সদগুরু জাগ্গি‌ বাসুদেব

সদগুরু জাগ্গি‌ বাসুদেবের বাণী: এক

১.
সচেতনতা ছাড়া স্বাধীনতা বিপদজনক।

২.
ধ্যান কোনো কাজ নয় এটা একটা গুণ।

৩.
হতাশা-বিষন্নতার অর্থ নিজের বিরুদ্ধে কাজ করা।

৪.
অস্তিত্বের বৃহত্তম শক্তি হলো চেতনা, আর সেটা স্বয়ং তুমি।

৫.
শিশুরা বড়দের কথা শোনে না। ওরা মনোযোগ দিয়ে দেখে।

৬.
যখন আপনি সকলের জন্য বাঁচেন, সকলেই আপনার যত্ন নেয়।

৭.
জন্ম ও মৃত্যু অতিক্রমের বিভিন্ন পথ মাত্র; জীবনের নয়, সময়ের।

৮.
আত্মজ্ঞান সেই সত্যের প্রত্যক্ষরূপ, যার আগে থেকেই অস্তিত্ব ছিল।

৯.
নিজের অস্তিত্বের সৌন্দর্য সম্পর্কে জানার একটাই উপায় হলো ধ্যান।

১০..
ভালোবাসা নিজের সুবিধা তৈরির সরঞ্জাম নয়। এটা আত্মনাশের প্রকৃয়া।

১১.
ধ্যান হলো আপনার ভেতরে নতুন মাত্রাগুলোকে জাগিয়ে তোলার সম্ভবনা।

১২.
স্বর্গ ও নরক কোনো ভৌগোলিক অবস্থান নয়, শুধুমাত্র অনুভূতির ভিন্ন মাত্রা।

১৩.
চিন্তা করা হলো সেই তথ্যগুলোর পূর্ণব্যবহার যা অতীতে আমরা জড়ো করেছি।

১৪.
যে ক্রমাগত নিজের পথ পাল্টে ফেলছে, স্পষ্টতই সে কোথাও পৌঁছাতে চায় না।

১৫.
শ্রম যেন কষ্টকর না হয়ে দাঁড়ায় বরঞ্চ সে শ্রম যেন ভালবাসা ও আনন্দে ভরে উঠে।

১৬.
কোনো প্রতিকূলতাই বাঁধা নয় যদি সচেতনভাবে সাড়া দেওয়ার অবস্থায় থাকা যায়।

১৭.
অজ্ঞানতা একটি সীমাহীন বাস্তবতা। যা তোমার জানবার বাকি, তা সীমাহীন সম্ভাবনা।

১৮.
আত্মজ্ঞান বিগ-ব্যাং বিস্ফোরণের মতো নয়, এটা অবিরাম চলতে থাকা একটা প্রক্রিয়া।

১৯.
জীবন হল সময় ও শক্তির নৃত্য। এ দুটিকে সঠিক ছন্দে রাখাটাই হল জীবনের সৌন্দর্য।

২০.
নিজেকে এমনভাবে প্রস্তুত করো, যাতে সবসময় তুমি সমাধানের অংশীদার হতে পারো।

২১.
অস্তিত্বে সবকিছুর গতিই বেগবান; হয় এর সঙ্গে এগিয়ে চলো অথবা এর উর্ধে উঠে যাও।

২২.
যদি সাফল্য পেতে চাও তবে সর্বপ্রথম এটা নিশ্চিত করতে হবে যে, তুমি তাতে বাঁধা নও।

২৩.
যদি বলিষ্ঠ জীবনযাপন করতে চান, তাহলে প্রতিনিয়ত পঞ্চভূতের সংস্পর্শে থাকতে হবে।

২৪.
কোনো গুরুই এমন নয় যে, আপনার জন্য মশাল ধরবে বরঞ্চ গুরু নিজেই একজন মশাল।

২৫.
দায়িত্বের অর্থ হলো, জীবনে ঘটতে থাকা যে কোনো পরিস্থিতির মোকাবিলায় সক্ষম হওয়া।

২৬.
দেহের প্রতিটি কণা সমগ্র ব্রহ্মাণ্ডের সঙ্গে যোগাযোগ রয়েছে। এটি অনুভব করাই হলো যোগ।

২৭.
মানুষ বইকে পবিত্র ভাবে। কিন্তু তাদের এটাও বুঝতে হবে যে, জীবনও একটা পবিত্র জিনিস।

২৮.
যদি আমরা অন্যদের প্রতি ঘৃণা-হিংসা পুষে রাখি, একদিন তা আমাদের কাছেই ফিরে আসবে।

২৯.
আত্মজ্ঞানে না আছে সুখ-না আছে দুঃখ। এতে হয় শুধু এক ধরনের অজানা আনন্দ ‘পরমানন্দ’।

৩০.
জীবনের অর্থ কি? এটা এমন একটা মহান ঘটনা, যেটাকে কোনো অর্থের মধ্যেই বাঁধা যাবে না।

………………………….
আরো পড়ুন:
সদগুরু জাগ্গি‌ বাসুদেবের বাণী: দুই
সদগুরু জাগ্গি‌ বাসুদেবের বাণী: তিন
সদগুরু জাগ্গি‌ বাসুদেবের বাণী: চার

প্রাসঙ্গিক লেখা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!