ভবঘুরে কথা

ভ্রমণ

গাজীপুরের কোচ সম্প্রদায় ভ্রমণ

গাজীপুরের কোচ সম্প্রদায়

-মূর্শেদূল কাইয়ুম মেরাজ এই তো সেদিনের কথা। ঢাকা শহরের শিকারীরা লোক-লশকর, তীর-বর্শা, বন্দুক নিয়ে হাতি বা ঘোড়ায় চেপে বেরিয়ে পড়তো শিকারে। বজরায় চেপে শিকারে যাওয়ার ইতিহাসও বেশি পুরানো না। স্থানীয় জমিদারদের এই সখ এড়িয়ে যেতে পারেনি সুলতানী, এরপর মোগল শাসকরাও। ইংরেজ আমলে তো কথাই নেই। সাহেবদের এই সখের তাওয়ায় ঘি দিতে এগিয়ে এসেছিল শহরের ধনাঢ্যরা। […]

বিস্তারিত পড়ুন
রাজাবাবুর লক্ষ্মীনারায়ণ মন্দির হাজার বছর ধরে হাঁটিতেছি

রাজাবাবুর লক্ষ্মীনারায়ণ মন্দির

-মূর্শেদূল কাইয়ুম মেরাজ লক্ষ্মীবাজারে রাজাবাবুর ময়দান এলাকাতেই ছিল রাজাবাবুর বাড়ি ও মন্দির। রাজাবাবুর প্রকৃত নাম ছিল কৃষ্ণ প্রসাদ। তিনি ছিলেন ভিখন লাল পাণ্ডে নামক জনৈক ব্রাহ্মণের পৌত্র। আঠার শতকের কোন এক সময় ভিখন লাল/ভিখন ঠাকুর পাঞ্জাব রাজ্য থেকে ঢাকায় আসেন। পলাশীর যুদ্ধে তিনি ইংরেজদের নানাবিধ সাহায্য-সহযোগিতা করেন বলে জানা যায়। পরবর্তীতে ভিখন লাল কোম্পানির দেওয়ান […]

বিস্তারিত পড়ুন
রমনা কালী মন্দির হাজার বছর ধরে হাঁটিতেছি

রমনা কালী মন্দির

-মূর্শেদূল কাইয়ুম মেরাজ একসময় ঢাকায় রমনা এলাকায় ছিল দশনামী গোত্রের হিন্দুদের একটি মন্দির। সুউচ্চ চূড়া বিশিষ্ট এই মন্দিরটি আকারে খুব বেশি বড় ছিল না। ১২টি সিঁড়ি বেয়ে মন্দিরের বারান্দায় উঠতে হত। এ বারান্দার মধ্যখানে কাঠের সিংহাসনে স্থান পেত লাল পাড়ের শাড়ী পরিহিত স্বর্ণ মনি-মুক্তার অলঙ্কারে ভূষিত কষ্ঠি পাথরের কালিক ও ভদ্র কালি মূর্তি। যতীন্দ্রমোহন রায়ের ঢাকার […]

বিস্তারিত পড়ুন
ঢাকেশ্বরী মন্দির হাজার বছর ধরে হাঁটিতেছি

ঢাকেশ্বরী মন্দির

-মূর্শেদূল কাইয়ুম মেরাজ সলিমুল্লাহ হল থেকে প্রায় ৬০০ গজ দক্ষিণ-পশ্চিমে বর্তমান ঢাকার বকশিবাজার এলাকায় ঢাকেশ্বরী মন্দিরের অবস্থান। ধারণা করা হয়, এটিই ঢাকার আদি ও প্রথম মন্দির। সনাতন হিন্দু ধর্মালম্বীরা মনে করে, ঢাকেশ্বরী থেকেই ঢাকা নামের উৎপত্তি। ঢাকেশ্বরী দেবী ঢাকা অধিষ্ঠাত্রী বা পৃষ্ঠপোষক দেবী। ঢাকেশ্বরী মন্দির নির্মাণ নিয়ে ছড়িয়ে আছে নানা কিংবদন্তি। কিংবদন্তি অনুযায়ী, রাজা আদিসুর […]

বিস্তারিত পড়ুন

ঢাকার মন্দির

সনাতন ধর্মালম্বী হিন্দু সম্প্রদায়ের বসতি কবে বা কোন সময় ঢাকাতে গড়ে উঠে এ প্রশ্নের উত্তর দেয়া মুশকিল। এ যাবৎ প্রাপ্ত তথ্য মতে, ঢাকার আদি মন্দির বকশিবাজারস্থ ঢাকেশ্বরী মন্দির। এছাড়াও ঢাকায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে বহু মন্দির। ১৮৩২ সালে ঢাকার তৎকালীন ম্যাজিস্ট্রেট জর্জ হেনরি ওয়াল্টারের এক রিপোর্ট থেকে তথ্য পাওয়া যায়- তখন ঢাকায় মন্দিরের সংখ্যা ছিল ৫২টি। […]

