ভবঘুরে কথা

সাধুগুরু

দরবেশ লালমিয়া সাঁই পরিচিতি

দরবেশ লালমিয়া সাঁই

-আনান বাউল দরবেশ লালমিয়া সাঁই, ০৬ চৈত্র ১৩০৯ বঙ্গাব্দ, ২০ মার্চ ১৯০৩ খ্রীস্টাব্দ, রোজ শুক্রবার, প্রথম প্রহরের ব্রহ্মমুহূর্তে ধরাধামে আগমন করেন। তার পিতা জনাব নতুবুল্লাহ্ সরকার, মাতা মোছা: তুষ্ট বেগম। দরবেশ লালমিয়া সাঁইজি লালটকটকে আর সৌম্যকান্তি চেহারার অধিকারী ছিলেন বলে তার দাদা-দাদী নাম রাখেন ‘লালমিয়া’। বাবা-মা, আত্মীয়-পরিজন তাকে আদর করে ‘লালু’ বলে ডাকতেন। পারিবারিক আর […]

বিস্তারিত পড়ুন
হযরত কেল্লা শাহ্‌ বাবা ওরশ

হযরত কেল্লা শাহ্‌ বাবার ওরশ

-নূর মোহাম্মদ মিলু বাংলার বিখ্যাত আউলিয়া ও ধর্ম প্রচারক বাবা হযরত শাহ্‌ জালাল ইয়ামেনি আউলিয়ার (রহ:) অন্যতম মুরিদ ছিলেন হযরত কেল্লা শাহ্‌। হযরত কেল্লা শাহ্‌র প্রকৃত নাম সৈয়দ আহমদ গেছুদারাজ। কথিত আছে, হযরত শাহ জালাল (রহ:) বাবা কেল্লা শাহ্‌ সহ ৩৬০জন আউলিয়া সাথে নিয়ে বাংলায় ইসলাম প্রচার করতে আসেন। তৎকালীন বাংলার রাজা ছিলো গৌর গোবিন্দ। […]

বিস্তারিত পড়ুন
হযরত শাহজালাল পরিচিতি

বাবা শাহ্ জালাল(রা)’র উরছে জালালী

-নূর মোহাম্মদ মিলু জন্ম: তুরস্ক- ৬৭১ হিজরি ১২৭১ খ্রিস্টাব্দওফাত: বাংলা- ৭৪০ হিজরি ১৩৪১ খ্রিস্টাব্দ ভারত উপমহাদেশের শ্রেষ্ঠ সুফি দরবেশ বাবা শাহ্ জালাল(রা)। তার পুরো নাম শায়খ শাহজালাল কুনিয়াত মুজাররদ। ধারণা করা হয়, তিনি ৭০৩ হিজরিতে ইসলাম ধর্ম প্রচারের উদ্দেশ্যে বাংলাদেশের সিলেট অঞ্চলে আগমন করেন। সিলেট আগমনের সময়কাল নিয়ে ভিন্ন মত থাকলেও তার রওজায় প্রাপ্ত ফলকলিপিতে […]

বিস্তারিত পড়ুন
শ্রীশ্রী রবিশঙ্কর পরিচিতি

শ্রী শ্রী রবিশঙ্কর

-সায়মা সাফীজ সুমী তোমাদের মনে রাখতে হবে এই পৃথিবী রূপান্তরের গুরু দায়িত্বের তুমিও একজন। আমরা এই সৌরজগতে এসেছি কিছু ভালো কাজ করতে এবং মানুষকে ভালো রাখতে। আমরা এখানে এসেছি মানুষের কষ্ট, দুঃখের বোঝা ও শোনার মাধ্যমে কমাতে। যদি তুমি এই বিষয়টি নিজের মধ্যে ধারণ করতে পারো তাহলে তোমার মধ্যে এমন শক্তি, সৌন্ধর্যবোধ বিরাজ করবে যে, […]

বিস্তারিত পড়ুন
বায়েজিদ বোস্তামী পরিচিতি

সাধক বায়জিদ বোস্তামী

-মূর্শেদূল কাইয়ুম মেরাজ মাঝরাতে ঘুম ভেঙে গেলে মা বালক বায়জিদ বোস্তামীর কাছে পানি চাইলেন তৃষ্ণা নিবারণের জন্য। মাতৃভক্ত বায়জিদ ঘরে পানি না পেয়ে রাতের অন্ধকারেই ছুটলেন পানির খোঁজে। বহুদূর থেকে পানি সংগ্রহ করে বায়জিদ যখন ঘরে ফিরলেন। ততক্ষণ তৃষ্ণার্ত মা আবার ঘুমিয়ে পরেছেন। বায়জিদ মায়ের ঘুম না ভাঙিয়ে শিয়রে পানির গ্লাস হাতে ঠায় দাঁড়িয়ে রইলেন। […]

