কৃষ্ণ রাধা ব্রজলীলা প্রেম কালা বৃন্দাবন

।। তথা রাগ।।

ঠাকুর বৈষ্ণবগণ করোঁ এই নিবেদন
মো বড় অধম দুরাচার।
দারুণ সংসার নিধি তাহে ডুবাওল বিধি
চুলে ধরি মোরে কর পার।।

বিধি বড় বলবান না শুনে ধরম-জ্ঞান
সদাই করম-ফাঁসে বান্ধে।
না দেখোঁ তারণ-লেশ যত দেখোঁ সব ক্লেশ
অনাথ কাতরে তেঞি কান্দে।।

কাম ক্রোধ লোভ মোহ মদ অভিমান সহ
আপন আপন স্থানে টানে।
আমার ঐছন মন ফিরে যেন অন্ধ-জন
সুপথ বিপথ নাহি মানে।।

না লইলুঁ সত-মত অসতে মজিল চিত
তুয়া পায়ে না করিলুঁ আশ।
নরোত্তম দাস কয় দেখ্যা শুন্যা লাগে ভয়
এই বার তরাইয়া লেহ পাশ।।

……………………
এই পদটি আনুমানিক ১৭৫০ সালে, বৈষ্ণবদাস (গোকুলানন্দ সেন) সংকলিত এবং সতীশচন্দ্র রায় সম্পাদিত শ্রীশ্রীপদকল্পতরু গ্রন্থের ১৩৩৪ বঙ্গাব্দের (১৯২৭ সাল) ৪র্থ খণ্ড, ৪র্থ শাখা-২য় ভাগ, ৩৬শ পল্লব, প্রার্থনা, ৩০৯৪-পদসংখ্যায় এইরূপে দেওয়া রয়েছে। “পদামৃত সমুদ্র’ পুথিতে এই পদটি “দাস লোচন”-এর ভণিতায় রয়েছে। সেই রূপটি শেষে দেওয়া হয়েছে।

……………………………….
ভাববাদ-আধ্যাত্মবাদ-সাধুগুরু নিয়ে লিখুন ভবঘুরেকথা.কম-এ
লেখা পাঠিয়ে দিন- [email protected]
……………………………….

প্রাসঙ্গিক লেখা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!