ব্রাহ্মসামাজ

ব্রাহ্মধর্ম

ব্রহ্মের যে স্বরূপের কথা আগে বলা হয়েছে, সেই নিরাকার, সর্বশক্তিমান, পরিপূর্ণ, আনন্দময় পরব্রহ্মের উপাসনা ও ধ্যান করাই ব্রাহ্মধর্মের মূল উপদেশ। যে ধর্ম ব্রহ্মের সহিত সাক্ষাৎভাবে (অর্থাৎ কোনও প্রতীক, প্রতিমা বা মধ্যবর্তী ছাড়াই) সংযোগের কথা বলে, তাকেই ব্রাহ্মধর্ম বলা হয়।

ব্রাহ্মধর্মের মূলসত্য

প্রথমসত্য:

সমস্ত বিশ্বব্রহ্মাণ্ড, পৃথিবী, বৃক্ষলতা প্রাণী ও মানুষেল সৃষ্টি ‘ব্রহ্ম’ হতে; তাঁর মধ্যেই বিশ্বব্রহ্মাণ্ডের ও সর্বপ্রাণীর স্থিতি ও তাঁহাতেই সব কিছুর লয়।

দ্বিতীয়সত্য:

ব্রহ্ম বা ঈশ্বর, অনাদি, অনন্ত ও অসীম। তাঁর কোনও দেশকাল বস্তুবন্ধ রূপ কল্পনা করা যায়না, তিনি নিরাকার।

তৃতীয়সত্য:

এক এবং অদ্বিতীয় পরব্রহ্ম সৃষ্ট সকল মানুষ সমান।

ব্রহ্মোপাসনা করার অধিকার দেশ জাতি বর্ণ নির্বিশেষে সকল নরনারীর আছে। কাজকর্ম করা ও বিষয় সম্পত্তি সুখভোগের ক্ষেত্রেও সকল মানুষই সমান অধিকারী।

……………………………….
ভাববাদ-আধ্যাত্মবাদ-সাধুগুরু নিয়ে লিখুন ভবঘুরেকথা.কম-এ
লেখা পাঠিয়ে দিন- voboghurekotha@gmail.com
……………………………….

………
আরও পড়ুন-
ব্রাহ্মসমাজ
সাধারণ ব্রাহ্মসমাজের সভ্য হইবার যোগ্যতা
ব্রাহ্ম ধর্মের মূল সত্য
ব্রহ্ম মন্দিরের ট্রাস্টডিড
ব্রাহ্মধর্ম্মের মূল সত্য
আত্মা
মানুষের ভ্রাতৃত্ব
উপাসনা ও প্রার্থনা
শাস্ত্র
গুরু
মধ্যবর্ত্তী ও প্রেরিত
সুখ-দু:খ : দু:খবাদ ও আনন্দবাদ
পাপ ও পুণ্য
পুনর্জ্জন্ম
পরকাল
স্বর্গ ও নরক
ধর্ম্ম রক্ষা
পরিবারে পুরুষ ও নারীর অধিকার-সাম্য
ব্রাহ্মসমাজের প্রতি ব্রাহ্মদিগের কর্ত্তব্য
সমবেত উপাসনা
পূর্ণাঙ্গ উপাসনার আদর্শ 
স্তুতি
বিবিধ অবস্থায় প্রার্থনা
নৈমিত্তিক অনুষ্ঠান
সন্তান জন্ম
ব্রাহ্মধর্ম্ম গ্রহণ ও ব্রাহ্মসমাজে প্রবেশ
ধর্ম্মসাধন ব্রতে দীক্ষা
ব্রাহ্মধর্ম্ম গ্রহণ ও ধর্ম্মদীক্ষা
বিবাহ ও তাহার আনুসঙ্গিক অনুষ্ঠান
বিবাহের বাগদান
বিবাহ
মৃত্যু ও অন্ত্যেষ্টি ক্রিয়া
শ্রাদ্ধ
গৃহ প্রবেশ
ব্রহ্ম ও ব্রহ্মের স্বরূপ
ব্রহ্ম ধ্যান
ব্রাহ্মধর্ম
সকলেই কি ব্রাহ্ম?
ব্রাহ্মোপসনা প্রচলন ও পদ্ধতি
আদি ব্রাহ্ম সমাজ ও “নব হিন্দু সম্প্রদায়”
পূর্ণাঙ্গ উপাসনার আদর্শ

প্রাসঙ্গিক লেখা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

error: Content is protected !!