বিজয় সরকার

ও বউ সরষে কোট

ও বউ সরষে কোট
বিমনা বনের পাখি রে কেন তুই ডাকিস অমন করে।
ও তুই কি হারায়ে ডেরেক ফিরিস
সারা জীবন ভরে।।

গ্রীষ্মকালে সরষে ভিজায়ে কোন্ সে কূলের বউ
কালের ডাকে চলে গেলো সে ফিরাতে নারিলেো কেউ;
তার ভিজানো সরষে রয়েছে পড়িয়া আর আছে ঢেঁকি নোট
তাই বুঝি পাখি কাঁদিয়া ফিরেছে ও বউ সরসে কোট-
ও তার ব্যাকুল চোখের জলের ফোট
পাতার ঠোঁটে ঝরে।।

অতীত যুগের বিগত কাহিনী চলে গেছে কতো দূরে
ও তার স্মৃতির বেদনগীতিকা আজো পাখিল কণ্ঠসুরে;
সারা বিশ্বে সাড়া দিযে যায় বিরহ করুন তানে
চলে যাওয়া দিনের ছবি আবার জাগায়ে তোলে প্রাণে-
ও তোর কি যেন কি আছে গানে
হৃদয় বিদারে।।

বিহর মিলনে গড়েছে বিধাতা বিশ্বচরাচর
ও তারই মাঝে বাঁধে মানুষ হাসি-কান্নার ঘর;
কেউ বা ভাসে অকূলেতে কেউবা পেলো কূল
কেউ বা পেলো কাঁটার জ্বালা কেউবা পেলো ফুল-
কারো ভেঙ্গে যায় আশা বৃক্ষের মূল
কাল বৈশাখীর ঝড়ে।।

কতো বিরহির মরমের বাণী ঘুরে মরে আকাশে
কোন বিরহীর দীর্ঘশ্বাস মিলে আছে বাতাসে;
কতো করুণ আঁখির বারি ভেসে বেড়ায় জলস্রোতে
বিশ্ব আছে দৃশ্য লয়ে তার ভাঙ্গাগড়া ব্রতে-
পাগল বিজয়ের বুকের পরতে
দু:খের হাওয়া ঘোরে।।

প্রাসঙ্গিক লেখা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!