বাউল গান সাধু ফকির বয়াতী

কি দেখে মজেছ রে মন

কি দেখে মজেছ রে মন, না দেখে ভাব কি রে।
না মজিলে হয় না ভজন,
পাবে কি রে নিরাকারে।।

নিরাকার যার নাই রে আকার,
তারে ধরা যায় কি প্রকার,
মানুষে মানুষ সাকার-
হেরে, ভ্রম-অন্ধকার গেল না রে।।

শুধু পরের কথা শুনে
কি ভাবি রে অনুমানে,
হেরি না যা বর্তমানে
কেমনে ধরবি তারে।।

অনুরাগ যার হয় রে মনে
সে কি পরের কথা শুনে।
কেবল ভ্রান্ত নরে ভ্রান্তিতে
খুঁজিছে দূরে।।

আগে মনকে শুদ্ধ কর,
দূরে নয় সে কাছে হের,
মনের ময়লা পরিষ্কার কর
আছে রে তোর অন্তরে।।

রূপ যার হ’রে নিবে মন,
ত্রিভুবনে ধন্য সে জন,
খুলে যাবে তার জ্ঞানের নয়ন,
মানুষ গুপ্তভাবে আছে হেরে।।

দেখাদেখি দেখে সবে,
অন্ধকারে থাকে ডুবে,
কান নয়নে কে দেখিবে,
পরের চোখে কি দেখতে পারে।।

রাজকৃষ্ণ কয়, হায় কি হোলো-
কাছের মানুষ হারাইলো,
যার প্রেমে, মজিলে রূপে,
তারে কেউ ধরলো না রে।।

……………………
অধ্যাপক উপেন্দ্রনাথ ভট্টাচার্যের ‘বাংলার বাউল ও বাউল গান’ গ্রন্থ থেকে এই পদটি সংগৃহিত। ১৩৬৪ বঙ্গাব্দে প্রথম প্রকাশিত এই গ্রন্থের বানান অপরিবর্তিত রাখা হয়েছে। লেখকের এই অস্বাধারণ সংগ্রহের জন্য তার প্রতি ভবঘুরেকথা.কম-এর অশেষ কৃতজ্ঞতা।

এই পদটি সংগ্রহ সম্পর্কে অধ্যাপক উপেন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য মহাশয় লিখেছেন- এই পর্যায়ের গানগুলি বীরভূম, বাঁকুড়া, মোদিনীপুর, বর্ধমান, নদীয়া, চব্বিশ পরগণা যশোহর, ফরিদপুর, মুর্শিদাবাদ প্রভৃতি জেলার নানা স্থান হইতে বিভিন্ন সময়ে সংগৃহীত এবং এই মতবাদের সাধিকা নবদ্বীপের শ্রীমতী অমিয়বালা দাসীর গানের সংগ্রহ খাতা ও ঘোষপাড়ার নিকটবর্তী মদনপুরের ফকির আকবর শাহের সংগীত সংগ্রহ খাতা হইতে গৃহীত।

…………………….
আপনার গুরুবাড়ির সাধুসঙ্গ, আখড়া, আশ্রম, দরবার শরীফ, অসাম্প্রদায়িক ওরশের তথ্য প্রদান করে এই দিনপঞ্জিকে আরো সমৃদ্ধ করুন-
voboghurekotha@gmail.com

……………………………….
ভাববাদ-আধ্যাত্মবাদ-সাধুগুরু নিয়ে লিখুন ভবঘুরেকথা.কম-এ
লেখা পাঠিয়ে দিন- voboghurekotha@gmail.com
……………………………….

প্রাসঙ্গিক লেখা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

error: Content is protected !!