মতুয়া সংগীত

সাধ ছিল যাব

সাধ ছিল যাব ঐ গৌর ঘাটে।
কপাল গুণে ঘটে, ঐ কপালে, কই ঘটে।।

মানুষের আগমনে, প্রেম বন্যের বহে স্রোত,
কি হিন্দু কি যবন ভাসায় জগত
হয়ে সে বন্যের চলাচল, ভেসে যায় নীলাচল,
আমার মনাচল, শীতল হ’ল না, জ্বলে যায় ত্রিতাপ উঠে।।

মানুষ বিরজার পর ছিল, সে বিরজার কুলে
গোকুল মজায় এসেছে এ কুল,
আগে মজায় কুলজার কুল, কত বা উচ্চকুল
কুলে রয় না কুল, শুধু কুল যায় না কলঙ্ক রটে।।

পাড়ায় আটকুঁড়িয়া আমায় মন্দ কয় জুটে,
আমার যাওয়া হবে না সই সেই ঘাটে
আমার ঘরের কেউ ভাল নয়, পরের দোষ দিব কায়
দুঃখে দহে কায়, গুরুজনার ভয়, কইতে নারি বুক ফাটে।।

পূজতেম মঙ্গলচণ্ডী, বিষহরি এ দেশে।
তাদের ভাসালে গৌর আমার প্রেম রসে।।
আমার হবে কি মঙ্গল জয়, পুণ্যের কি হবে ক্ষয়
হবে ধর্মের ক্ষয়, থাকতে পুণ্যের লেশ, প্রেম প্রাপ্তি, নাহি ললাটে।।

ও সে ঘাটের রাজা গুরুচাঁদ বসে তটে
লোভী কামীদের যেতে দেয় না তার নিকটে,
গোঁসাই গোলকচাঁদ ডাকে আয় কে যাবি ত্বরায়
সময় বয়ে যায়, কেবল তারকের যেতে সাধ্য নাই মোটে।।

প্রাসঙ্গিক লেখা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!