ভবঘুরেকথা
আনন্দধাম সাধুসঙ্গ

পাককোলা আনন্দধামের ৪৬তম প্রতিষ্ঠা বাষির্কী উপলক্ষ্যে সাধুসঙ্গ ২০২২ খ্রি

সুধী,
জ্ঞানাবতার প্রেমসুধাকর শাহ্ সূফি দরবেশ লালন সাঁইজীর নামাশ্রয় জীবের ভরসা। তাঁরই নামসুধায় সিক্ত হওয়ার আশায় ‘পাককোলা আনন্দধামের পক্ষ থেকে এক মহতি সাধুসঙ্গের আয়াজন করিয়াছি। গুরুর কৃপায় সাধুগুরুদের চরণধুলি পাইয়া আমাদের জীবন যেন সার্থক হয় সেই প্রার্থনা করি।

সাধুসঙ্গে আপনাদের পদধুলি আমরা কামনা করিতেছি। সেইদিন সাধুসেবার সুযোগ পেয়ে যেন আমরা ধন হই, সেই কৃপাপ্রার্থী। ২৪ ঘণ্টার উক্ত অনুষ্ঠানে অধিবাস আরম্ভ ১০ জানুয়ারি ২০২২ খ্রিস্টাব্দ মোতাবেক ২৬ পৌষ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, রোজ সোমবার বিকেল ৪ ঘটিকায় এবং ১১ জানুয়ারি ২০২২ খ্রিস্টাব্দ মোতাবেক ২৭ পৌষ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ রোজ মঙ্গলবার পূর্ণসেবা গ্রহণের পর বিকেল ৪ ঘটিকায় সঙ্গের প্রহর পরিসমাপ্তি হবে।

কৃপা করে সঙ্গের পূর্ণ প্রহর আমাদের সঙ্গে থাকিয়া ধন্য করবেন, এই মিনতি রাখি। পত্রে আহ্বান ও নিমন্ত্রণ জানানোর জন্য ঘোর অপরাধী। তবে সাধু দয়াময়, মার্জনা ভিক্ষা করি।

উক্ত সাধুসঙ্গ অনুষ্ঠানে লালন সাঁইজিকে নিয়ে মত্ত সাধুগুরু এবং দেশবরেণ্য প্রখ্যাত অতিথি শিল্পীবৃন্দ উপস্থিত থাকিবেন।

বিনয়াবনত-
ফকির রফিক শাহ্ ওরফে সামসুল শাহ্
পাককোলা, দৌলতপুর, কুষ্টিয়া, বাংলাদেশ।
০১৭৩৯১৮১৮১৬

সময়:
বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টা
১০ জানুয়ারি ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
২৬ পৌষ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

স্থান:
আনন্দধাম
পাককোলা, দৌলতপুর, কুষ্টিয়া, বাংলাদেশ।

আয়োজন ও আমন্ত্রণে:
ফকির রফিক শাহ্ ওরফে সামসুল শাহ্
পাককোলা, দৌলতপুর, কুষ্টিয়া, বাংলাদেশ।

অনুষ্ঠান সূচি

২৬ পৌষ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ : ১০ জানুয়ারি ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
রোজ সোমবার

বিকেল ৩:০০-৪:০০ – সাধুবৃন্দের আগমন।
বিকেল ৪:০০-৪:৩০ – আসন গ্রহণ ও অধিবাস শুরু।
বিকেল ৪:৩০-৫:৩০ – জ্ঞান রত্নাকর ফকির লালন সাঁইজির জীবলীলা স্মরণ।
সন্ধ্যা ৬:৩০-৭:৩০ – গুরুকর্ম।
রাত ৭:৩০-৮:৩০ – দীন ডাকা ও চা-মুড়ি সেবা।
রাত ৮:৩০-৯:৩০ – দৈন্য গান।
রাত ৯:৩০-১১:৩০ – লালন সাঁইজির গীতজ্ঞানসুধা পরিবেশন (আমন্ত্রিত সাধুগুরু ও শিল্পীবৃন্দ কর্তৃক)।

২৭ পৌষ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ : ১১ জানুয়ারি ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
রোজ মঙ্গলবার

সকাল ৬:০০-৭:০০ – গোষ্ঠ গান।
সকাল ৭:০০-৭:৩০ – গুরুকর্ম।
সকাল ৮:০০-৯:০০ – বাল্য সেবা।
সকাল ৯:০০- বিকেল ৩:০০ – সঙ্গীতানুষ্ঠান।
বিকেল ৩:০০-৪:৩০ – পূণ্যসেবা।
বিকেল ৪:৩০-৫:৩০ – বিদায় প্রণাম।

সংগীত পরিবেশন করবেন:
কুষ্টিয়া-মেহেরপুরেসহ দেশের
প্রবীন সাধুগুরু ও বিশিষ্ট শিল্পীবৃন্দ

যাতায়াত

ঢাকা থেকে (বাস সার্ভিস)

সরাসরি বাসে (যমুনা সেতু দিয়ে)
গাবতলী, কল্যাণপুর ও সায়দাবাদ থেকে বাসে করে সরাসরি যাওয়া যায় কুষ্টিয়া মজমপুর গেট। সেখান থেকে মিরপুরগামী বাসে করে আমলা নামতে হবে। সেখান থেকে ভ্যানে পাককোলা আনন্দধাম আশ্রম। মজমপুর গেট থেকে মিরপুরগামী সিএনজিতে করেও আমলা যাওয়া যায়।

