানিয়া লইতে হইবে। ইহার পর যাহা তোমার পক্ষে প্রয়োজন ও আবশ্যক, ভগবান ঠিক সেইরূপই ব্যবস্থা করিয়া রাখিয়াছেন। প্রত্যহ নিয়মিত সাধনই সকল প্রকার ব্যাধির একমাত্র মহৌষধ।

বিস্তারিত পড়ুন
মহাতাপস শ্রীশ্রী বালানন্দ ব্রহ্মচারী পরিচিতি

মহাতাপস বালানন্দ ব্রহ্মচারী: দুই

কামাখ্যা থেকে আবার তীর্থ পর্যটনে বেরিয়ে পড়েন বালানন্দজী। তিনি একবার তারকেশ্বর মন্দির দর্শনের পর হুগলি জেলায় ঘুরতে ঘুরতে এক জায়গায় শুনতে পান জলেশ্বর নামে এক গাঁয়ে এক ভগ্ন মন্দিরে এক প্রাচীন জাগ্রত শিবলিঙ্গ আছে। স্থানীয় লোকদের কাছে জলেশ্বর শিব নামে পরিচিত।

বিস্তারিত পড়ুন
শ্রীশ্রী সাধিকা মাতা পরিচিতি

শ্রীশ্রী সাধিকা মাতা

সংসারজীবনে নানা সমস‍্যায় জর্জরিত মানুষ ছুটে যায় তাঁর কাছে আর সন্ধান পায় পরম শান্তির। প্রত‍্যন্ত গ্রাম‍্যবধূ হতে শহরাঞ্চলের অট্টালিকায় বসবাসকারী প্রত‍্যেককে বিনাদ্বিধায় তিনি বলে দেন সমস‍্যাময় জীবন হতে মুক্তির উপায়।

বিস্তারিত পড়ুন
মহাবতার বাবাজী পরিচিতি

মহাবতার বাবাজীর দর্শন লাভ: এক

শুনে অবশ্য খুবই খুশি হলাম যে বাবাজীই আমাকে শ্রীযুক্তেশ্বর গিরিজীর কাছে পাঠাবার ব্যবস্থা করেছিলেন। কিন্তু এও আমি তখন কিছুতেই ভেবে উঠতে পারছিলাম না যে আমার ভক্তিভাজন গুরুদেব আর তাঁর এই শান্ত আশ্রম ভূমি ত্যাগ করে আমি পশ্চিমে গিয়ে থাকব কি করে, আর কি নিয়ে।

বিস্তারিত পড়ুন
গুরুচাঁদ ঠাকুর পরিচিতি

শ্রীশ্রী গুরুচাঁদ ঠাকুর ও নবযুগের যাত্রা: তিন

বাংলার বিভিন্ন জেলায় ঘুরে নানা ধরনের সম্মেলনের মধ্যে দিয়ে বাংলার কৃষক সমাজকে জাগাতে চেয়েছিলেন গুরুচাঁদ ঠাকুর। তাঁর এই মহান কর্মযজ্ঞ দেখে বর্ণবাদী তৎকালীন কংগ্রেসের বিশিষ্ট নেতারা তাদের আন্দোলনে শ্রীশ্রী গুরুচাঁদ ঠাকুরকে আহ্বান জানান।

বিস্তারিত পড়ুন
শ্রীশ্রী বরফানী দাদাজি পরিচিতি

বহুবর্ষজীবি শ্রীশ্রী বরফানী দাদাজি

কিছুদিন পূর্বে আমার সাথে সাক্ষাত হয়েছিল শ্রীযুক্ত শ্রী সত‍্যেশ্বর মান্না মহাশয়ের। তিনি ভারত বিখ্যাত মহাযোগী শ্রীশ্রী বরফানী দাদাজি মহারাজের শিষ‍্য এবং শ্রীশ্রী সীতারামদাস ওঙ্কারনাথ ঠাকুরের আশীর্বাদ ধন‍্য। তিনি এসেছিলেন তার আপন প্রয়োজনে কিন্তু তার আগমনে মিটল আমার প্রয়োজন।

বিস্তারিত পড়ুন
ফকির শাহ সুলতান আহম্মদ জালালী জালালী মত

দ্বৈত-অদ্বৈত-বিশিষ্ট অদ্বৈত

হজরত শাহসুলতান জালালী বলেন যে, যখন তোমার গুরুর উপরে অখণ্ডভাবে বিশ্বাস জন্মে অর্থাৎ গুরু যখন সম্পূর্ণ ভাবে পরমাত্মায় বা ব্রহ্মে বিলীন হন তখন তিনিই ব্রহ্মা-বিষ্ণু-মহেশ্বর; বিশিষ্ট অদ্বৈতবাদী। আধ্যাত্মিক ব্যাখ্যায় যে সকল ভক্তগণ অখণ্ড ভাবে তার উপাস্য প্রভুকে পরমব্রহ্ম জ্ঞানে বিশ্বাস ও ভজন-সাধন করেন ইহাদের অদ্বৈতবাদী বলা হয়।

বিস্তারিত পড়ুন
শ্রীশ্রী হরিচাঁদ ঠাকুর পরিচিতি

শ্রীশ্রী গুরুচাঁদ ঠাকুর ও নবযুগের যাত্রা: দুই

হরিচাঁদ ঠাকুরের অসমাপ্ত কর্মযজ্ঞকে সফল করতে গুরুচাঁদ ঠাকুর জীবন নিবেদন করেন। শিক্ষাবিস্তার এবং অত্যাচারমূলক পুরোহিত প্রথাও ও ব্রাহ্মণদের অনুচিত প্রাধান্যের কবল থেকে মুক্তি করার উদ্দেশ্যে কাজ করে যান। বাংলার ঘুমন্ত জাতিগুলোর নিদ্রাভঙ্গ করে প্রবল উদ্দীপনাময় এক কর্মযজ্ঞর সূচনা করেন।

বিস্তারিত পড়ুন
error: Content is protected !!