স্বামী নিত্যানন্দ গিরির বাণী: পাঁচ

স্বামী নিত্যানন্দ গিরির বাণী: পাঁচ

: ভাব সর্বস্ব জীবন :

যাদৃশী ভাবনা যস্য সিদ্ধির্ভবতি তাদৃশী
শাস্ত্রে তো আছে, তা ছাড়াও বলেন মুনিঋষি,
মনে আনতে হবে সদা প্রেম-ভক্তি-শ্রদ্ধা ভাব
বিচার সৎসঙ্গে ও সাধনা হতে আসে এ সমভাব।।১

যে কোন ধর্ম কর্ম করে আনতে হবে সমভাব
কর্তাভাব ছেড়ে কর্ম কর, নাভেবে লোকসান লাভ,
কর্ম করতে গিয়েই করে লাভ-লোকসানের হিসাব
সংকীর্ণতা ছেড়ে করলে কর্ম, সমাজে পড়ে প্রভাব।২

সবকিছু থাকা সত্বেও তবুও কেন বোধ করে অভাব?
সঙ্গীতে বলে”ভেবে দেখ মন কেউ কারো নয়,
ভাব সুন্দর হলে আবার সবাই তোমার হয়
খাদ্য হতে গুণ, গুণ অনুসারে হয় সংস্কার।।৩

অভাব বোধ জাগায় আমাদের সব পরিবার
দিনের পর দিন বলে, এটার পর এটা দরকার,
কোন পিতা-মাতা জাগায় না সন্তানে বৈরাগ্য ভাব
শিক্ষার দ্বারা আসে, দয়া করুণা মৈত্রী সমভাব।।৪

দুধ থেকে ময়রা যেমন তৈরি করে মাখন ঘি দই
এক লোহা থেকে তৈরি হয় কাস্তে কোদাল মই,
এক চিনি থেকে তৈরি হয় কদম্ব বাতাসা মিছরি
এক মাটি থেকে হয় দেব দেবী, শিব কালী তৈরি।।৫

মনের ভাবানুসারে কেউ হয় অসুর কেউবা দেবতা
ভাব কর্মানুসারে নারী দেবী হয়ে সমাজে পূজিতা,
প্রতিদিন গীতা অধ্যয়ণে, চলে যায় অহং ভাব
বদলে যায় নিজের স্বভাব হৃদয় আসে ব্রহ্মভাব।।৬

শরীর-মন বুদ্ধিকে করলে সংস্কার আসে শুদ্ধ ভাব
শুদ্ধভাব হলে হয় মনে আনন্দ প্রসন্নতা সমভাব,
মনে আসে প্রতিমুহূর্তে দ্বন্দ্ব, ভালো ও খারাপ ভাব
মনে দুঃখ হয়, সমভাব হলে থাকবেনা অভাব।।৭

যা কিছু আসে জীবনে তখন, তা শুধু লাভ-ই লাভ
জীবনে কখনও কোন কিছুরই তখন হয় না অভাব,
সংগ অনুসারে মনে আসে ভাব-সদ্ভাব- মহাভাব
ইষ্ট দেবদেবীর সাথে একত্র হ’লে আসে মহাভাব।।৮

প্রাসঙ্গিক লেখা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: Content is protected !!