শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর ১০৮ নাম

শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর ১০৮ নাম

শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর ১০৮ নাম-

জয় জয় গৌরহরি জয় কৃপাসিন্ধু।
জয় জগন্নাথ-সুত জয় দীনবন্ধু।
জয় শ্রীচৈতন্য জয় গৌরসুন্দর।
সর্বজনে কর কৃপা করূনাসাগর।
বিষ্ণুপ্রিয়া প্রাণধন শ্রীশচীনন্দন।
কালভয়হারী প্রভু কমলনয়ন।
সংকীর্তন -জন্মদাতা শ্রীকৃষ্ণ চৈতন্য।
সংকীর্তন যজ্ঞে যেই ভজে সেই ধন্য।
চৈতন্যাবতারে বহে প্রেমামৃত বন্যা।
সর্বজীব প্রেমে ভাসে ধরা হল ধন্যা।
এ বন্যায় যে না ভাসে সেইজন ছার।
কোটি কল্পে তবে তার নাহিক নিস্তার।
নামী হতে নাম বড় সর্বশাস্ত্রে কয়।
তাই সদা নাম কর না রেখে সংশয়।

১. শচীমাতা নাম রাখে প্রাণের নিমাই।
২. অদ্বৈত রাখিল নাম জগৎ গোসাঁই।
৩. সীতাদেবী নাম রাখে অজ্ঞান-নাশন।
৪. মালিনী রাখিল নাম জীবের জীবন।
৫. শ্রীবাস রাখিল নাম দারিদ্রভঞ্জন।
৬. ঈশান রাখিল নাম কাঙ্গালের ধন।
৭. নিত্যানন্দ নাম রাখে মহানন্দদাতা।
৮. রত্নগর্ভ নাম রাখে প্রভুপ্রেমদাতা।
৯. গদাধর নাম রাখে গদাধরপ্রাণ।
১০. গোপীনাথ নাম রাখে শৃঙ্খলমোচন।
১১. নীলাম্বর নাম রাখে দেববিশ্বম্ভর।
১২. কেশব কাশ্মীরী নাম রাখে শ্রুতিধর।
১৩. শ্রীরূপ রাখিল নাম রূপের জীবন।
১৪. সনাতন নাম রাখে নিত্য-সনাতন।
১৫. শ্রীজীব রাখিল নাম ভকত-বৎসল।
১৬. গোপাল ভট্ট নাম রাখে দুর্বলের বল।
১৭. নারদ রাখিল নাম অবতার-সার।
১৮. ত্রিপুরারি নাম রাখে গোরা-অবতার।
১৯. পদ্মযোনি নাম রাখে অনাদির আদি।
২০. অনুপম নাম রাখে সর্বগুণ নিধি।
২১. মুরারি রাখিল নাম ভক্তের জীবন।
২২. নন্দন আচার্য বলে ভুবনমোহন।
২৩. লক্ষীপ্রিয়া নাম রাখে প্রভুপ্রাণপতি।
২৪. মুকুন্দ রাখিল নাম অগতির গতি।
২৫. শ্রীধর রাখিল নাম গঙ্গার জনক।
২৬. চাপাল রাখিল নাম রোগ-বিনাশক।
২৭. নিস্তারিণী নাম রাখে দুর্জন দলন।
২৮. কালাকৃষ্ণ বলে ভক্ত-উদ্ধারন।
২৯. তৈর্থিক ব্রাহ্মন বলে অষ্টভুজহরি।
৩০. গৌরীদাস নাম রাখে ভবেরকাণ্ডারী।
৩১. পুণ্ডরীক নাম রাখে জগতের গুরু।
৩২. বৈষ্ণবেরা নাম রাখে বাঞ্ছাকল্পতরু।
৩৩. চাঁদকাজী নাম রাখে সত্যের দিশারী।
৩৪. নরহরি নাম রাখে প্রেমের ভাণ্ডারী।
৩৫. হরিদাস নাম রাখে পরম মঙ্গল।
৩৬. রামানন্দ নাম রাখে চিত্ত-বিমোহন।
৩৭. গরুড় পণ্ডিত বলে সর্পভয়হারী।
৩৮. ঈশ্বর পুরী নাম রাখে কৃষ্ণ-অবতারী।
৩৯. রঘুনাথ দাস বলে হ্নদয়ের ধন।
৪০. সার্বভৌম নাম রাখে গর্ববিনাশন।
৪১. শ্রীরাম রাখিল নাম পরম প্রকাশ।
৪২. গঙ্গাধর নাম রাখে কর্মবদ্ধনাশ।
৪৩. জগদানন্দ নাম রাখে ক্রোধ-নিবারন।
৪৪. বলভদ্র নাম রাখে জীবউদ্ধারন।
৪৫. ছোট হরিদাস নাম রাখে দণ্ডকারী।
৪৬. নদেবাসী নাম রাখে নদীয়াবিহারী।
