রওশনারা ও রশিদা ফকিরাণীর স্মৃতি বার্ষিকী স্মরণ উপলক্ষ্যে ৪৫তম সাধুসঙ্গ

রওশনারা ও রশিদা ফকিরাণীর স্মৃতি বার্ষিকী স্মরণ উপলক্ষ্যে ৪৫তম সাধুসঙ্গ

সুধি,
জ্ঞানাবতার প্রেমসুধাকর শাহ্ সূফি দরবেশ লালন সাঁইজির নামাশ্রয়ী জীবের ভরসা। তাঁরই নামসুধায় সিক্ত হওয়ার আশায় “প্রাগপুর হেমাশ্রম”-এর পক্ষ থেকে প্রতি বৎসরের ন্যায় এবারও মহতি সাধুসঙ্গের আয়োজন করিয়াছি।

গুরুর কৃপায় সাধুগুরুদের চরণধূলি পাইয়া আমাদের জীবন যেন সার্থক হয়, সেই প্রার্থনা করি। সাধুসঙ্গে আপনার পদধূলি আমরা কামনা করিতেছি। সেইদিন সাধুসেবার সুযোগ পেয়ে যেন আমরা ধন্য হই, সেই কৃপাপ্রার্থী।

২৪ ঘণ্টার উক্ত অনুষ্ঠানে অধিবাস আরম্ভ ১০ মার্চ ২০২২ খ্রিস্টাব্দ মোতাবেক ২৫ ফাল্গুন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, রোজ বৃহস্পতিবার বিকেল ৪ ঘটিকায় এবং ১১ মার্চ ২০২২ খ্রিস্টাব্দ মোতাবেক ২৬ ফাল্গুন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ রোজ শুক্রবার পূর্ণ প্রহর আমাদের সঙ্গে থাকিয়া ধন্য করিবেন, এই মিনতি রাখি। পত্রে আহ্বান ও নিমন্ত্রণ জানানোর জন্য ঘোর অপরাধী। তবে সাধু দয়াময়, মার্জনা ভিক্ষা করি।

উক্ত সাধুসঙ্গ অনুষ্ঠানে লালন সাঁইজিকে নিয়ে মত্ত সাধুগুরু এবং দেশ বরেণ্য প্রখ্যাত অতিথি শিল্পী।

বিনয়াবনত সেবায়ত-
ফকির নহির শাহ্
প্রাগপুর হেমাশ্রম।
প্রাগপুর, দৌলতপুর, কুষ্টিয়া, বাংলাদেশ।
০১৭২৪৩০১৪২৪

সময়:

বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টা থেকে আরম্ভ-
১০ মার্চ ২০২২ খ্রিস্টাব্দ।
২৫ ফাল্গুন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ।

স্থান:

প্রাগপুর হেমাশ্রম।
প্রাগপুর, দৌলতপুর, কুষ্টিয়া, বাংলাদেশ।

আয়োজন ও আমন্ত্রণে:

ফকির নহির শাহ্
হেমাশ্রম, প্রাগপুর, কুষ্টিয়া, বাংলাদেশ।

অনুষ্ঠান সূচি:

১০ মার্চ ২০২২ খ্রিস্টাব্দ/২৫ ফাল্গুন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
রোজ বৃহস্পতিবার

বিকেল ৩:০০-৪:০০ – সাধুবৃন্দের আগমন।
বিকেল ৪:০০-৪:৩০ – আসন গ্রহণ ও অধিবাস শুরু।
বিকেল ৪:৩০-৫:০০ – জ্ঞানরত্নাকর ফকির লালন সাঁইজির জীবনলীলা স্মরণ।
সন্ধ্যা ৬:৩০-৭:৩০ – গুরুকর্ম।
সন্ধ্যা ৭:৩০-৮:৩০ – দীন ডাকা ও চা-মুড়ি সেবা।
রাত ৮:৩০-৯:৩০ – দৈন্যগান।
রাত ৯:৩০-১১:৩০ – ফকির লালন সাঁইজির গীতজ্ঞান সুধা পরিবেশন (আমন্ত্রিত সাধুগুরু ও শিল্পীবৃন্দ কর্তৃক)।

১১ মার্চ ২০২২ খ্রিস্টাব্দ/২৬ ফাল্গুন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
রোজ শুক্রবার