আধঘণ্টার মতো সময় লাগবে। সেখান থেকে ভ্যানে করে যেতে হবে পাককোলা সামসুল ফকিরের আখড়ায়। আমলায় যে কোনো ভ্যান চালককে সামসুল ফকিরের আখড়ার কথা বললেই নিয়ে যাবে।

বাস (পদ্মা পারাপার)
গাবতলী থেকে পাটুরিয়া ঘাট। সেখান থেকে লঞ্চ, স্প্রীডবোর্ড বা ফেরীতে করে পদ্মা পাড়ি দিয়ে ঐপার থেকে বাসে করে কুষ্টিয়া মজমপুর গেট। ঢাকা একশত পঞ্চাশ টাকা। সেখান থেকে মিরপুরগামী বাসে করে আমলা নামতে হবে। সেখান থেকে ভ্যানে পাককোলা আনন্দধাম আশ্রম। মজমপুর গেট থেকে মিরপুরগামী সিএনজিতে করেও আমলা যাওয়া যায়।

গাবতলী থেকে সেলফী, পদ্মা লাইন, নীলাচল গাড়ি যায় সরাসরি আরিচা ঘাট আর ঐ পার থেকে পদ্মা গড়াই গাড়ি যায় কুষ্টিয়া। ভাড়া একশ টাকা।

ট্রেন সার্ভিস
পাটুরিয়া দিয়ে পদ্মা পাড়ি দিয়ে দুপুর দুইটার সময় ধরতে পারেন রাজশাহী গামী ট্রেন মধুমতি এক্সপ্রেস। মধুমতি এক্সপ্রেসে করে নামতে হবে মিরপুর স্টেশনে। ভাড়া একশ ছয় টাকা। সেখান থেকে ভ্যানে আমলা। আমলা থেকে পাককোলা।

……………………

২০২২ সালে অনুষ্ঠিত সাধু-গুরু-পাগল-ভক্ত-আশেকানদের ঘিরে আয়োজিত অনুষ্ঠান-উৎসবের বার্তা জানতে ভবঘুরেকথা.কম-এর সাধু পঞ্জিকার দিনপঞ্জি দেখুন এই লিংক-এ- সাধু পঞ্জিকার দিনপঞ্জি

…………………….

আপনার গুরুবাড়ির সাধুসঙ্গ, আখড়া, আশ্রম, দরবার শরীফ, অসাম্প্রদায়িক ওরশের তথ্য প্রদান করে এই দিনপঞ্জিকে আরো সমৃদ্ধ করুন- voboghurekotha@gmail.com

……………………………….
ভাববাদ-আধ্যাত্মবাদ-সাধুগুরু নিয়ে লিখুন ভবঘুরেকথা.কম-এ
লেখা পাঠিয়ে দিন- voboghurekotha@gmail.com
……………………………….

…………………………..
আরো পড়ুন:
মাই ডিভাইন জার্নি : এক :: মানুষ গুরু নিষ্ঠা যার
মাই ডিভাইন জার্নি : দুই :: কবে সাধুর চরণ ধুলি মোর লাগবে গায়
মাই ডিভাইন জার্নি : তিন :: কোন মানুষের বাস কোন দলে
মাই ডিভাইন জার্নি : চার :: গুরু পদে মতি আমার কৈ হল
মাই ডিভাইন জার্নি : পাঁচ :: পাপীর ভাগ্যে এমন দিন কি আর হবে রে
মাই ডিভাইন জার্নি : ছয় :: সোনার মানুষ ভাসছে রসে
মাই ডিভাইন জার্নি : সাত :: ডুবে দেখ দেখি মন কীরূপ লীলাময়
মাই ডিভাইন জার্নি : আট :: আর কি হবে এমন জনম বসবো সাধুর মেলে
মাই ডিভাইন জার্নি : নয় :: কেন ডুবলি না মন গুরুর চরণে
মাই ডিভাইন জার্নি : দশ :: যে নাম স্মরণে যাবে জঠর যন্ত্রণা
মাই ডিভাইন জার্নি : এগারো :: ত্বরাও গুরু নিজগুণে
মাই ডিভাইন জার্নি : বারো :: তোমার দয়া বিনে চরণ সাধবো কি মতে
মাই ডিভাইন জার্নি : তেরো :: দাসের যোগ্য নই চরণে
মাই ডিভাইন জার্নি :চৌদ্দ :: ভক্তি দাও হে যেন চরণ পাই

মাই ডিভাইন জার্নি: পনের:: ভক্তের দ্বারে বাঁধা আছেন সাঁই
মাই ডিভাইন জার্নি : ষোল:: ধর মানুষ রূপ নেহারে
মাই ডিভাইন জার্নি : সতের:: গুরুপদে ভক্তিহীন হয়ে
মাই ডিভাইন জার্নি : আঠার:: রাখিলেন সাঁই কূপজল করে
মাই ডিভাইন জার্নি :উনিশ :: আমি দাসের দাস যোগ্য নই
মাই ডিভাইন জার্নি : বিশ :: কোন মানুষের করি ভজনা
মাই ডিভাইন জার্নি : একুশ :: এসব দেখি কানার হাটবাজার

Related Articles

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

error: Content is protected !!