৪৭. অমোঘ রাখিল নাম প্রভুপ্রাণদাতা।
৪৮. শ্রীকান্ত রাখিল নাম সর্বচিত্তজ্ঞাতা।
৪৯. প্রদ্যুম্ন রাখিল নাম নৃসিংহাবতার।
৫০. বিদ্যাবাচস্পতি নাম রাখে সারাৎসার।
৫১. নারায়ণী নাম রাখে প্রভুপ্রাণধন।
৫২. তপন মিশ্র নাম রাখে ভকতরঞ্জন।
৫৩. সুবুদ্ধি রাখিল নাম প্রভুবুদ্ধিদাতা।
৫৪. গঙ্গাদাস নাম রাখে হরিনামদাতা।
৫৫. প্রতাপরুদ্র নাম রাখে অভিলাষ-পুন্যকারী।
৫৬. স্বরূপ রাখিল নাম প্রভু আজ্ঞাকারী।
৫৭. নীলাচলবাসী নাম রাখে জগন্নাথ।
৫৮. ভবানন্দ নাম রাখে অনাথের নাথ।
৫৯. বক্রেশ্বর নাম রাখে নাচনের গুরু।
৬০. শুক্লাম্বর নাম রাখে ভক্তিকল্পতরু।
৬১. গোবিন্দ রাখিল নাম হ্নদয়বিহারী।
৬২. সদাশিব নাম রাখে ভবভয়হারী।
৬৩. গদাধর দাস কহে কাজী-উদ্ধারন।
৬৪. গোবর্দ্ধন নাম রাখে সংসার মোচন।
৬৫. চন্দ্রশেখর নাম রাখে দেবজ্যোতির্ময়।
৬৬. প্রকাশানন্দ নাম রাখে জগৎ-বিজয়।
৬৭. শিবানন্দ নাম রাখে ভক্তগনপ্রাণ।
৬৮. পুরন্দর নাম রাখে পুরুষ-প্রধান।
৬৯. সনাতন মিশ্র বলে অকলঙ্কচন্দ্র।
৭০. কাশীমিশ্র নাম রাখে ঈশ্বর-স্বতন্ত্র।
৭১. জগাই রাখিল নাম পতিতপাবন।
৭২. মাধাই রাখিল নাম পাপী-উদ্ধারণ।
৭৩. বাসুদেব নাম রাখে ব্যাধি-নিবারণ।
৭৪. রামাই রাখিল নাম কমললোচন।
৭৫. বিষ্ণুপ্রিয়া নাম রাখে ত্রিলোকের স্বামী।
৭৬. ছাত্রগণ বলে অধ্যাপক-শিরোমণি।
৭৭. বুদ্ধিমন্ত নাম রাখে নবদ্বীপচন্দ্র।
৭৮. মুকুন্দ সঞ্জয় বলে পুরুষ-স্বতন্ত্র।
৭৯. নারায়ণ পণ্ডিত বলে নরনারায়ণ।
৮০. ভট্ট রঘুনাথ বলে কৃষ্ণপ্রেমধন।
৮১. বিদ্যানিধি নাম রাখে গৌরাঙ্গসুন্দর।
৮২. ভবানী রাখিল নাম সর্বযজ্ঞেশ্বর।
৮৩. পরমানন্দ পুরী নাম রাখে পরাৎপর।
৮৪. শঙ্কর পণ্ডিত বলে কাঙাল-ঈশ্বর।
৮৫. মাধবীদাসী নাম রাখে করুণাবতার।
৮৬. গোপীনাথ বলে জীবের নিস্তার।
৮৭. রঘুপতি নাম রাখে ভকত-আশ্রয়।
৮৮. কাশীশ্বর নাম রাখে প্রভু দয়াময়।
৮৯. সারঙ্গ রাখিল নাম দর্পচুর্নকারী।
৯০. ব্রহ্মানন্দ নাম রাখে গর্বনাশীহরি।
৯১. জ্যোতিষী রাখিল নাম জগৎ-আশ্রয়।
৯২. রাঘব রাখিল নাম সবৈশ্বর্যময়।
৯৩. কন্যাগণ নাম রাখে প্রভুবরদ্দাতা।
৯৪. হিরণ্য রাখিল নাম সর্বসিদ্ধিদাতা।
৯৫. শিখি মাইতি নাম রাখে অখিলেরপতি।
৯৬. বাসুঘোষ নাম রাখে আত্মার সাবথী।
৯৭. মাথুর ব্রাহ্মণ বলে জগৎউদ্ধার।
৯৮. লোকনাথ নাম রাখে পাপীর নিস্তার।
৯৯. ভক্তগণ নাম রাখে ঠাকুরদয়াল।
১০০. শচীর সখীরা বলে শচীর দুলাল।
১০১. পুরনারী নাম রাখে রমনীমোহন।।
১০২. দুঃখীদাসী নাম রাখে দুঃখনিবারণ।
১০৩. শ্রীমান রাখিল নাম মহাভাগবত।
১০৪. রামদাস বলে বাসুদেবামৃতপদ।
১০৫. কেশব ভারতী বলে শ্রীকৃষ্ণচৈতন্য।
১০৬. কালীদাস নাম রাখে বৈষ্ণবাগ্রগন্য।
১০৭. সজ্জনেরা নাম রাখে পরম ঈশ্বর।
১০৮. দুর্জ্জনেরা নাম রাখে মহাভয়ঙ্কর।

