ফকির লালন

ফকির লালনের বাণী : সাধকদেশ :: ষোল

ফকির লালনের বাণী : সাধকদেশ

৭৫১.
সিরাজ সাঁই দরবেশের বাণী
বুঝবি লালন দিনমণি।

৭৫২.
ভক্তিহারা ভাবুক যিনি
সে কি পাবে গুরুপদ।

৭৫৩.
নাম পাড়ালাম রসিক ভেয়ে।
না জেনে সেই রসের ভিয়ান
মরতে হলো গরল খেয়ে।

৭৫৪.
গোঁসাই’র লীলা চমৎকারা
বিষেতে অমৃত পোরা।

৭৫৫.
অসাধ্যকে সাধ্য করা
ছুঁলে বিষ ওঠে ধেয়ে।

৭৫৬.
দুগ্ধে যেমন থাকে ননী
ভিয়ানে বিভিন্ন জানি।

৭৫৭.
সুধামৃত রস তেমনই
গরলে আছ ঢাকিয়ে।

৭৫৮.
দুগ্ধ জলে যদি মিশায়
রাজহংস হলে বেছে খায়।

৭৫৯.
প্রেম যমুনায় ফেলবি বড়শি খবরদার।
লয়ে গুরুমন্ত্র ছেড়ে যন্ত্র ঠিক হয়ে বয় ঘাটের পর।

৭৬০.
পাকিয়ে রাগের সূতা ছয়তারে করি একতা
ভবের টোপ গেঁথে দাও সেথা
নিচে সাড়া পেলে পরে উঠবে ভেসে একান্তর।

৭৬১.
সেই নদীপুরা জল সদা করতেছেরে কলকল
রাগের ছড়ি ছিপের বাড়ি খেলে যাবি রসাতলে
কতো রসিক জেলে জাল ফেলে প্রাণ লয়ে দিচ্ছে সাঁতার।

৭৬২.
যেতে দেখ নদীর কূল তুই হবি ব্যাকুল
ট্যাপায় নিবে আধার কেটে হবি নামকুল
লালন বলে যেমন আমার ভ্যাদায় করছে রুই আহার।

৭৬৩.
স্বরূপ রূপে নয়ন দেরে।
দেখবি সে রূপ
কেমন স্বরূপ ঝলক মারে।

৭৬৪.
স্বরূপ বিনে রূপটি দেখা
সে কেবল মিথ্যে ধোঁকা।

৭৬৫.
স্বরূপের নাই লেখাজোখা
স্বরূপ শক্তি সাধন দ্বারে।

৭৬৬.
মনমোহিনীর মনোহরা রূপ
নররূপেতে তাহার স্বরূপ।

৭৬৭.
যে জানো সে থাকরে চুপ
বলতে নাই ভেদ যারে তারে।

৭৬৮.
স্বরূপে যাঁর আছে নয়ন
তাঁরে কি ছুঁতে পারে শমন।

৭৬৯.
সিরাজ সাঁই বলেরে লালন
রূপ ভুলিলে পড়বি ফ্যারে।

৭৭০.
রূপে রূপ আছে গিলটি করা।
রূপ সাধন করল স্বরূপ নিষ্ঠা যারা।

৭৭১.
রূপ বললে যদি হয় রূপ সাধন
তবে কি ভয় ছিল মন।

৭৭২.
শতদল সহস্রদলে
রূপ স্বরূপে ভাটা খেলে,
ক্ষণেক রূপ রয় নিরালে
নিরাকারে।

৭৭৩.
আসবে বলে স্বরূপ মণি
থাকগে বসে ভাব ত্রিবেণী,
লালন কয় সামাল ধনী
সেই কিনারা।

৭৭৪.
সে রূপ দেখবি যদি নিরবধি
সরল হয়ে থাক।

৭৭৫.
আয় না চলে ঘোমটা ফেলে
নয়ন ভরে দেখ।

৭৭৬.
সরলভাবে যে তাকাবে
অমনি সে রূপ দেখতে পাবে।

৭৭৭.
রূপেতে রূপ মিশে যাবে
ঢাকনি দিয়ে ঢাক।

৭৭৮.
চাতক পাখির এমনি ধার
অন্য বারি খায় না তারা।

৭৭৯.
প্রাণ থাকিতে জ্যান্তে মরা
ঐরূপ ডালে বসে ডাক।

৭৮০.
ডাকতে ডাকতে রাগ ধরিবে
হৃদকমল বিকশিত হবে।

৭৮১.
যে-জন দেখেছে অটল রূপের বিহার।
মুখে বলুক কিবা না বলুক সে থাকে ঐ রূপ নিহার।

৭৮২.
নয়নে রূপ না দেখতে পায়
নাম মন্ত্র জপিলে কী হয়।

৭৮৩.
নামের তুল্য নাম পাওয়া যায়
রূপ তুল্য আছে কার।

৭৮৪.
নেহারে গোলমাল হ’লে
পড়বি কুজনার ভোলে।

৭৮৫.
ধরবি কারে গুরু বলে
তরঙ্গ মাঝার।

৭৮৬.
স্বরূপ রূপ রূপের ভেলা
ত্রিজগতে করছে খেলা।

৭৮৭.
অন্তরে যার সদাই সহজরূপ জাগে।
সে নাম বলুক না বলুক মুখে।

৭৮৮.
যাহার উৎপত্তি সংসার
নামের অন্ত নাহিকো তার।

৭৮৯.
বলুক যে নাম ইচ্ছা হয় যার
নাম বলে যদি রূপ দেখে।

৭৯০.
যে নেয় গুরুরূপ আশ্রি
ভুবন জুড়ে ভোলায় তারি।

৭৯১.
ধন্য তাহার রূপ নিহারি
রূপ দেখে রয় ঠিক রাগে।

৭৯২.
নামের চেয়ে রূপ নিহারা
সর্বজয় সাধক তারা।

৭৯৩.
আমার ঘরের চাবি পরের হাতে।
কেমনে খুলিয়ে সে ধন দেখব চক্ষেতে।

৭৯৪.
আপন ঘরে বোঝাই সোনা
পরে করে লেনাদেনা।

৭৯৫.
আমি হলাম জন্মকানা
না পাই দেখিতে।

৭৯৬.
রাজি হলে দারোয়ানী
দ্বার ছাড়িয়া দিবেন তিনি।

৭৯৭.
তারে কই বা চিনি জানি
বেড়াই কুপথে।

৭৯৮.
এই মানুষে আছে রে মন
যারে বলে মানুষরতন।

৭৯৯.
ফকির লালন বলে পেয়ে সে ধন
না পাই চিনিতে।

৮০০.
খুঁজে ধন পাই কী মতে পরের হাতে ঘরের কলকাঠি,
আবার শতেক তালা আঁটা ঘরের মালকুঠি।

প্রাসঙ্গিক লেখা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!