স্বামী নিত্যানন্দ গিরির বাণী: তেইশ

স্বামী নিত্যানন্দ গিরির বাণী: তেইশ

: কর্মযোগ :
(ভগবদর্থে কর্ম, নিষ্কাম কর্ম)

ঈশ্বরে প্রীতি আরাধনা কর্ম করবে ধনঞ্জয়
বাকি সকল কর্মেতে জানবে বন্ধন নিশ্চয়,
যজ্ঞ সহ প্রজাগণে তিনি করেছে সৃজন
প্রজাপতি প্রজাহিতে অভীষ্ট ফল দেন।।৯

যজ্ঞ করে সকলের হবে শুভ সমৃদ্ধ
ভক্তি আস্থা শ্রদ্ধা বেড়ে হতে পারো প্রবুদ্ধ,
যজ্ঞ সাধন করে করো দেবের সংবর্ধন
দেবাশিসে হবে তোমার মঙ্গল সাধন।।১০

বিধি পূর্বক যজ্ঞেতে হন পরিতৃপ্ত দেবগণ
আশীর্বাদ স্বরূপ করেন অভীষ্ট পূরণ,
দেবতা গুরু কে দ্রব্য না করলে অর্পণ
নিজে ভোগ করলে তা হবে চৌর্য আচরণ।।১১

শ্রেষ্ঠ পুরুষ করে গ্রহণ, যজ্ঞের অবশিষ্ট
দেবতায় দিয়ে ভোগ্য বস্তু হয় যে বিশিষ্ট,
অন্নপাক করে যে, করে স্ব-দেহের পোষণ
পাপ তারাকরে জেনো, করে পাপান্ন ভোজন।১২

সর্ব পাপ হতে মুক্ত শ্রেষ্ঠ পুরুষগণ
অশাস্ত্রীয় কর্ম তারা করেন যে বর্জন,
অকর্ম থেকে কর্ম ভালো, তাই করো কর্ম
কর্ম বিনা চলে না, শরীরাদির সে ধর্ম।।১৩

সৃষ্টিচক্রের নিয়ম মেনে, যে কর্ম করে না
ইন্দ্রিয়াসক্ত পাপী সে, ধর্ম আদৌ মানে না,
আত্মায় রমণ করেন যিনি, আত্মাতেই সন্তুষ্ট
কোন কর্তব্য থাকে না তার, হয় না অসন্তুষ্ট।।১৪

ইহলোকে সে জনের, কোন কর্ম-ই থাকে না
প্রাণিজগতের সঙ্গে কোন, সংযোগ রয় না,
হেন কর্মে জনকাদি জ্ঞানী, মোক্ষপদ পায়
তুমি তেমনি লোকহিতে, করো কর্মের উপায়।।১৫

মহৎজনের কর্ম দেখে, সবাই করে আচরণ
নির্দিষ্ট প্রমাণ বলে মানুষ করে অনুসরণ,
হেপার্থ, ত্রিলোকে, আমার কর্তব্য কিছু নাই
অপ্রাপ্ত নেই কিছু মোর, তবু কর্ম করে যাই।।১৬

অলস হয়ে যদি থাকি, এই কর্ম থেকে দূরে
সর্বভাবে আমার পথ, লোক অনুসরণ করে,
লোকশিক্ষায় কর্ম যদি না করি সম্পাদন
সেইমত করলে লোকে হব ক্ষতির কারণ।।১৭

কর্ম যদি না করি, সংসার যাবে উৎছন্নে
ভবিষ্যৎ প্রজন্ম নষ্ট হবে, অবশ্য জেনো এক্ষণে,
তার ফলে বর্ণসঙ্কর, প্রজা বিনাশ হয়
এদের কারণ আমি হব, অন্য কেউ নয়।।১৮

………………….
দেখুন:
স্বামী নিত্যানন্দ গিরির সকল বাণী

প্রাসঙ্গিক লেখা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!