বিস্তারিত পড়ুন
ঝলমলিয়ায় ঝলমল কি সন্ধানে যাই সেখানে

ঝলমলিয়ায় ঝলমল ও সনাতন মেলা

-মূর্শেদূল কাইয়ুম মেরাজ মৃত্যুর পর খুব কম মানুষই এমন সম্মান পায়। শিল্পী সনাতন বিশ্বাসের সমাধির সামনে দাঁড়িয়ে প্রথমে এ কথাটিই মনে এসেছিল। মানুষের ভালবাসায় সাধারণ কী করে অসাধারণে রূপ নেয় তার প্রত্যক্ষ প্রমাণ সনাতন বিশ্বাস। শিল্পে সনাতন বিশ্বাস পৃথিবীর কোন অস্বাধ্য সাধন করেনি। তৈরি করেননি কোনো ইজম। তারপরও সনাতনকে ঘিরে এতো আয়োজন কেন? কেন এই […]

বিস্তারিত পড়ুন
কোচ সম্প্রদায় কি সন্ধানে যাই সেখানে

গাজীপুরের কোচ সম্প্রদায়

-মূর্শেদূল কাইয়ুম মেরাজ এই তো সেদিনের কথা। শহরের শিকারীরা লোক-লশকর, তীর-বর্শা, বন্দুক নিয়ে হাতি বা ঘোড়ায় চেপে বেরিয়ে পড়তো শিকারে। বজরায় চেপে শিকারে যাওয়ার ইতিহাসও বেশি পুরানো না। স্থানীয় জমিদারদের এই সখ এড়িয়ে যেতে পারেনি সুলতানী, এরপর মোগল শাসকরা। ইংরেজ আমলে তো কথাই নেই। সাহেবদের এই সখের তাওয়ায় ঘি দিতে এগিয়ে এসেছিল শহরের ধনাঢ্যরা। খেতার […]

বিস্তারিত পড়ুন
বিথঙ্গল আখড়া কি সন্ধানে যাই সেখানে

বিথঙ্গল আখড়া

এই দেশেতে এই সুখ হলোআবার কোথায় যাই না জানি।পেয়েছি এক ভাঙ্গা তরীজনম গেল সেচতে পানি।। লালন সাঁইজির গানের এই লাইনগুলো খুব মনে পরছিল যখন … বাজার থেকে আমরা নদীপথে হাওরের দিকে ছুটছিলাম। শাহিন ভাই এমন এক ভাঙা নৌকা ব্যাবস্থা করছে যে নৌকায় উঠার পর আমরা বুঝতে পারছি না এই নৌকা হাওর পারি দিতে পারবে কিনা। […]

বিস্তারিত পড়ুন
কি সন্ধানে যাই সেখানে

কোথা হইতে আসে নৌকা কোথায় চলে যায়…

যতটা দেখা যায় ততটাই জল। খালি চোখে কতটা দূর পর্যন্ত দেখা যায়? হঠাৎই জানতে মন চাইলো। আগে কখনো এমন ইচ্ছে হয় নি। এই মুহূর্তে আদ্বিগন্ত জল হঠাৎই প্রশ্ন করলো খালি চোখে কতটা দূর অব্দি দেখতে পারা যায়? শরীফ বললো আকাশ পরিস্কার থাকলে নাকি সমুদ্রে সাড়ে চার কিলোমিটার পর্যন্ত দেখতে পারা যায়। তারপর জলের সঙ্গে আকাশের […]

বিস্তারিত পড়ুন
ভ্রমণ

‘গুরু দোহাই তোমার মনকে আমার লওগো সুপথে’

গত ৪ এপ্রিল রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার হাবাসপুর ইউনিয়নের চররামনগর গ্রামে মোহম্মদ ফকিরের বাড়িতে শুরু হয় সাধুসংঘের বার্ষিক অনুষ্ঠান। চররামনগর গ্রামের মোহম্মদ ফকির দীর্ঘ বিশ বছর যাবৎ তার বাড়িতে এই সাধুসংঘ পালন করে আসছেন। ছোট আকারের সাধুসংঘ ধীরে ধীরে ছড়িয়ে পড়ছে সাধুগুরু-বাউলদের কাছে। প্রতি বছরেই বেড়েছে এর ব্যাপ্তি। দূরদূরান্ত থেকে সাধুসংঘে অংশ নিতে এসেছে লালন ভক্তরা। […]

বিস্তারিত পড়ুন
error: Content is protected !!