বিস্তারিত পড়ুন
স্বামী শ্রীযুক্তেশ্বর পরিচিতি

স্বামী শ্রীযুক্তেশ্বরের দর্শনলাভ : যোগী-কথামৃত থেকে

-প্রণয় সেন “ঈশ্বরে বিশ্বাস যেকোন রকম অসাধ্যসাধন ঘটাতে পারে বটে কিন্তু একটি মাত্র বিষয় ছাড়া; তা হচ্ছে, না পড়ে পরীক্ষায় পাশ করা।” কথাগুলো পড়ে নিতান্ত বিরক্ত হয়েই অলস মুহূর্তে পড়তে নেওয়া সেই ভাবোউদ্দীপক পুস্তকখানি বন্ধ করলাম। ভাবলাম এই লেখক যে ব্যতিক্রমের কথা বলছেন, তাতে করে তাঁর বিশ্বাসের একান্ত অভাবই দেখা যায়। বেচারার রাত জেগে পড়া […]

বিস্তারিত পড়ুন
শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভু পরিচিতি

যুগে যুগে মহাপ্রভু

অবসান হল সত্য যুগের। ত্রেতায় স্বয়ং ভগবান বিষ্ণু এলেন রামচন্দ্ররূপে। ভক্তের সঙ্গে ভগবানের লীলায় আমরা ধন্য হলাম। রামচন্দ্র এবং বীর হনুমান। ভগবান রামের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করলেন পবনপুত্র হনুমান। বন্দিনী জননী সীতাকে রাবণের অশোককানন থেকে মুক্ত করার ব্যাপারে তিনিই ছিলেন তাঁর প্রভু রামচন্দ্রের প্রধান বল ও ভরসা। কালের নিয়ম মেনেই একদিন বিদায় ঘটল ত্রেতা যুগের। […]

বিস্তারিত পড়ুন
সাধক রামানুজ পরিচিতি

ভক্তজ্ঞানী ধর্মপ্রচারক দার্শনিক রামানুজ

-প্রণয় সেন আজ থেকে হাজার বছর আগে শ্রীপেরুমপুদুর-এ জন্ম হয়েছিল কেশব সোমখাজী নামক এক ব্রাহ্মণের পুত্র ‘লক্ষ্মণ’-এর, উত্তরকালে যাঁর নাম হয় আচার্য রামানুজ। এই ১০১৭ খ্রিস্টাব্দেই জ্যোতির্বিজ্ঞানী মহাপণ্ডিত আল বিরুনি ভারতে এসে লিখতে শুরু করেন তাঁর যুগান্তকারী গ্রন্থ তারিক-আল-হিন্দ। একশো কুড়ি বছর বেঁচেছিলেন এই ভক্তজ্ঞানী ধর্মপ্রচারক দার্শনিক। সারা বিশ্বে ২০১৭ সালে রামানুজের জন্মের সহস্রাব্দ উদযাপিত […]

বিস্তারিত পড়ুন
শ্রীরামকৃষ্ণের সান্নিধ্যে সপ্তসাধিকা পরিচিতি

শ্রীরামকৃষ্ণের সান্নিধ্যে সপ্তসাধিকা

পৃথিবীর ইতিহাস পর্যালোচনা করিলে দেখিতে পাই প্রত্যেক জাতির সমাজ ও সংস্কৃতিক্ষেত্রে নারী একটি বিশিষ্ট স্থান অধিকার করিয়া রহিয়াছেন। সাধকদের জীবনেও সাধিকাদের গুরুত্ব অপরিসীম। শ্রীরামকৃষ্ণ পরমহংসদেবের সান্নিধ্যে আসা সাধিকাদের অনুসন্ধান করতে গিয়ে সপ্তসাধিকার নাম খুঁজিয়া পাওয়া যায়। তাহাদের গুণ বর্ণনা করিয়া শেষ হইবার নয়। তথাপি ক্ষুদ্রাকারে কিছুটা তুলিয়া ধরার চেষ্টা করা হইলো- জননী সারদামণিপরমারাধ্যা শ্রীশ্রীসারদাদেবীর পবিত্র […]

বিস্তারিত পড়ুন
বাচস্পতি অশোক কুমার চট্টোপাধ্যায় পরিচিতি

বাচস্পতি অশোক কুমার চট্টোপাধ্যায়ের লেখা থেকে

-প্রণয় সেন বাচস্পতি অশোক কুমার চট্টোপাধ্যায়ের লেখা থেকে- গীতায় প্রতিটি অধ্যায়ের শেষে লেখা আছে, ‘ইতি ব্রহ্মবিদ্যায়াং যোগশাস্ত্রে শ্রীকৃষ্ণার্জুন সংবাদে।’ এ থেকে বোঝা যায় গীতায় প্রতিটি অধ্যায়ের মধ্য দিয়ে ব্রহ্মবিদ্যা এবং যোগশাস্ত্রের কথাই বলা হয়েছে। ভগবান কখনো অর্জুনকে কাঁদতে উপদেশ দেননি। বরং বলেছেন, ‘তস্মাদুত্তিষ্ঠ কৌন্তেয় যুদ্ধায় কৃতনিশ্চয়’ অর্থাৎ হে কৌন্তেয়! দৃঢ়চিত্ত হয়ে ওঠ এবং যোগশাস্ত্রের মাধ্যমে […]

বিস্তারিত পড়ুন
error: Content is protected !!