জালাল উদ্দিন খাঁ

এ বিশ্ব বাগানে সাঁই নিরঞ্জনে

এ বিশ্ব বাগানে সাঁই নিরঞ্জনে
মানুষ দিয়া ফুটাইল ফুল, এ বিশ্ব বাগানে।।

আদমকে নিষেধ করে গন্দম খেওনা
গন্দমকে হুকুম দিল পিছু ছেড়না
বুজিতে আজ তাঁর বাহানা সংসারে এই গন্ডগোল।।

যে গন্দম খেয়ে আদম হইল গোনাগার
আজ পর্যন্ত আমারা সবে করতেছি আহার
হজরত আদম হাওয়া- সেই গন্দম এই হলো কথার মুল।।

হাওয়া গন্দম ছিঁড়ে যখন বেহেস্তেখানায়
তিন ফোঁটা খুনজারি তখন হইয়া যায়
এক ফোঁটা দিয়া মানুষ গড়িয়া ভরেছে দুনিয়ায় কোল।।

গন্দমেরর আঁঠা দিয়ে বানায়ে লাল কালি
ছাপাখানার ঘরে কোরান দিতেছে তালি
আসল যদি বলি মুনসি-মোল্ল বলবে বাতুল।।

গন্দমের বাহানা করে পাঠায় সংসারে
মানুষ দিয়া মানুষ বানায় মানুষের ঘরে
কোরান ছাপায় কোরান ধরে লাগছে বিষম হুলস্থুল।।

কবি জালাল উদ্দীন ভাবতে ভাবতে হয়ে পেরেশান
গন্দম গাছের তলে গেল পাইয়া ময়দান
গিয়া সেথায় পরিয়া ঘুমায়, নেশার ঝোঁকে ভাঙেনা ভুল।।

প্রাসঙ্গিক লেখা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!