সকাল ৬:০০-৭:০০ – গোষ্ঠ গান।
সকাল ৭:০০-৮:০০ – গুরুকর্ম।
সকাল ৮:০০-৯:০০ – বাল্যসেবা।
সকাল ৯:০০- বিকেল ৩:০০ – ভাবসঙ্গীত।
বিকেল ৩:০০-৪:৩০ – পূণ্যসেবা।
বিকেল ৪:৩০-৫:৩০ – বিদায়ী প্রণাম।

সংগীত পরিবেশন:

কুষ্টিয়া-মেহেরপুরসহ দেশের
প্রবীন সাধুগুরু ও বিশিষ্ট শিল্পীবৃন্দ

যোগাযোগ-

ফকির রাজন শাহ্
০১৭১০৮৬১৩০০
হেমাশ্রম, প্রাগপুর, দৌলতপুর, কুষ্টিয়া

যাতায়াত-

ঢাকা থেকে (বাস যোগে)

সড়কপথে ঢাকা থেকে কুষ্টিয়ার দূরত্ব ২৪৩কিমি। আর কুষ্টিয়া থেকে প্রাগপুরের দূরত্ব প্রায় ৫০ কিমি। ঢাকা শহরের গাবতলী, কল্যাণপুর ও সায়দাবাদ থেকে শ্যামলী, এসবি, হানিফ ইত্যাদি বাসে করে সরাসরি যাওয়া যায় কুষ্টিয়া। এছাড়াও বেশকিছু বাস এই লাইনে চলাচল করে।

বাসে কুষ্টিয়ার মজমপুর গেটে নেমে সেখান থেকে আবার প্রাগপুরগামী বাসে উঠতে হবে। কুষ্টিয়া থেকে প্রাগপুর দুই থেকে আড়াই ঘণ্টার মধ্যে পৌঁছে যাওয়া যায়। তবে কুষ্টিয়া নেমে আবার তক্ষুণি প্রাগপুরের বাসে না উঠে চলে যেতেন পারেন ছেঁউড়িয়ার লালন আখড়ায়। মিনিট পনের/বিশেক সময় লাগবে অটোতে।

সেখানে গিয়ে ফকিরকূলের শিরোমণি ফকির লালন সাঁইজির আখড়া দেখে। কিছুটা সময় কাটিয়ে আবার ফিরতে পারেন মজমপুর। সেখানে থেকে ধরতে পারেন প্রাগপুরগামী বাস।

বিকাল পাঁচটা পর্যন্ত প্রতি ঘণ্টায় বাস ছেড়ে যায়। প্রাগপুরে অর্থাৎ বাসের শেষ স্টপিজে নেমে সেখানে যে কোন ভ্যান বা রিকসাকে বললেই নিয়ে যাবে নহির ফকিরের বাড়ি। ভ্যানে প্রতিজনের জন্য ভাড়া ১০ টাকা।

এছাড়া ঢাকা থেকে প্রাগপুরেরও সরাসরি বাস ছেড়ে যায়। এসবি ও ফাতেমা সার্ভিস বাস কল্যাণপুর থেকে ছেড়ে যায়। এই বাসে করে সরাসরি যাওয়া যায় প্রাগপুর। সেখানে থেকে ভ্যানে করে নহির ফকিরের বাড়ি।

এছাড়া ঢাকা নারায়ণগঞ্জ থেকেও প্রাগপুরে সরাসরি বাস আছে। আরপি পরিবহন ও আল্ট্রামর্ডান নামে বাস সার্ভিস প্রতিদিন ছেড়ে যায় নারায়ণগঞ্জ থেকে প্রাগপুর।

আর ঢাকা থেকে কুষ্টিয়া যাওয়ার বিস্তারিত জানতে এই লিংকে ক্লিক করুন-

ফকির লালন সাঁইজির দোলপূর্ণিমা উৎসব ১৪২৮

কি সন্ধানে যাই সেখানে-

……………………………….
ভাববাদ-আধ্যাত্মবাদ-সাধুগুরু নিয়ে লিখুন ভবঘুরেকথা.কম-এ
লেখা পাঠিয়ে দিন- voboghurekotha@gmail.com
……………………………….

