কথামালা বাউল ফকির সাধু

কিবা দুলিছে ভুবনমোহন

কিবা দুলিছে ভুবনমোহন!
মম দ্বাদশ কমল দোলায়
কমলিনী সনে কমল নয়ন।।

প্রেম-পবনে দোলাইছে দোলা,
দেখরে মানস অপরূপ লীলা,
যেন অচলে চপলা,
কোলে করি’ করে খেলা,
নবীন নীরদ প্রেমে নিমগন।।

মদনমোহন নিরখি নয়নে
প্রেমেতে কালিন্দী বহিছে উজানে,
কুলু কুলু রবে সরস্বতী-সনে,
সুরধুনী-সনে হ’য়ে নিমগন।।

প্রেমাবেশে দিগম্বর-দিগম্বরী
নাচিছে, বলিছে হরি হরি হরি
শ্রীরাধা-গোবিন্দ, মুকুন্দ-মুরারি,
জয় যদু-রাণী লক্ষ্মী-নারায়ণ।।

ছিল যে কামাদি অরাতি ছ’জন,
তারা সবে মিত্রভাব করেছে ধারণ,
তারা শঠতা ত্যজিয়ে মন প্রাণ দিয়ে
ও রাঙা চরণে লয়েছে শরণ।।

দ্বিদলে ত্রিবেণী-মহাতীর্থধামে
শশাঙ্কশেখর গৌরী ল’য়ে বামে
নিরখি নয়নে সেই রাধাশ্যামে
আনন্দ-সলিলে ভাসে অনুক্ষণ।।

মূলাধারে চতুর্দল পদ্ম-’পরে
সাপিনী নিদ্রিত ছিল নতশিরে,
দোলেরি গোলেতে জাগিয়া শিহরি’
উচ্চমুখে প্রেমে করে নিরীক্ষণ।।

দীনরাম বলে পূর্ণিমার দিনে,
যতনে গোপনে অন্তর-নয়নে
হেরিলে এ-দোল জনমে মরণে
অজয়ে জানিতে পারে সর্বজন।।

……………………
অধ্যাপক উপেন্দ্রনাথ ভট্টাচার্যের ‘বাংলার বাউল ও বাউল গান’ গ্রন্থ থেকে এই পদটি সংগৃহিত। ১৩৬৪ বঙ্গাব্দে প্রথম প্রকাশিত এই গ্রন্থের বানান অপরিবর্তিত রাখা হয়েছে। লেখকের এই অস্বাধারণ সংগ্রহের জন্য তার প্রতি ভবঘুরেকথা.কম-এর অশেষ কৃতজ্ঞতা।

এই পদটি সংগ্রহ সম্পর্কে অধ্যাপক উপেন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য মহাশয় লিখেছেন- এই পদটি সংগ্রহ সম্পর্কে অধ্যাপক উপেন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য মহাশয় লিখেছেন- বর্ধমান জেলার বেতালবন গ্রামের বাউল সমাবেশ হইতে বিশেষভাবে সংগৃহিত-

…………………….
আপনার গুরুবাড়ির সাধুসঙ্গ, আখড়া, আশ্রম, দরবার শরীফ, অসাম্প্রদায়িক ওরশের তথ্য প্রদান করে এই দিনপঞ্জিকে আরো সমৃদ্ধ করুন-
voboghurekotha@gmail.com

……………………………….
ভাববাদ-আধ্যাত্মবাদ-সাধুগুরু নিয়ে লিখুন ভবঘুরেকথা.কম-এ
লেখা পাঠিয়ে দিন- voboghurekotha@gmail.com
……………………………….

প্রাসঙ্গিক লেখা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

error: Content is protected !!