স্বামী নিত্যানন্দ গিরির বাণী: বিশ

স্বামী নিত্যানন্দ গিরির বাণী: বিশ

:সাংখ্য যোগ:
(পরবর্তী অংশ)

আত্মার জন্ম মৃত্যু নাই, আত্মা অজর অমর
নিত্য সত্য স্বত:সত্ত্ব, বিকার শূন্য সে অক্ষর,
বিনাশ হয় দেহের, কভু হয়না দেহীর বিনাশ
দেহ আর দেহীএক নয়, করো মোরে বিশ্বাস।।১১

দেহের মৃত্যুতে শোক করে, মোহে থাকে যারা
দেহ জড়, দেহী চৈতন্য, এক করে তারা,
ভাবছো যাকে মৃত্যু বলে, তার জন্ম মরণ নাই
পূর্বে দেহ ছিল না, পরেও দেহ থাকবে কি ভাই?১২

পুরানো বস্ত্র ছেড়ে যেমন, পরে নূতন বসন
আত্মার তেমনই দেহ ছেড়ে, দেহান্তরে গমন,
দেহের দহন দেহের শোষণ, দেহের-ই হয় পচন
আত্মা বিকারশূন্য, নষ্ট করতে পারেনা অগ্নি-পবন।।১৩

অস্ত্র একে কাটতে পারে না, সিক্ত হয় না নীরে
জন্ম মৃত্যু শূন্য রিক্ত, অসমর্থ হয়ে আসে ফিরে,
তাকে না যায় দেখা না যায় বলা, যায়না করা মনন
তিনি অবাঙমনসগোচর তাই শোক করা বারণ।।১৪

পাপ-পুণ্য শোক-তাপ ভুলে যুদ্ধ করো
যুদ্ধ তোমার স্বধর্ম, জেনে শক্তি ধরো,
যুদ্ধে হত হ’লে তুমি, স্বর্গ-প্রাপ্ত হবে
যুদ্ধ-চ্যূত হলে তোমার কীর্তি ধুলায় রবে।।১৫

লাভালাভ জয়-পরাজয়, তুল্য-জ্ঞান করে
যুদ্ধে তুমি রত হও, ভ্রান্তি যাক সরে,
ত্রিগুণাতীত হও অর্জুন নির্দ্বন্দ্ব হও তুমি
যোগীর মত যুদ্ধ করো, যুদ্ধই স্বর্গভূমি।।১৬

কর্মে তোমার অধিকার, ফলে মোটেই নয়
ফলাকাঙ্খা দূরে থাকুক, কর্মেতে নিশ্চয়,
আসক্তি আর দোষ থেকে, সদা দূরে রও
সিদ্ধ্যসিদ্ধি সমান জেনে যোগে রত হও।।১৭

কর্মফল ত্যাগ করে নিয়ে সমত্ত্ব বুদ্ধি
পুনর্জন্ম আর হবেনা পাবে তুমি মুক্তি,
মোহরূপ পাকে তব কলুষিত বুদ্ধি
শ্রুত শ্রোতব্য কর্মে করো নিজের মতি শুদ্ধি।।১৮

সমভাবে সুখ দুঃখ যে করে সহন
হে অর্জুন সে কখনো ব্যথিত না হন,
তিনি অমরত্ব লাভ করবে নিশ্চয়
ইহ-পরলোকে থাকে নিত্যানন্দময়।।১৯

অর্জুন বলে হে কেশব, স্থিতপ্রজ্ঞ কারে বলে?
স্থিতধী কেমনে বলে, কীভাবেই বা চলে?
ভগবান বলেন, তার সদা কামনা বর্জিত মন
বাসনা-ত্যাগী, আত্ম-তুষ্ট, তিনিই স্থিতধী হন।।২০

দুঃখে যিনি অনুদ্বিগ্ন, সুখেও নেই স্পৃহা
ভয়, রাগ, ক্রোধ নেই, স্থিতধী যায় কহা,
দুঃখা-দুঃখ সমান যার, বুদ্ধি অতি স্থির
সর্বক্ষেত্রে সর্বফলে সে একই প্রকৃতির।।২১

………………….
দেখুন:
স্বামী নিত্যানন্দ গিরির সকল বাণী

প্রাসঙ্গিক লেখা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!