গৌরনাম নিতাই নাম বড়ই মধুর।
যেইজন গৌরাঙ্গ ভজে সে বড় চতুর।
নাম ভজ নাম চিন্ত নাম কর সার।
কলিযুগে নাম বিনা গতি নাই আর।।

গৌরনাম হৈতে হয় সংসার মোচন।
গৌর নাম হৈতে পায় গৌরাঙ্গচরন।
নাম বিনা কলিকালে আর নাই ধর্ম।
সর্বমন্ত্র সার নাম এই শাস্ত্রমর্ম।।

ছাড়িয়া সংসার শোক করহ কীর্তন।
প্রেমসুখে কর যাবে ভবের বন্ধন।
কীর্তন আগমবেদ হয় ব্রহ্মজ্ঞান।
রাজসূয় অশ্বমেধ আর গঙ্গাস্নান।।

কীর্তন বৈকুণ্ঠপদ সর্বপাপক্ষয়।
কীর্তন রসের ভক্তি সর্বস্থানে জয়।
শত ভার সুবর্ন গো কোটি কন্যাদান।
জপ তপ কেহ নয় নামের সমান।।

দান ব্রত তপ শৌচ বেদ-অধ্যয়ন।
গৌরাঙ্গভজন বিনা ভাই সব অকারণ।
গৌরাঙ্গভজনে হয় সবে অধিকারী।
কিবা বিপ্র কিবা শূদ্র কি পুরুষ নারী।।

একান্ত সরলভাবে ভজ গৌরজন।
তবে পাইবে ভাই শ্রীকৃষ্ণচরন।
গৌরজন সঙ্গ কর গৌরাঙ্গ বলিয়া।
নিত্যানন্দ নাম বল নাচিয়া নাচিয়া।।

অচিরে পাইবে ভাই নামপ্রেমধন।
যাহা বিলাইতে প্রভুর নদে আগমন।
এক মনে গাও সদা চৈতন্যের নাম।
সদা শান্তি পাবে আর জুড়াইবে প্রাণ।।

গৌরনাম গায় কিংবা করয়ে শ্রবণ।
অন্তিমে সেজন পায় গৌরাঙ্গচরন।
দীন ভক্তদাস গৌরহরির কৃপায়।
তাঁরই সুধামাখা নাম প্রেম ভরে গায়।।

……………….
আরো পড়ুন:
আল্লাহর ৯৯ নাম
বুদ্ধের ২৮ নাম
মহাদেবের ১০৮ নাম
শ্রীকৃষ্ণের ১০৮ নাম
মা দুর্গার ১০৮ নাম
মা কালীর ১০৮ নাম
মা লক্ষ্মীর ১০৮ নাম
মা সরস্বতীর ১০৮ নাম
শ্রীশ্রী নৃসিংহদেবের ১০৮ নাম
শ্রীশ্রী গণেশের ১০৮ নাম
শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর ১০৮ নাম
প্রভু জগদ্বন্ধু সুন্দরের ১০৮ নাম
লোকনাথ বাবার ১০৮ নাম

শ্রী রামকৃষ্ণ ১০৮ নাম
শ্রীশ্রীমা সারদার ১০৮ নাম
শ্রীশ্রী বামাক্ষ্যাপার ১০৮ নাম

প্রাসঙ্গিক লেখা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!