ফকির লালন শাহ্

কারে বলছো মাগী মাগী

কারে বলছো মাগী মাগী।
সে বিনে এড়াতে পারে
কোন সে মহাযোগী।।

ব্রহ্মা বিষ্ণু শিব নারায়ণে
ম’লো মাগীর বোঝা টেনে,
তাই না দেখে আনলোকে সব
বাঁধাইছে ঠকঠকি।।

মাগীর দায়ে নন্দের বেটা
হয়ে গেলো লেটাবেটা,
মাগীর দায়ে মুড়িয়ে মাথা
হালসে বেহাল যোগী।।

ভোলা মহেশ্বর মাগীর দাসী
তাইতে শিব শ্মশানবাসী,
সিরাজ সাঁই কয় লালন কিসি
তোর এতো পদবী।।

এই পদটির আরেকটি সংস্করণ পাওয়া যায়- 

যারে বলছ মাগী মাগী।
সে ঘাট এড়াতে পারে সে মহা বৈরাগী।।

মাগীর দায় নন্দের বেটা
হালছে বেহাল গলে কেঁথা,
উদাসীনে মুড়িয়ে মাথা
ফিরছে হয়ে যোগী।।

মাগীর প্রেমে চণ্ডীদাসে
বিকালে রজকীর পাশে,
মরিয়ে জীবন পায় সে
হয়ে শুদ্ধ অনুরাগী।।

দেবের দেব সে বিরধি কালী
মাগির দায় শ্মশানবাসী,
লালন কয় সে আউলেকেশী
বুকে পা দিয়ে কিসের লাগি।।

প্রাসঙ্গিক লেখা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!