………………………..
আরো পড়ুন:
ফকির লালন সাঁই
ফকির লালনের ফকিরি
ফকির লালন সাঁইজি
চাতক বাঁচে কেমনে
কে বলে রে আমি আমি
বিশ্ববাঙালি লালন শাহ্ফকির লালন সাঁইজির শ্রীরূপ
গুরুপূর্ণিমা ও ফকির লালন
বিকৃত হচ্ছে লালনের বাণী?
লালন ফকিরের আজব কারখানা
মহাত্মা লালন সাঁইজির দোলপূর্ণিমা
লালন ফকির ও একটি আক্ষেপের আখ্যান
লালন আখড়ায় মেলা নয় হোক সাধুসঙ্গ
লালন অক্ষ কিংবা দ্রাঘিমা বিচ্ছিন্ন এক নক্ষত্র!
লালনের গান কেন শুনতে হবে? কেন শোনাতে হবে?
লালন গানের ‘বাজার বেড়েছে গুরুবাদ গুরুত্ব পায়নি’
‘গুরু দোহাই তোমার মনকে আমার লওগো সুপথে’
মহাত্মা ফকির লালন সাঁইজির স্মরণে বিশ্ব লালন দিবস

মহাত্মা ফকির লালন সাঁইজি: এক
মহাত্মা ফকির লালন সাঁইজি: দুই
মহাত্মা ফকির লালন সাঁইজি: তিন
লালন ফকিরের নববিধান: এক
লালন ফকিরের নববিধান: দুই
লালন ফকিরের নববিধান: তিন
লালন সাঁইজির খোঁজে: এক
লালন সাঁইজির খোঁজে: দুই
লালন সাধনায় গুরু : এক
লালন সাধনায় গুরু : দুই
লালন সাধনায় গুরু : তিন
লালন-গীতির দর্শন ও আধ্যাত্মিকতা: এক
লালন-গীতির দর্শন ও আধ্যাত্মিকতা: দুই

…………………………..
আরো পড়ুন:
মাই ডিভাইন জার্নি : এক :: মানুষ গুরু নিষ্ঠা যার
মাই ডিভাইন জার্নি : দুই :: কবে সাধুর চরণ ধুলি মোর লাগবে গায়
মাই ডিভাইন জার্নি : তিন :: কোন মানুষের বাস কোন দলে
মাই ডিভাইন জার্নি : চার :: গুরু পদে মতি আমার কৈ হল
মাই ডিভাইন জার্নি : পাঁচ :: পাপীর ভাগ্যে এমন দিন কি আর হবে রে
মাই ডিভাইন জার্নি : ছয় :: সোনার মানুষ ভাসছে রসে
মাই ডিভাইন জার্নি : সাত :: ডুবে দেখ দেখি মন কীরূপ লীলাময়
মাই ডিভাইন জার্নি : আট :: আর কি হবে এমন জনম বসবো সাধুর মেলে
মাই ডিভাইন জার্নি : নয় :: কেন ডুবলি না মন গুরুর চরণে
মাই ডিভাইন জার্নি : দশ :: যে নাম স্মরণে যাবে জঠর যন্ত্রণা
মাই ডিভাইন জার্নি : এগারো :: ত্বরাও গুরু নিজগুণে
মাই ডিভাইন জার্নি : বারো :: তোমার দয়া বিনে চরণ সাধবো কি মতে
মাই ডিভাইন জার্নি : তেরো :: দাসের যোগ্য নই চরণে
মাই ডিভাইন জার্নি :চৌদ্দ :: ভক্তি দাও হে যেন চরণ পাই

মাই ডিভাইন জার্নি: পনের:: ভক্তের দ্বারে বাঁধা আছেন সাঁই
মাই ডিভাইন জার্নি : ষোল:: ধর মানুষ রূপ নেহারে
মাই ডিভাইন জার্নি : সতের:: গুরুপদে ভক্তিহীন হয়ে
মাই ডিভাইন জার্নি : আঠার:: রাখিলেন সাঁই কূপজল করে
মাই ডিভাইন জার্নি :উনিশ :: আমি দাসের দাস যোগ্য নই
মাই ডিভাইন জার্নি : বিশ :: কোন মানুষের করি ভজনা
মাই ডিভাইন জার্নি : একুশ :: এসব দেখি কানার হাটবাজার

প্রাসঙ্গিক লেখা

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

error: Content is protected !!